ক্যাডার বৈষম্য সৃষ্টির প্রতিবাদে প্রকৃচি-বিসিএস-এর সমাবেশ আজ
ক্যাডার বৈষম্য সৃষ্টির প্রতিবাদে প্রকৃচি-বিসিএস-এর সমাবেশ আজ
২০১৫-১২-১৮ ১৯:৪০:১০
প্রিন্টঅ-অ+


অষ্টম পে-স্কেলের গেজেট পর্যালোচনায় ক্যাডার কর্মকর্তাদের অষ্টম গ্রেড এবং নন-ক্যাডারদের নবম গ্রেড নির্ধারণ করার মাধ্যমে বৈষম্য সৃষ্টি করার প্রতিবাদে সমাবেশের ডাক দিয়েছে প্রকৃচি ও বিসিএস সমন্বয় পরিষদ। আজ ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট বাংলাদেশের ঢাকা কেন্দ্রে সকাল ১১ টায় এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে ।

শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত সার্ভিস এন্ড ওয়েলফেয়ার কমিটির এক জরুরি সভায় এ ব্যাপারে গভীর ক্ষোভ ও তীব্র নিন্দা জানিয়ে ক্যাডার, নন-ক্যাডার বৈষম্য দূরীকরণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন প্রকৃচি-বিসিএস নেতৃবৃন্দ।

এস এন্ড ডব্লিউ কমিটির-র সভার সভাপতি প্রকৃচি-বিসিএস সমন্বয় স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য প্রকৌশলী কবির আহমেদ ভুঁইঞা বলেন, দীর্ঘদিন যাবত আমরা বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন করে আসছি। আমাদের দাবিগুলো পূরণ না করে বরং আরেকটা দাবি বাড়িয়ে দেয়া হল। তিনি বলেন, অষ্টম জাতীয় পে-স্কেলে অষ্টম ও নবম গ্রেড সৃষ্টি করে ক্যাডার ও নন-ক্যাডারে বৈষম্য হ্রাসের পরিবর্তে তা আরও বৃদ্ধি করা হয়েছে।

আইইবি-র সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মোঃ আব্দুস সবুর বলেন, বিভিন্ন সময় সরকারের নীতিনির্ধারকরা এসব দাবি মেনে নেওয়ার কথা বললেও বাস্তবে তার কোনো প্রতিফলন নেই। তিনি বলেন, আমরা অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও অর্থসচিব মাহবুব হোসেনের সঙ্গে একাধিকবার সাক্ষাৎ করেছি। বিভিন্ন সময় অর্থমন্ত্রী আমাদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিলেও বেতন কাঠামোর আদেশে টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড রাখা হয়নি।

দি ইঞ্জিনিয়ার্স সম্পাদক প্রকৌশলী শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন বলেন, অন্য ক্যাডারদের অবদমন করার জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তাকে চিঠি দিয়ে নির্দেশ দেয়া হচ্ছে। এর প্রতিবাদে আমরা শনিবার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে সমাবেশে অংশগ্রহণ করব।

আজকের সমাবেশ থেকে পরবর্তী করণীয় ঘোষণা করা হবে বলে একটি সুত্রে জানা গেছে।

উল্লেখ্য যে, গত ১৫ ডিসেম্বর অর্থ মন্ত্রণালয় অষ্টম জাতীয় পে-স্কেলের গেজেট প্রকাশ করে। অষ্টম পে-স্কেলের গেজেট পর্যলোচনায় ক্যাডার কর্মকর্তাদের অষ্টম গ্রেড এবং নন-ক্যাডারদের নবম গ্রেড নির্ধারণ করার মাধ্যমে এ বৈষম্য করা হয়েছে।

বিসিএস উত্তীর্ণ কর্মকর্তারা যোগদানকালে এত দিন নবম গ্রেডে থাকতেন। ননক্যাডার প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা এবং ননক্যাডার থেকে পদোন্নতি পেয়ে সহকারী সচিব হওয়া কর্মকর্তারাও একই গ্রেডে থাকতেন। এখন সবাইকে নবম গ্রেডে রেখে বিসিএস উত্তীর্ণ কর্মকর্তাদের যোগদানকালে অষ্টম গ্রেড দেওয়া হচ্ছে। এতে নতুন করে বৈষম্য সৃষ্টি করা হয়েছে।

গত ৪৪ বছর যাবত ক্যাডার ও নন-ক্যাডার কর্মকর্তারা সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সময় অভিন্ন প্রারম্ভিক বেতন স্কেলে যোগদান করে আসছেন। এবারই প্রথম বৈষম্য সৃষ্টি করা হয়েছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর