২০১৭: তারকাদের বিয়ে ও বিচ্ছেদ
২০১৭: তারকাদের বিয়ে ও বিচ্ছেদ
২০১৭-১২-২৯ ১৮:৩৩:৫১
প্রিন্টঅ-অ+


চলে যাচ্ছে ২০১৭, রয়ে গেল কিছু ঘটনা। বছরটি একেক জনের জীবনে একেক রঙে ধরা দিয়েছে। কেউ পছন্দের মানুষের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে সংসার করছেন। কারো সংসারে বেজেছে বিচ্ছেদের সুর। বছরজুড়ে শোবিজের আলোচিত বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়েই এ আয়োজন।

বিয়ের খাতা খুললেন এলভিন
বছরের ‍শুরুর দিকে ২৬ মার্চ বিয়ে করেন লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার খ্যাত অভিনেত্রী তাসনুভা এলভিন। স্বামী ফাহাদ পেশায় একজন মার্চেন্ডাইজার। কর্মরত আছেন একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিতে।
২০১০ সালে লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় সেরা ১৫-তে ছিলেন তিনি। বৈশাখী টিভির রিয়েলিটি শো ‘অন্য আলোর গান’-এর উপস্থাপনা দিয়ে মিডিয়ায় যাত্রা শুরু করেন।

হৃদয়ের তৃতীয় ইনিংস
২০১০ সালে পূর্ণিমা আক্তার নামে এক তরুণীর সঙ্গে ঘর বেঁধেছিলেন হৃদয় খান। কিন্তু বেশিদিন টেকেনি সে সংসার। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে মডেল সুজানা জাফরের সঙ্গে সংসার পেতেছিলেন। সে সংসারও ভেঙে গেছে।
তৃতীয় ইনিংস শুরু করেন ১০ সেপ্টেম্বর। উইকেটের অপরপ্রান্তে আছেন তার দীর্ঘদিনের বান্ধবী হুমায়রা।

বিয়ের খবরটি শুরুতে আনুষ্ঠানিকভাবে না জানালেও তাদের বিয়ের ছবিটি ফেইসবুকে ভাইরাল হয়। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ত্রীর সঙ্গে একটি ছবি ফেইসবুক পেইজে পোস্ট করে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ের খবর দেন তিনি।

পূর্ণতা পেল আঠারো বছরের বন্ধুত্ব
চলতি বছরের ৩ নভেম্বর দীর্ঘ আঠারো বছরের বন্ধুত্বকে বৈবাহিক সম্পর্কে রূপ দেন অভিনেত্রী শামীমা তুষ্টি-সাজ্জাদুল ইসলাম ফামি। আঠারো বছরের জানাশোনা হলেও তুষ্টি জানতেন না ফামি ডুবে ডুবে জল খাচ্ছেন। যখন জানলেন তখন আর ডুবতে দিলেন না। গাটছড়া বাঁধলেন তার সঙ্গেই।
তুষ্টি গ্লিটজকে বলেন, “আঠারো বছর ধরেই আমরা একে অপরকে জানি। একটা অনুষ্ঠানে গিয়ে প্রথম ওর সঙ্গে পরিচয় হয়, তারপর বন্ধুত্ব। এভাবেই চলে আসছিলো। ও যে আমাকে ভেতরে ভেতরে পছন্দ করতো অনেক পরে জেনেছি। অবশেষে বিয়ের সিদ্ধান্তটা নিয়ে ফেলি।”

সাজ্জাদুল ইসলাম ফামি পেশাগত জীবনে আন্তর্জাতিক কুরিয়ার সার্ভিস ইউপিএস-এর বিপণন বিভাগের প্রধান হিসেবে কর্মরত ।

প্রেমিককে বিয়ে করলেন আমব্রিন
বিপিএল উপস্থাপনা দিয়ে আলোচনায় আসা লাক্স তারকা আমব্রিন ৪ নভেম্বর কানাডা প্রবাসী তৌসিফ আহসান চৌধুরীকে বিয়ে করেন। পেশায় কানাডার একটি প্রতিষ্ঠানের প্রোপার্টি ম্যানেজমেন্ট ম্যানেজার তৌসিফ। তিনি পরিবারের সঙ্গে সেখানেই বসবাস করেন। বর্তমানে স্বামীর সঙ্গে কানাডাতেই আছেন আমব্রিন।
গ্লিটজকে আমব্রিন বলেন, “ছয় মাস আগে বাংলাদেশে থাকাকালীন তৌসিফের সঙ্গে পরিচয় হয়, এরপর ফেইসবুকে ও মুঠোফোনে নিয়মিত যোগাযোগ হতো। সেখান থেকেই প্রেম। তারই পরিণতি এই বিয়ে। পারিবারিকভাবেই বিয়ে হয়েছে আমাদের।”

২০০৭ সালে লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মিডিয়ায় পা রাখেন আমব্রিন। অভিনয়ের পাশাপাশি মডেলিং ও উপস্থাপনায় জনপ্রিয়তা অর্জন করেন তিনি।

দুই র‌্যাম্প মডেলের সংসার

১ ডিসেম্বর থেকে র‌্যাম্প মডেলিংয়ের দুই পরিচিতমুখ শাবনাজ সাদিয়া ইমি ও রিফাত আব্দুল্লাহ আজমী সংসার শুরু করেন।

ইমি গ্লিটজকে বলেন,“চট্টগ্রামে ওর মতো প্রতিষ্ঠিত মডেল আছে আগে জানা ছিল না। সেখানেই প্রথম পরিচয়, জানোশোনা। পরে ভাবলাম, প্রেম করলে কম হয়ে যাবে, বিয়ে করে ফেলি!”

বাবার বন্ধুর মেয়ের সঙ্গে কল্যাণের সংসার
২৭ ডিসেম্বর বাবার বন্ধুর মেয়ে গ্রেইস ভায়োলেট ডি’কস্তাকে বিয়ে করেন অভিনয়শিল্পী কল্যাণ কোরাইয়া। তেজগাঁওয়ের হলি রোজারি চার্চে বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস গোমেজের তত্ত্বাবধানে তাদের বিয়ে হয়। ছোটবেলায় একসঙ্গেই মনিপুরী পাড়ায় বেড়ে উঠেন তারা।
গ্রেইস হলিক্রস স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। গত তিনবছর ধরে আমেরিকায় থাকছেন। সেখানকার এক বিশ্ববিদ্যালয়ে গ্র্যাজুয়েশন করছেন। আপাতত মাস তিনেকের জন্য দেশে ফিরেছেন তিনি। এরপর আমেরিকায় ফিরে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে পাকাপাকিভাবে ফিরবেন দেশে।

র‌্যাম্প মডেলিংয়ের মধ্য দিয়ে মিডিয়ায় যাত্রা শুরু করে পরে ছোটপর্দায় থিতু হন এ অভিনেতা। বড়পর্দায় অভিনয় করেছেন বেশ ক’টি চলচ্চিত্রে। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো- ‘পিতা’, ‘প্রার্থনা’, ‘মুখোশ মানুষ’।

বিচ্ছেদ
গৃহিনী হয়ে থাকেননি, তাই অপুকে তালাক!
১০ এপ্রিল একটি টিভি চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠান শাকিবের সঙ্গে নিজের গোপন বিয়ের কথা জানান অপু বিশ্বাস। তার ৭ মাসের ব্যবধানেই ভাঙনের মুখে পড়েছে দু’জনের সম্পর্ক। আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলাম সিরাজের মাধ্যমে ২২ নভেম্বর অপুর বাসার ঠিকানায় তালাকনামা পাঠিয়েছেন শাকিব খান।

তালাকের কারণ হিসেবে আইনজীবী সাংবাদিকদের বলেন, “বিয়ের সময় ধর্মান্তরিত হয়ে অপু বিশ্বাস শাকিব খানকে বিয়ে করেছিলেন। কথা ছিল তিনি মুসলিম রীতিনীতি মেনে চলবেন ও গৃহিনী হয়ে থাকবেন। কিন্তু অপু বিশ্বাস সে কথা রাখেননি।”

তালাকনামায় শাকিব অভিযোগ তোলেন, পুত্রসন্তান জয়কে বাড়িতে গৃহকর্মীর সঙ্গে তালাবন্ধ রেখে ‘ছেলেবন্ধুকে নিয়ে’ দেশের বাইরে যান অপু।

আইনজীবী বলেন, “এসব ঘটনার কারণেই শাকিব খান অপুকে তালাক দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।”

গত ২২ নভেম্বর অপু বিশ্বাসের ঢাকার বাসা ও বগুড়ার ঠিকানায় রেজিস্ট্রি করা হলফনামা আকারে তালাকনামা পাঠানো হয়।

আটবছরের এ সংসারের ভবিষ্যত কী তাহলে?

আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম বলেন, “নিয়ম হলো ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সালিশি পরিষদ দু’জনকে ডেকে নিয়ে বসবে যেন সংসারটি ভেঙে না যায়।

যদি শাকিব খান তারপরও মনে করেন এটাই তার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত, তবে ৯০ দিন পর তালাকনামা স্বয়ংক্রিয়ভাবে কার্যকর হয়ে যাবে।”

তবে বিডিনিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অপু বিশ্বাস বলেছেন, “এই ডিভোর্স মানি না।”

একযোগে ফেইসবুকে বিচ্ছেদের ঘোষণা
৬ বছরের সম্পর্কের ইতি ঘোষণা করে ৪ অক্টোবর ভেরিফায়েড ফেইসবুক পেইজে এক যৌথ বার্তা প্রকাশ করেন তাহসান।
বার্তায় তাহসান ও মিথিলা বলেন, “বেশ কয়েকমাস ধরে নিজেদের মধ্যকার দ্বন্দ্ব বা মতবিরোধ নিরসনের চেষ্টার পর আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সামাজিক চাপে একটা সম্পর্ক ধরে রাখার চেয়ে আমাদের আলাদা হয়ে যাওয়াই মঙ্গলজনক।”

দু’বছর প্রেম করে ২০০৬ সালের ৩ অগাস্ট বিয়ে করেন তাহসান-মিথিলা। ২০১৩ সালে এ দম্পতির ঘরে জন্ম নেয় একমাত্র কন্যা সন্তান আইরা তাহরিম খান। তাহসান ও মিথিলা দুজনেই শিক্ষকতার পাশাপাশি সংগীত, অভিনয় ও মডেলিংয়ে সমান জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।

দ্বিতীয় ঘরও ভাঙল হাবিবের
১৯ জানুয়ারি দ্বিতীয় স্ত্রী রেহানের সঙ্গে পাঁচবছরের সম্পর্কের ইতি টানেন হাবিব ওয়াহিদ। সংসার ভাঙার পেছনে হাবিবের কথিক প্রেমিকা মডেল তানজিন তিশার দিকে অভিযোগ তোলেন হাবিবের স্ত্রী রেহান। তবে সম্প্রতি হাবিবের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছেন তিশা।
এর আগে ২০০৩ সালে প্রথম বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন হাবিব। কিন্তু অল্প কিছুদিন না যেতেই মনোমালিন্যের জের ধরে ভাঙে তাদের সংসার।

বিরতির পর ২০১১ সালের ১২ অক্টোবর চট্টগ্রামের মেয়ে রেহানের সঙ্গে নতুন সম্পর্কে আবদ্ধ হন হাবিব।

ভাঙল সংসারের বাঁধন

২০১০ সালে মাশরুর সিদ্দিকী সনেটকে বিয়ে করেছিলেন লাক্স তারকা বাঁধন। কিন্তু চার বছর সংসার করার পর ২০১৪ সালের ২৬ নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদ হয় তাদের।

দুই বছরের মাথায় স্পর্শিয়া-রাফসানের বিচ্ছেদ
২৬ অগাস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে তালাকনামায় স্বাক্ষর করেন তারা। একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে দু’জনের পরিচয় হয়েছিল। পরিচয়পর্বটি বন্ধুত্ব থেকে প্রেমেও গড়িয়েছিল বলে গুজব আছে। যদিও প্রেমের বিষয়টি বরাবরই অস্বীকার করে এসেছিলেন স্পর্শিয়া।
দাবি করেছিলেন, পারিবারিকভাবেই দু’জনের বিয়ে হয়। ২০১৫ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর তাদের বাগদান ও বিয়ে হয় ১ অক্টোবর।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিনোদন এর অারো খবর