অ্যাপলের কোটি ডলার খরচ কুকের পেছনে
অ্যাপলের কোটি ডলার খরচ কুকের পেছনে
২০১৬-০১-০৮ ১৭:৪৪:০৯
প্রিন্টঅ-অ+


২০১৫ সালে প্রধান নির্বাহী টিম কুকের পেছনে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের খরচ ১১.৫ শতাংশ বেড়ে ১ কোটি ৩ লাখ ডলারে দাঁড়িয়েছে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। গেল বছর প্রতিষ্ঠানটির বিক্রি বেড়েছে ২৮ শতাংশ আর মুনাফা বেড়েছে ৩৫ শতাংশ।

অ্যাপলের শীর্ষ কর্মকর্তা হলেও আয়ের দিক থেকে কিন্তু অন্যান্য অ্যাপল নির্বাহীর থেকে পিছিয়ে আছেন কুক। প্রধান নির্বাহী হিসেবে প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ পদটি দখলে থাকলেও ২০১৫ সালে শীর্ষ নির্বাহীদের মধ্যে সবচেয়ে কম ভাতা পেয়েছেন তিনি।

২০১৫ সালে অ্যাপলের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা লুকা মাইস্ট্রির বার্ষিক ভাতা ৮১ শতাংশ বেড়ে ২ কোটি ৫৩ লাখ ডলার পৌঁছেছে। তবে নির্বাহীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেতন-ভাতা পেয়েছেন খুচরা ও অনলাইন স্টোরের জ্যেষ্ঠ ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যাঞ্জেলা আরেন্ডটস। তার পেছনে প্রতিষ্ঠানটির খরচ হয়েছে ২ কোটি ৫৮ লাখ ডলার।

২০১৫ সালে কুকের মূল বেতন ১৪.৪ শতাংশ বাড়িয়ে ২০ লাখ ডলার করা হয়। সেই সঙ্গে বাড়ানো হয় কুকের ‘নন-ইকুইটি ইনসেনটিভ কমপেনসেশন’। কোনো প্রতিষ্ঠানের প্রত্যাশিতর তুলনায় বাড়তি আয় থেকে কর্মীদের যে ভাতা দেওয়া হয় তাকে প্রাতিষ্ঠানিক ভাষায় নন-ইকুইটি কমপেনসেশন বলা হয়। কুকের ওই ভাতা ১৯ শতাংশ বাড়িয়ে করা হয় ৮০ লাখ ডলার।

কুকের অধীনে অধিকাংশ সময় অ্যাপল ভালো সময় পার করেছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। ২০১৫ সালের শেষ প্রান্তিকে তার আগের বছরের শেষ প্রান্তিকের তুলনায় চীনে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবসা দ্বিগুণ হয়েছে। আর আইফোন বিক্রি পুরনো রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়া তো চলছেই।

২০১৫ সালের শেষ দিকে শেয়ার বাজারে অ্যাপলের শেয়ারের দাম কমেছিল ৪.৬ শতাংশ। ওই বছরের ২৬ সেপ্টেম্বরের হিসাব অনুযায়ী অ্যাপলের ৩১ লাখ শেয়ার টিম কুকের মালিকানাধীন। ওই হিসাবের সঙ্গে সর্বশেষ বুধবারের শেয়ারের দাবি তুলনা করলে শেয়ারবাজার থেকে ৩১ কোটি ডলারের বেশি আয় করতে পারেন তিনি।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর