প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহারের ঘোষণা ট্রাম্পের
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহারের ঘোষণা ট্রাম্পের
২০১৭-০৬-০২ ২১:৫২:০০
প্রিন্টঅ-অ+


২০১৫ সালে হওয়া প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

হোয়াইট হাউজে দেয়া এক বক্তৃতায় প্যারিস চুক্তি থেকে নিজের দেশের নাম প্রত্যাহার করার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের ‘স্বার্থবেরাধী’ এই চুক্তির বদলে দেশের ব্যবসা ও শ্রমিকবান্ধব নতুন একটি ‌’ন্যায্য’ চুক্তি করার পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলেও ঘোষণা দেন।

গত বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় থেকে তিনি তার দেশের তেল ও কয়লা শিল্পকে সাহায্য করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে আসছেন। তার ধারাবাহিকতায় এই চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করা হলো।

তবে ট্রাম্প বিরোধীরা বলছেন, চুক্তিটি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করা একটি প্রধান বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জের ওপর মার্কিন নেতৃত্বের অবমাননা।

কিন্তু ট্রাম্পের দাবি, প্যারিস চুক্তিতে মার্কিনীদের ওপর অতিরিক্ত অর্থনৈতিক বোঝা চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। এই চুক্তি মানলে যুক্তরাষ্ট্র অর্থনৈতিকভাবে অসুবিধায় পড়বে ও বাধাগ্রস্ত হবে। এই চুক্তির কারণে দেশের জিডিপিতে ৩ ট্রিলিয়ন ডলার ক্ষতি হবে এবং প্রায় ৬৫ লাখ মানুষ চাকরি হারাবে বলেও তিনি দাবি করেন।

ট্রাম্প বলেছেন, ‘প্যারিসকে নয়, বরং পিটসবুর্গের মানুষের প্রতিনিধিত্ব করতে আমি নির্বাচিত হয়েছি। আমি প্রতিজ্ঞা করছি, যে চুক্তিতে আমেরিকার স্বার্থ দেখা হয়নি সেই চুক্তি থেকে আমরা নাম প্রত্যাহার করে নেবো, নতুবা বিষয়টি নিয়ে পুনরায় আলোচনা করতে হবে।’

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন। ইইউ এক বিবৃতিতে এই দিনটিকে ‘বৈশ্বিক সম্প্রদায়ের জন্য ব্যথিত হওয়ার দিন’ বলে উল্লেখ করেছে।

এর আগে জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টেনিও গুতেরেস বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের হুমকি মোকাবেলা করতে বিশ্বের সব দেশকে একত্রিত হয়ে ২০১৫ সালের প্যারিসের জলবায়ু চুক্তি বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। কোন সরকার যদি এর বিরোধিতা করে, তাহলে তাদেরকে বাদ দিয়ে বাকিদের অবশ্যই এ কাজ চালিয়ে যাওয়া উচিত।

২০১৫ সালে বৈশ্বিক উষ্ণায়নের মাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কম রাখার লক্ষে ১৮৭টি দেশ মিলে যে অঙ্গীকার করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তখন এর নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

পরিবেশ এর অারো খবর