২০১৮ হবে টেলিকমে প্রত্যাশা পূরণের বছর
২০১৮ হবে টেলিকমে প্রত্যাশা পূরণের বছর
২০১৭-১২-২৯ ১৮:২৭:৩৬
প্রিন্টঅ-অ+


নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর বদলের (এমএনপি) সেবার লাইসেন্স দিতে পারলেও উৎক্ষেপণ সূচির জটে পড়ায় ২০১৭ সালে মহাকাশে যেতে পারছে না বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’।

অন্যদিকে ফোরজি এবং তরঙ্গ নিলামের নীতিমালা নিয়ে টানাপড়েনের মধ্য দিয়ে ব্যস্ত বছর পার করেছে বাংলাদেশের টেলিকম খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি।

নির্ধারিত সময়ের প্রায় এক বছর পর পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় চালু হয়েছে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল ল্যান্ডিং স্টেশন। দেশে তৈরি প্রথম স্মার্টফোন কারখানার যাত্রা শুরুর পাশাপাশি উৎপাদনও শুরু হয়েছে এবছরই।

২০১৭ হাতে নেওয়া বেশ কয়েকটি উদ্যোগ নতুন বছরে আলোর মুখ দেখবে জানিয়ে ২০১৮ সালকে ‘প্রত্যাশা পূরণের বছর’ হিসেবে দেখছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এবং বিটিআরসি।

টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, “ফোরজি, স্যাটেলাইট, এমএনপি নিয়ে যে উদ্যেগগুলো নেওয়া হয়েছিল, এসব সেবা সাধারণের কাছে পৌঁছাবে আগামী বছরের শুরুতেই।”

আগামী বছরে কয়েকটি ক্ষেত্রে গ্রাহকরা ভালো সেবা পাবেন বলে আশা করছেন বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ।

তিনি বলেন, “২০১৭ সালে বিভিন্ন রকম নতুন সেবা দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। আগামী বছর ফোরজি, স্যাটেলাইট, এমএনপি সেবা গ্রাহক পর্যায়ে চলে যাবে।”

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট

চলতি বছরের ডিসেম্বরে ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’ উৎক্ষেপণের কথা থাকলেও উৎক্ষেপণ সূচিতে জটিলতায় পড়ে আগামী বছরের মার্চে সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি মহাকাশ অনুসন্ধান ও প্রযুক্তি কোম্পানি ‘স্পেসএক্স’ এর ফ্যালকন-৯ রকেটের মাধ্যমে এ বছর ১৬ ডিসেম্বর ফ্লোরিডার কেইপ কেনাভেরালের লঞ্চ প্যাড থেকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি চলছিল।

কিন্তু হারিকেন আরমায় ফ্লোরিডায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় ওই লঞ্চ প্যাড থেকে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ বন্ধ থাকে। পিছিয়ে যায় বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের দিনক্ষণ।

দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল

নির্ধারিত সময়ের প্রায় এক বছর পর গত সেপ্টেম্বরে পটুয়াখালীতে দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল ল্যান্ডিং স্টেশন চালু হওয়ায় সাউথইস্ট এশিয়া-মিডলইস্ট-ওয়েস্টার্ন ইউরোপ (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৫) আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামের সাবমেরিন কেবল থেকে সেকেন্ডে ১ হাজার ৫০০ গিগাবিট (জিবি) গতির ইন্টারনেট পাবে বাংলাদেশ।

এতে করে বাংলাদেশের টেলিকম কোম্পানিগুলোকে আর বিদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কিনতে হবে না বলে সরকার আশা করছে।

আলোচনায় ফোরজি

টেলিযোগাযোগে খাতে বছরের অন্যতম আলোচিত বিষয় ছিল ফোরজি ও তরঙ্গ নিলাম নীতিমালা নিয়ে অপারেটর ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার মধ্যে টানাপড়েন। এ টানাপড়েনে এ বছরও ফোরজি সেবা গ্রাহকের কাছে পৌঁছেনি।

সরকারের পক্ষ থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে ফোরজি সেবা শুরু করার ঘোষণা বছরের শুরু থেকে থাকলেও বছর শেষে তরঙ্গ নিলামের জন্য ১৩ ফেব্রুয়ারি দিন ঠিক করে আগামী ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ফোরজি সেবার লাইসেন্সের আবেদন জমা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিটিআরসি।

ফোরজির বিষয়ে অপারেটররা যে ২৩টি বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন সেগুলোর বেশিরভাগই পূরণ করা হয়েছে বলে ডাক ও টেলিযোগাযাগ বিভাগ দাবি করলেও তাতে প্রত্যাশার প্রতিফলন দেখছেন না অপারেটররা।

নীতিমালা ও নিলামের সময় ঠিক হওয়ার পরও এ বিষয়ে টেলিযোগযোগ বিভাগে চিঠি দিয়েছে অপারেটররা। আর টেলিযোগাযোগ বিভাগ বলছে, এ বিষয়ে আলোচনা অব্যাহত থাকলেও নির্ধারিত সময়েই নিলাম ও ফোরজি লাইসেন্স দেওয়া হবে।

এই টানাপড়েনে দৃশ্যত ফোরজি তরঙ্গ নিলাম এবং ফোরজি সেবা দিতে অপারেটরদের বিদ্যমান প্রযুক্তি রূপান্তর বাবদ সরকার ১১ হাজার কোটি টাকা আয়ের পরিকল্পনা থেকে পিছিয়ে পড়েছে।

এমএনপি

দীর্ঘদিন ধরে ঝুলে থাকা এমএনপি সেবায় বছর শেষে লাইসেন্স হাতে পায় বাংলাদেশ ও স্লোভেনিয়ার কনসোর্টিয়াম ইনফোজিলিয়ন বিডি-টেলিটেক। যদিও এ প্রতিষ্ঠান বলছে আগামী বছরের মার্চ বা এপ্রিলের আগে তারা এ সেবা দিতে পারবে না।

এ সেবা চালু হওয়ার পর গ্রাহকরা ৩০ টাকা ফি দিয়ে নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর পরিবর্তনের আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তার অপারেটর বদলে যাবে। পুনরায় অপারেটর পরিবর্তন করতে হলে তাকে ৯০ দিন অপেক্ষা করতে হবে।

দুই টাকায় অ্যাকাউন্ট

ডাক বিভাগে গতি আনতে এ বছর মাত্র দুই টাকায় অ্যাকাউন্ট খোলার সুবিধা নিয়ে ‘ডাক টাকা’ নামে নতুন একটি সেবা চালু করে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ।

ব্যাংকিং সেবার বাইরে থাকা দেশের প্রায় তিন কোটি মানুষকে আগামী এক বছরে এ সেবার আওতায় নিয়ে আসাই ডাক বিভাগের লক্ষ্য।

‘ডাক টাকা’ ব্যবহারকারীরা অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও লেনদেন করতে পারবেন। এর বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হবে আগামী তিন মাসের মধ্যে।

দেশে স্মার্টফোন কারখানা

এ বছরই দেশে যাত্রা শুরু করে প্রথম স্মার্টফোন কারখানা। বছরে ২৫ থেকে ৩০ লাখ ইউনিট হ্যান্ডসেট উৎপাদনের লক্ষ্য নিয়ে বছরের শেষে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশি কোম্পানি ওয়ালটনের স্মার্টফোন কারখানা। বাংলাদেশে তৈরি প্রথম স্মার্টফোন ওয়ালটন ‘প্রিমো ই৮আই’ ইতোমধ্যে বাজারজাত করা হয়েছে।

ওয়ালটনের পর বাংলাদেশে হ্যান্ডসেট উৎপাদনে আসছে আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠান, যার মধ্যে বহুজাতিক কোম্পানিও রয়েছে।

মোবাইল ব্র্যান্ড ‘সিম্ফনি’ এবং ‘উই ইতোমধ্যে বাংলাদেশ কারখানা নির্মাণের কাজ এগিয়ে নিয়েছে। এছাড়া বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড স্যামসাং বিটিআরসিকে বাংলাদেশে হ্যান্ডসেট কারখানা স্থাপনে আগ্রহের কথা জানিয়েছে।

টেলিটককে ৭০০ কোটি টাকা

একনেকের অনুমোদনের পর রাষ্ট্রীয় টেলিকম অপারেটর টেলিটকের দুটি প্রকল্পে বছর শেষে অর্থ ছাড় দেয় অর্থ মন্ত্রণালয়। প্রায় ৭০০ কোটি টাকায় প্রতিষ্ঠানটির নেটওয়ার্ক উন্নয়নের মাধ্যমে গ্রাহক সেবার মান বাড়বে বলে আশা করছে অপারেটরটি।

বিটিআরসির স্বায়ত্তশাসন

সংস্থার কাজে স্থবিরতার জন্য মন্ত্রণালয়কে দায়ী করে বিটিআরসিকে স্বাধীন কমিশনে রূপান্তরের পক্ষে এর চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদের বক্তব্যও ছিল এ খাতের আলোচিত বিষয়।

বিটিআরসির স্থবিরতার জন্য বিভিন্ন কাজে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অনুমোদন পেতে বিলম্ব হওয়াকে কারণ দেখান তিনি।

২০১০ সালে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ আইন সংশোধনের পর টেলিযোগাযোগ সম্পর্কিত ক্ষমতা বিটিআরসি থেকে মন্ত্রণালয়ের কাছে চলে যায়। এরপর থেকে বিভিন্ন ধরনের লাইসেন্স ইস্যুসহ অন্যান্য বিষয়ে বিটিআরসি ও মন্ত্রণালয়ের মধ্যে টানাপড়েন চলছে।

বিটিআরসি চেয়ারম্যানের ভাষ্য, “স্বাধীন কমিশন একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। কতগুলো ক্ষেত্রে সরকার কমিশন গঠন করে এবং তাতে ওই খাত আরও ভালোভাবে চলতে পারে।”
(শামীম আহমেদ,জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিশেষ প্রতিবেদন এর অারো খবর