প্রস্তুত দুই দলের সমাবেশ মঞ্চ
প্রস্তুত দুই দলের সমাবেশ মঞ্চ
২০১৬-০১-০৫ ০৬:৫৯:২৬
প্রিন্টঅ-অ+


দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে রাজধানীতে তিনটি সমাবেশ করবে দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি।

আওয়ামী লীগ রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ ও ধানমন্ডির রাসেল স্কয়ারে এবং বিএনপি নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ের সামনে এই সমাবেশ করবে। এরই মধ্যে এই তিনটি সমাবেশস্থলে মঞ্চ প্রস্তুত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে তিনটি সমাবেশস্থলে দেখা যায়, আওয়ামী লীগ তাদের রাসেল স্কয়ার ও বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে মঞ্চ নির্মাণ শেষ করেছে। বিএনপিও তাদের সমাবেশ মঞ্চ প্রস্তুত করেছে।

প্রায় দুই বছর পর রাজধানীতে উন্মুক্ত পরিবেশে সমাবেশের সুযোগ পেয়ে বিএনপি ৫ জানুয়ারির ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবসের’ কর্মসূচিতে বড় ধরনের জনসমাগম ঘটানোর লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে। সে জন্য মঞ্চের আকৃতিটিও বেশ বড় করে করা হয়েছে। যার আয়তন ৩০/১২ ফুট।

মঞ্চে প্রধান অতিথি হিসেবে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া উপস্থিত থাকবেন। এ ছাড়া দলের শীর্ষ নেতারা তার পাশে থাকবেন।

এর আগে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির দিনে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করার অনুমতি চায় বিএনপি। কিন্তু সেখানে সমাবেশ করার অনুমতি না পেলেও নয়াপল্টনে শর্ত সাপেক্ষে অনুমতি পেয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী নেতা-কর্মীদের সুশৃঙ্খলভাবে সব ধরনের শর্ত মেনে সমাবেশস্থলে আসার আহ্বান জানান।

একই সঙ্গে নেতা-কর্মীদের কোনো ধরনের উসকানির প্রতিক্রিয়া না দেখানোর জন্য আহ্বান জানান তিনি।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটের সামনে আওয়ামী লীগের সমাবেশের জন্য প্রস্তুত মঞ্চ

এদিকে একই দিন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উদযাপন করছে। আর এই উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ ও রাসেল স্কয়ারে সমাবেশ করবে। সোমবার সন্ধ্যায় দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আওয়ামী লীগও বিএনপির পরপরই সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে আবেদন করেছিল। তখন দুই দলের একই স্থানে সমাবেশ করতে চাওয়াকে ঘিরে একপ্রকার সাংঘর্ষিক অবস্থার সৃষ্টির আশঙ্কা তৈরি হয়।

পরে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও ডিএমপি কোনো দলকেই সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে দেয়নি। তবে দুই দুলকেই শর্ত সাপেক্ষে তিনটি স্থানে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়।

আওয়ামী লীগের দুটি সমাবেশস্থলের মঞ্চ তৈরির জন্য সোমবার সন্ধ্যা থেকেই কাজ শুরু হয়। আজকের সমাবেশকে কেন্দ্র করে জনদুর্ভোগ এড়াতে নিজেদের মধ্যে বিভিন্ন পরামর্শ করেন আওয়ামী লীগ নেতারা।

এ ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি দলীয় সাংসদ এবং মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা এবং সংশ্লিষ্ট থানার সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকদের কাজে লাগাবে দলটি।

এদিকে ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে অনুষ্ঠেয় এই তিনটি সমাবেশকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক ময়দান।

অন্যদিকে প্রধান দুই দলের সমাবেশকে কেন্দ্র করে রাজধানীতে ব্যাপক যানজট হওয়ার আশঙ্কা করছেন নগরবাসী।

যদিও উভয় দল কোনো প্রকার অস্থিতিশীল পরিস্থিতি হবে না বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

রাজনীতি এর অারো খবর