পদ্মা সেতু : তদন্ত কমিশন সদস্যের নাম প্রস্তাব হাইকোর্টে
পদ্মা সেতু : তদন্ত কমিশন সদস্যের নাম প্রস্তাব হাইকোর্টে
২০১৭-১১-১০ ০১:১১:৫৭
প্রিন্টঅ-অ+


পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশনের সদস্য হিসেবে একজনের নামের প্রস্তাব হাইকোর্টে পেশ করেছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়। পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের উপ প্রকল্প পরিচালক মো: কামরুজ্জামানের নাম কমিশনের সদস্য হিসেবে প্রস্তাব করা হয়েছে।

সেতু মন্ত্রণালয়ের এই নামের মনোনয়ন দিয়ে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগে পাঠানো চিঠির কপি বুধবার বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চে দাখিল করা হয়। ওই কোর্টের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল টাইটাস হিল্লোল রেমা সেটি দাখিল করেন।

সেতু মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মাহমুদ ইবনে কাসেম স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনার আলোকে তদন্ত কমিশন গঠিত হলে উক্ত কমিশনের সদস্য হিসেবে পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের উপ প্রকল্প পরিচালক (কারিগরি) মো: কামরুজ্জামানকে নির্দেশক্রমে মনোনয়ন প্রদান করা হলো।

পরে আদালত পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন গঠনের অগ্রগতি সম্পর্কিত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২৬ নভেম্বর দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ২ আগস্ট আদালত এই তদন্ত কমিশন গঠন না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আদালত বলেন, ‘সেই ফেব্রুয়ারি মাসে অর্ডার হয়ে গেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত আপনাদের চিঠি চালাচালি শেষ হয় নাই।’

গত ২০ মার্চ পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে কমিটি বা কমিশন গঠনের অগ্রগতি প্রতিবেদন ৭ মে’র মধ্যে দাখিল করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

গত ১৫ ফেব্রুয়ারি পদ্মা সেতু নির্মাণ চুক্তি এবং দুর্নীতির মিথ্যা গল্প সৃষ্টির নেপথ্যে প্রকৃত ষড়যন্ত্রকারীদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিশন গঠন করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না এবং দোষীদের কেন বিচারের মুখোমুখি করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

দুই সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রি পরিষদ, স্বরাষ্ট্র, আইন ও যোগাযোগ সচিব এবং দুদকের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী এ কমিটি বা কমিশন গঠনের বিষয়ে কি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে ৩০ দিনের মধ্যে তার প্রতিবেদন দিতে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিভিন্ন পত্রিকার সংবাদের কথা নজরে নিয়ে হাইকোর্ট এ আদেশ দেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

আইন ও অধিকার এর অারো খবর