২০১৫ সালের সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর কয়েকটি ঘটনা
২০১৫ সালের সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর কয়েকটি ঘটনা
২০১৬-০১-০২ ০৬:০৩:৫৫
প্রিন্টঅ-অ+


হারিয়ে গেল আরো একটি বছর। বিদায় নিল ২০১৫। গত বছরের সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর কয়েকটি ঘটনা তুলে ধরা হলো।

পুলিশ সদরদফতরের সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা ইউএনবির খবরে বলা হয়েছে, পুলিশ ২০১৫ সালে দুই বিদেশি হত্যাসহ ৩০টি চাঞ্চল্যকর ঘটনা রেকর্ড করেছে। এই বছর জঙ্গি সংগঠনগুলোর মুক্তমনা লেখক-প্রকাশক ও ব্লগারদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

২০১৫ সালের জানুয়ারিতে রাজনৈতিক সহিংসতায় বড় চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে বছরটি শুরু হয়। এরপর তিন মাস এই সহিংসতা চলতে থাকে। পুলিশের সদরদফতরের দেয়া তথ্যানুযায়ী, এই সময়ে এক আনসার সদস্যসহ ৮০ জন সাধারণ মানুষ নিহত হয়েছে। আর পেট্রলবোমা হামলায় দগ্ধ হয়েছে ৫৪ জন।

ইতালির এক নাগরিক ও এক জাপানি নাগরিককে হত্যার ঘটনায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। এই দুই হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। বাংলাদেশে বিদেশিদের ওপর এ ধরনের নৃশংস হামলার ঘটনা খুব কমই ঘটেছে। যার কারণে বিভিন্ন দেশ এখানে সতর্কতা জারি করেছে।


ইতালির নাগরিক চেসারে তাভেলা হত্যা
গত ২৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর কূটনীতিকপাড়া গুলশানে নেদারল্যান্ডসভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আইসিসিও কো-অপারেশনের কর্মকর্তা ইতালির নাগরিক চেসারে তাভেলাকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা শাখা তাভেলা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে চারজনকে গ্রেফতার করেছে।


জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও হত্যা
তাভেলা হত্যার কয়েকদিন পর গত ৩ অক্টোবর বেলা ১১টার দিকে রংপুরের কাউনিয়ায় মাহিগঞ্জ আলুটারি এলাকায় অজ্ঞাতপরিচয় দুই বন্দুকধারীর গুলিতে জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও নিহত হন। হোশি কোনিও হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে রংপুর জেলা পুলিশ মাসুদ নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে। মাসুদ নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য বলে দাবি করা হয়েছে।


হোসেনি দালানে হামলা
গত ২৪ অক্টোবর দিবাগত রাতে রাজধানীর পুরান ঢাকার হোসেনি দালানের সামনে মহররম উপলক্ষে তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতির সময় কয়েকটি গ্রেনেড হামলায় এক ব্যক্তি নিহত হন। এ ঘটনায় প্রায় ৮৭ জন আহত হন।


শিয়া মসজিদে হামলা
গত ২৬ নভেম্বর বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার হরিপুর গ্রামে এক শিয়া মসজিদে বন্দুকধারীদের হামলায় মুয়াজ্জিনসহ তিন মু্সল্লি নিহত হয়েছেন।


আহমদিয়া মসজিদে বোমা বিস্ফোরণ
গত ১৫ ডিসেম্বর রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার মজমইল এলাকার আহমদিয়া জামে মসজিদে বোমা বিস্ফোরণে হামলাকারী নিহত হয়েছেন এবং আটজন আহত হয়েছেন।


খিজির খান হত্যা
গত ৫ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় নিজ বাসায় পিডিবির সাবেক চেয়ারম্যান খিজির খানকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে জেএমবির সাত সদস্যকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ।


যাজক লিউক সরকারের ওপর হামলা
গত ৫ অক্টোবর পাবনার ঈশ্বরদি শহরের স্কুলপাড়ায় নিজ বাসায় স্থানীয় ব্যাপটিস্ট মিশনের ফেইথ বাইবেল চার্চের যাজক লিউক সরকারকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায় তিন যুবক। তারা পালিয়ে বেঁচে যায়।


ঢাকা ও আশুলিয়ায় দুই পুলিশ সদস্য হত্যা
গত ২২ অক্টোবর গাবতলীতে দারুসসালাম থানার সহকারী উপপরিদর্শক(এএসআই) ইব্রাহিম মোল্লা দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে নিহত হন। গত ৪ নভেম্বর সকালে আশুলিয়ায় একটি চেকপোস্টে দায়িত্ব পালনের সময় দুর্বৃত্তদের চাপাতির কোপে নিহত হন কনস্টেবল মুকুল।


আশুলিয়ায় ব্যাংকে দুর্ধর্ষ ডাকাতি
গত ২১ এপ্রিল সাভারের আশুলিয়ার কাঠগড়ায় বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকে ডাকাতির ঘটনায় ব্যাংকের ম্যানেজার ও এক ডাকাতসহ আটজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ কয়েকজন জেএমবির সদস্যকে গ্রেফতার করেছে।


অভিজিৎ রায় হত্যা
২০১৫ সালের শুরুতেই ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির সামনে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক অজয় রায়ের ছেলে এবং লেখক ও মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা অভিজিৎ রায়কে। এই হামলার ঘটনায় তাঁর স্ত্রী রাফিদা আফরিন বন্যা গুরুতর আহত হন।


ওয়াশিকুর রহমান বাবু হত্যা
অভিজিৎ হত্যার এক মাস পর ৩০ মার্চ সকালে রাজধানীর তেজগাঁও এলাকার বেগুনবাড়িতে ব্লগার ওয়াশিকুর রহমানকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।


ব্লগার অনন্ত বিজয় দাস হত্যা
অভিজিৎ ও ওয়াশিকুরের মতো ১২ মে সিলেটের সুবিদবাজার এলাকায় খুন হন ব্লগার ও গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী অনন্ত বিজয় দাস। ব্লগার অভিজিৎ রায়ের মুক্তমনা ব্লগে লেখালেখি করতেন তিনি।

ব্লগার অনন্ত বিজয় ও ওয়াশিকুর রহমান বাবুকে হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে। এঁরা সবাই আদালতে এই দুই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।


নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায় হত্যা
গত ৭ আগস্ট রাজধানীর খিলগাঁওয়ের গোড়ানে ভাড়া করা বাসায় ব্লগার ও গণজাগরণ মঞ্চের সক্রিয় কর্মী নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায়কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নীলাদ্রি ফেসবুকে নিলয় নীল নামে তাঁর মতামত প্রকাশ করত।


প্রকাশক দীপন হত্যা
৩১ অক্টোবর দুপুরে রাজধানীর আজিজ সুপার মার্কেটে জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফয়সাল আরেফিন দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। দীপন হত্যার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে দুর্বৃত্তরা লালমাটিয়ায় নিজ কার্যালয়ে কুপিয়ে ও গুলি করে প্রকাশনা সংস্থা শুদ্ধস্বরের মালিক আহমেদুর রশীদ টুটুল, লেখক-ব্লগার রণদীপম বসু ও তারেক রহিমকে আহত করে। এই দুটি প্রকাশনী থেকেই প্রয়াত ব্লগার অভিজিৎ রায়ের বই প্রকাশিত হয়েছিল। আনসুরুল্লাহ বাংলা টিম ব্লগার ও প্রকাশদের হত্যার দায় স্বীকার করেছে।

পুলিশের সদরদপ্তরের রেকর্ড অনুযায়ী, ২০১৫ সালে দেশে ৩ হাজার ৭৫২ জন নিহত হয়েছে। ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে ৩৯৮টি এবং বিভিন্ন থানায় ৮৫৯টি ডাকাতির ঘটনা রেকর্ড হয়েছে। প্রায় ১৯ হাজার ৯৫৩ নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে। গত ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ১১ মাসে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে ৭৫৭টি।

মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের দেয়া তথ্যানুযায়ী, ২০১৫ সালে সীমান্তে ৪২ বাংলাদেশি নাগরিক নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে ৬৪ জন। বছরের প্রথম ১১ মাসে সীমান্তে ৫৯ বাংলাদেশি অপহৃত হয়েছে। এর পাশাপাশি গত ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত ১১ মাসে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ১৭১ জন নিহত হয়েছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

আইন ও অধিকার এর অারো খবর