আলামত নষ্টে ঝুলে আছে সালমান শাহ মৃত্যুর তদন্ত
আলামত নষ্টে ঝুলে আছে সালমান শাহ মৃত্যুর তদন্ত
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০৮-১০ ০২:১৫:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+


প্রায় দুই যুগ হতে চলল বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়ক সালমান শাহ মৃত্যুর ঘটনা। প্রকৃত ঘটনা বের করতে সরকারের সংস্থাগুলো তদন্ত করলেও অনেক আলামত ইতোমধ্যেই নষ্ট হয়ে গেছে। এ কারণে তদন্তও সঠিকভাবে করা যাচ্ছে না। তবে প্রবাসী নারীর ভিডিওটি গুরুত্বপূর্ণ আলমত হিসেবে কাজ করবে বলে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ঘটনাটি নিয়ে আগে থেকেই আমরা কাজ করছি। আর সম্প্রতি যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে তার পর্যালোচনা চলছে। তবে এটি মামলার তদন্তে সংযুক্ত করতে হলে আদালতের অনুমতি লাগবে। প্রয়োজনে তাই করা হবে। আবার ভিডিওটির গ্রহণযোগ্যতা নিশ্চিত হতে ফেসবুকের সঙ্গে বুধবারও যোগাযোগ করা হয়েছে।’

মামলার আলামত নাকি নষ্ট হয়ে গেছে? এমন প্রশ্নের জবাবে পুলিশের এ কর্মকর্তা রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ঘটনা তো আজকের না। এ কারণে আলামত নষ্ট হতে পারে। তবে তা কীভাবে হয়েছে জানা নেই। আর আমাদের কাছে যা আছে তা নিয়ে তদন্ত চলছে। একই সঙ্গে ওই নারীর ভিডিওটি তদন্তে সহায়ক হিসেবে কাজ করতে পারে।’

পিবিআইর তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ২০১৬ সালে এ মামলার তদন্তভার পায় সংস্থাটি। এ মামলার অনেক গুরুত্বপূর্ণ আলামত খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আর যা আছে তাও নষ্ট হয়ে গেছে। এ কারণে সালমান শাহকে হত্যা করা হয়েছে, নাকি তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা তদন্তে নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। সালমান শাহর বাবা কমরউদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর দায়ের করা হত্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে স্ত্রী সামিরা হক, আবুল হোসেন খান, বাসার কাজের মেয়ে ডলি, মনেয়ারা বেগম, সিকিউরিটি গার্ড আব্দুল খালেক, সামিরার আত্মীয় ও সালমানের বিউটিশিয়ান রুবি, এফডিসির সহকারী নৃত্য পরিচালক নজরুল শেখ ও ইয়াসমিনকে। এখন এদের অনেককে পাওয়া যাচ্ছে না। অনেকের ঠিকানায়ও পাওয়া যাচ্ছে না। তবে এসব আসামির একজনকেও আইনে সোপর্দ করতে পারেনি কোনো সংস্থাই। তদন্তের স্বার্থে এদের অনেককেই এবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।

সালমান শাহর মায়ের করা মামলাটির দেখভাল করছেন সিনিয়র আইনজীবী ফারুক আহমেদ।

তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘১৯৯৭ সালের ২২ জুলাই রেজভী আহমেদ ওরফে ফরহাদ নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে ক্যান্টনমেন্ট থানা পুলিশ। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। সেখানে সে এ ঘটনার বিস্তারিত বলেছে। আর এখন যে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়েছে তা তদন্তের জন্য আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হবে। সেক্ষেত্রে দেরিতে হলেও ঘটনার জট খুলতে পারে।’

সোমবার মামলার অন্যতম আসামি রুবি ভিডিও ভাইরালে বলেন, ‘এ মামলার বড় সাক্ষী তার ছেলে ভিকি। ঘটনার দিন ভিকি সামিরার দেওয়া একটি পুঁটলি এক ছাদ থেকে অন্য ছাদে পার করেছে। হঠাৎ করে তার ছেলে ভিকির কাছ থেকে তিনি সালমান শাহর মৃত্যু নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পান।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর সালমান শাহের ১১/বি নিউস্কাটন রোডের স্কাটন প্লাজার নিজ কক্ষে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় জনপ্রিয় এ নায়কের লাশ। প্রথমে হলি ফ্যামেলি পরে ঢাকা মেডিক্যালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিনোদন এর অারো খবর