আবাসিক ও ভিআইপি এলাকায় রাত ১০টার পর হর্ন বাজানো নিষিদ্ধ
আবাসিক ও ভিআইপি এলাকায় রাত ১০টার পর হর্ন বাজানো নিষিদ্ধ
২০১৭-১২-১৫ ০৩:১০:৪৭
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানীর আবাসিক ও ভিআইপি এলাকায় রাত ১০টার পর হর্ন বাজানো যাবে না, গাড়ির গতি ২০ কিলোমিটারের মধ্যে রাখতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আদেশে এটিসহ চার দফা নির্দেশনা দেন।

নির্দেশনায় ছোট ছোট কারখানায় হাইড্রোলিক হর্ন তৈরি ও তা সস্তায় বিক্রি বন্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও হাসপাতালের সামনে দিয়ে চলার সময় হর্ন বাজানো যাবে না। যানবাহনে উচ্চ শব্দের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে রাজধানীর কাকরাইল থেকে মগবাজার হয়ে ময়মনসিংহের দিকে যাওয়ার সড়ক এবং শাহবাগ থেকে সায়েন্স ল্যাবরেটরি হয়ে গাবতলী সড়কে সার্ভিলেন্স টিম গঠন করে তদারক করতে বলা হয়েছে। নির্দেশ বাস্তবায়নে স্বরাষ্ট্রসচিব ও পুলিশের মহাপরিদর্শককে সার্কুলার জারি করতে বলা হয়েছে। আগামী ২ ফেব্রুয়ারি আদেশের জন্য পরবর্তী দিন রাখা হয়েছে।

এর আগে এক সম্পূরক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৫ নভেম্বর হাইকোর্ট সারা দেশের যানবাহনে হাইড্রোলিক হর্ন ও উচ্চ শব্দযুক্ত হর্ন ব্যবহার বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেন। সেই সঙ্গে পরিবেশ বিধিমালা ও শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণ বিধিমালায় নির্ধারিত মাত্রার চেয়ে উচ্চমাত্রার শব্দ নিয়ন্ত্রণে রাজধানীর ধানমন্ডি, গুলশান, বারিধারা, বনানী, অফিসার্স ক্লাব এলাকাসহ সারা দেশে প্রয়োজনীয় সংখ্যক পর্যবেক্ষক টিম গঠন করতে বলে ১৩ ডিসেম্বর আদেশের জন্য দিন রাখা হয়। গতকাল বিষয়টি আদেশের জন্য ওঠে।
আদালতে আবেদনকারীপক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

পরে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, যানবাহনে উচ্চ শব্দের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে হাইকোর্ট ওই চার দফা নির্দেশনা দিয়ে আদেশ দিয়েছেন। উচ্চ শব্দের হর্ন বাজানো, এর উৎপাদন বন্ধ এবং যানের গতি নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যাঁরা মাঠপর্যায়ে কাজ করছেন, তাঁদের জন্য ওই চার দফাসংবলিত একটি সার্কুলার জারি করতে হাইকোর্ট স্বরাষ্ট্রসচিব ও আইজিপিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

রাজধানীতে গাড়িতে হাইড্রোলিক হর্নের মতো উচ্চ শব্দযুক্ত হর্ন ব্যবহার বন্ধে নির্দেশনা চেয়ে গত আগস্টে রিট করে মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি)। প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ২৩ আগস্ট হাইকোর্ট রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। ঢাকায় গাড়িতে হাইড্রোলিক হর্ন ও উচ্চ শব্দযুক্ত হর্ন ব্যবহার বন্ধে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে হাইড্রোলিক হর্ন আমদানি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে; বাজারে থাকা সব হাইড্রোলিক হর্ন সাত দিনের মধ্যে জব্দ করতে এবং ২৭ আগস্টের পরে ঢাকার রাস্তায় কোনো গাড়ি উচ্চ শব্দযুক্ত ওই হাইড্রলিক হর্ন ব্যবহার করলে গাড়ি জব্দ করতেও বলা হয়। নির্দেশনা বাস্তবায়নের অগ্রগতি জানিয়ে বিবাদীদের প্রতিবেদন দিতেও বলা হয়। বিবাদীরা আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন। তথ্য পর্যালোচনায় দেখা যায়, আদেশের পর হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহারের কারণে ঢাকায় ৭ হাজার ৬৬৫টি গাড়ির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

এর ধারাবাহিকতায় শুনানি নিয়ে গত ৮ অক্টোবর হাইকোর্ট অপর এক আদেশে যানবাহনের চালক-মালিক ও কোনো ব্যক্তির কাছে হাইড্রোলিক হর্ন থাকলে তা ১৫ দিনের মধ্যে নিকটস্থ থানায় জমা দিতে নির্দেশ দেন। এরপর সারা দেশের যানবাহনে হাইড্রোলিক হর্ন ও উচ্চ শব্দযুক্ত হর্ন ব্যবহার বন্ধে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে এইচআরপিবি সম্পূরক আবেদনটি করে। এর ওপর ৫ নভেম্বর আদেশ হয়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিবিধ এর অারো খবর