বাংলাদেশে চালু হবে ই-পাসপোর্ট
বাংলাদেশে চালু হবে ই-পাসপোর্ট
২০১৬-০১-২৭ ২৩:০৪:২৮
প্রিন্টঅ-অ+


পাসপোর্টের মেয়াদ বৃদ্ধি ও পর্যায়ক্রমে ই-পাসপোর্ট তৈরির জন্য নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিনকে আহ্বায়ক একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যে ওই সরকারি-বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে বৈঠকে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে পাসপোর্ট সংক্রান্ত এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. মোজাম্মেল হক খান ও পাসপোর্ট অধিদফতরের ডিজিসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বৈঠক সূত্র জানায়, বিশ্বের ১১৮টি দেশে ই-পাসপোর্ট পদ্ধতি চালু আছে। তাই বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট চালু করার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এই জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এতে পাসপোর্ট অধিদফতরের ডিজিসহ বুয়েট ও অন্যান্য বেসরকারি সংস্থা থেকে বিশেষজ্ঞদের সদস্য করা হবে। ওই কমিটি সরকারি-বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে কীভাবে ই-পাসপোর্ট তৈরি করা হবে। এক্ষেত্রে ব্যয় ও সময় বৃদ্ধি পর্যালোচনা করা হবে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বৈঠকে উপস্থিত এক কর্মকর্তা জানান।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাংলাদেশি শ্রমিক অধ্যুষিত মালয়েশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সুপারিশের ভিত্তিতে পাসপোর্টের মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর এটি কার্যকর হলে শুধু প্রবাসীরা নন, বাংলাদেশে থাকা নাগরিকরাও উপকৃত হবেন।

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের মতামত সাপেক্ষ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এ সংক্রান্ত প্রস্তাবনা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন। তবে এ ব্যাপারে আরও পর্যালোচনার জন্য এই কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এর আগে এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। তারই ধারাবাহিকতায় জনগণের সুবিধার কথা বিবেচনা করে পাসপোর্টের মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এটি কার্যকর হলে প্রবাসে কর্মরত লাখ লাখ বাংলাদেশি প্রবাসীরা উপকৃত হবেন। প্রবাসে কর্মক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদে অবস্থান করতে পারবেন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, ২০১২ সাল থেকেই যন্ত্রে পাঠযোগ্য পাসপোর্ট (এমআরপি) ফি বাড়ানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়। বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিফতরের ইন্ট্রোডিউসিং অফ মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট অ্যান্ড মেশিন রিডেবল ভিসা ইন বাংলাদেশ প্রকল্প থেকে ফি বাড়ানোর একটি প্রস্তাবনা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। প্রস্তাবে প্রথম পর্যায়ে পুনরায় জারিকৃত পাসপোর্টের ফি বাড়ানো, এরপর ধাপে ধাপে সাধারণ ও জরুরি এমআরপির ফি বাড়ানোর কথা বলা হয়।

গত আগস্টে পাসপোর্টের মেয়াদ ১০ বছর বাড়ানোর বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাবনায় অর্থ মন্ত্রণালয়ের মতামত চাওয়া হয়। মতামত সাপেক্ষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সংক্রান্ত প্রস্তাবনার অনুমোদন দেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর