‘নিকি সাহেবের বাড়ি’ ভাঙার কাজ বন্ধের নির্দেশ
‘নিকি সাহেবের বাড়ি’ ভাঙার কাজ বন্ধের নির্দেশ
২০১৭-১০-০৭ ২২:২০:২২
প্রিন্টঅ-অ+


পুরান ঢাকার আরমানিটোলায় অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী ‘নিকি সাহেবের বাড়ি’ ভাঙার কাজ অবিলম্বে বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ‘নিকি সাহেবের বাড়ি’কে কেন দেশের ঐতিহ্য হিসেবে ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে রুলসহ এ আদেশ দেন।

সংশ্লিষ্ট কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মনিরুজ্জামান আদেশের বিষয়টি রাইজিংবিডিকে নিশ্চিত করেছেন।

ওই বাড়ি ভাঙার কাজ বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের আইজি, ঢাকার পুলিশ কমিশনার, রাজউক কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সংস্কৃতি সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মনিরুজ্জামান বলেন, আজ একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত ‘নিকি সাহেবের বাড়ি ভেঙে ফেলা হচ্ছে’ শিরোনামে প্রতিবেদন নজরে নিয়ে আদালত এ আদেশ দিয়েছেন।

প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, পুরান ঢাকার আরমানিটোলায় ১৯ শতক জায়গায় নির্মিত একটি বাড়িতে বাস করতেন আর্মেনীয় বংশোদ্ভূত জমিদার নিকোলাস পোগজ। তার বাড়িটি মহল্লার মানুষের কাছে ‘নিকি সাহেবের বাড়ি’ নামে পরিচিত ছিল। অথচ ঐতিহ্যবাহী বাড়িটি সংরক্ষিত ভবনের তালিকায় নেই।

অনিন্দ্য সুন্দর সেই দ্বিতল ভবনের বর্তমান মালিকরা ভেঙে ফেলছেন। কয়েক সপ্তাহ ধরে ভাঙার কাজ চলছে। ইতোমধ্যে ভবনটির সামনের এক-তৃতীয়াংশ গুঁড়িয়ে ফেলা হয়েছে।

ভবনটি সংরক্ষণের দাবিতে বুধবার বিকেলে আরমানিটোলার আর্মেনিয়ান স্ট্রিটে মানববন্ধন করেছে ঐতিহ্য নিয়ে কাজ করা সংগঠন আরবান স্টাডি গ্রুপ।

ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, আর্মেনিয়ান স্ট্রিটের ৮/১ ও ৮/২ নম্বর হোল্ডিংয়ে আছে নিকোলাস পোগজের বাড়ি। দ্বিতল ভবনটির ভেতরের এক-তৃতীয়াংশ ভেঙে ফেলা হয়েছে। ইট-সুরকি অপসারণে কাজ করছেন কয়েকজন শ্রমিক।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিবিধ এর অারো খবর