সংবাদ সম্মেলনে বাসসকপ-এর ৭ দফা দাবি ঘোষণা
সংবাদ সম্মেলনে বাসসকপ-এর ৭ দফা দাবি ঘোষণা
সংগীতা ঘোষ
২০১৫-১২-২৩ ০৯:৫৫:২৮
প্রিন্টঅ-অ+


৮ম পে স্কেলে ক্যাডার নন ক্যাডার বৈষম্য দূরীকরণের লক্ষ্যে নয় দফা দাবি আদায়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ সম্মিলিত সরকারি কর্মকর্তা পরিষদ (বাসসকপ)। ২৩ ডিসেম্বর বুধবার সকাল ১১ টায় বাংলাদেশ জাতীয় প্রেসক্লাবের সম্মেলন কক্ষে এ সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বাসসকপের সভাপতি শফিউল আজম বলেন, একই যোগ্যতা এবং পিএসসির মাধ্যমে সকল কর্মকর্তা চাকরীতে প্রবেশ করেও শুধুমাত্র ননক্যাডার হওয়ার অপরাধে তারা চাকরীতে চরম বৈষম্যের শিকার। ৩০-৩২ বছর একই পদে চাকরি করে কোন পদোন্নতি পান না কিংবা বেতন স্কেলেরও কোন পরিবর্তন হয় না। ঘোষিত পে-স্কেলে এর কোন সমাধান না করে উল্টো একই বেতন ধাপে অবসরে যেতে বাধ্য হবে-এটা অত্যন্ত অমানবিক এবং অমর্যাদাকর বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সংগঠনের মহাসচিব জিন্নাত আলী বিশ্বাস বলেন, পূর্ব হতে চলে আসা বেতন ও সার্ভিস বৈষম্য ৮ম পে-স্কেলের মাধ্যমে ক্যাডার-ননক্যাডার কর্মকর্তাদের মধ্যে আরও সুস্পষ্ট এবং প্রকট করা হয়েছে। ফলে এ সংগঠনের অধীন প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ কর্মকর্তা চরম হতাশায় নিমজ্জিত।

এরপর তিনি সংগঠনের পক্ষে মৌলিক ৭টি দাবি আগামী ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে সুরাহা করার নিমিত্তে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা তুলে ধরেন।

১- ক্যাডার-নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের জন্য চাকরীর প্রারম্ভিক বেতন অভিন্ন ৮ম গ্রেড করতে হবে।
২- নির্ধারিত সময়ান্তে ক্যাডার কর্মকর্তাদের মত নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের পদোন্নতি নিশ্চিত করতে হবে।
৩- ১ম শ্রেণীর চাকরীর ৪ বছর পূর্তিতে ৭ম গ্রেড, ৫ বছর পূর্তিতে সিনিয়র স্কেল/ষষ্ঠ গ্রেড, ১০ বছর পূর্তিতে উচ্চতর স্কেল/৫ম গ্রেড প্রদান এবং ১৫ বছর পূর্তিতে চতুর্থ গ্রেড প্রদান সহ সমগ্র চাকরি জীবনে কমপক্ষে ৪ টি বেতনধাপ পরিবর্তনের সুযোগ রাখতে হবে; এবং ২য় শ্রেণীর কর্মকর্তাদের ৭ম বেতন কাঠামোর ন্যায় তিনটি টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বহাল রাখা সহ সমগ্র চাকরী জীবনে ৪ টি বেতন ধাপ পরিবর্তনের সুযোগ রাখতে হবে এবং সকল ২য় শ্রেণীর কর্মকর্তাদের জন্য অভিন্ন ১০ম গ্রেড প্রদান করতে হবে।
৪-ক্যাডার কর্মকর্তাদের ন্যায় স্ব স্ব অধিদপ্তর, পরিদফতর ও দফতরের নিয়োগ বিধি মোতাবেক নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের পদোন্নতি নিশ্চিত করা, পদোন্নতি প্রদান সম্ভব না হলে নির্ধারিত সময়ান্তে পরবর্তী উচ্চতর গ্রেড পরিবর্তনের সুযোগ রাখা অর্থাৎ প্রস্তাব ৩ নিশ্চিত করতে হবে।
৫- ট্রেজারি রুলসের বিধি ১৩ এর ব্যাত্যয় ঘটিয়ে উপজেলা পর্যায়ে ১৬ টি বিভাগকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অধীনে ন্যাস্ত করার সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে।
৬- ক্যাডার-ননক্যাডার ১ম শ্রেণীর কর্মকর্তাগণের সমন্বয়ে কাজের ধরণ অনুযায়ী গুচ্ছ সার্ভিস সৃষ্টির মাধ্যমে ক্যাডার-নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের মধ্যে বিরাজমান বৈষম্যদূরীকরণে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করতে হবে।
৭- ফিডার পদ ও পদোন্নতিযোগ্য পদের অনুপাত ন্যুনতম ৩:১ করার ব্যাবস্থা গ্রহন সহ পে কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী গৃহ নির্মাণ লোন ১ লাখ ২০ হাজার টাকার পরিবর্তে ৪০ থেকে ৫০ লাখ টাকা করতে হবে।

বাসসকপের সভাপতি শফিউল আজমের সভাপতিত্বে এ সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রকৌশলী মামুনুর রশিদ (এলজিইডি), আবুল কালাম আজাদ (যুব উন্নয়ন), শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন(এলজিইডি) প্রমুখ।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিবিধ এর অারো খবর