নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের অনন্য জয়
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের অনন্য জয়
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০৫-২৫ ০০:৫৮:২৭
প্রিন্টঅ-অ+


ওয়ালটন ত্রিদেশীয় সিরিজের শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। প্রথমে বৃষ্টির কারণে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষের ম্যাচ পরিত্যক্ত। এরপর নিউজিল্যান্ডের কাছে হার।

দুই ম্যাচ পর বদলে যায় বাংলাদেশ। তৃতীয় ম্যাচে আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে দেয়। শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে কয়েকটি সমীকরণ আলোচনায় উঠে আসে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দেশের বাইরে প্রথম জয়ের হাতছানি। অন্যটি র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি। দুইয়ে মিলে এই ম্যাচটি মহাগুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে টাইগারদের জন্য।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে প্রথমে নিউজিল্যান্ডকে ২৭০ রানে আটকে রাখে মাশরাফি বাহিনী। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে ৫ উইকেট ও ১০ বল হাতে রেখে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। শুধু জয় বললে ভুল হবে- অনন্য জয়। ঐতিহাসিক জয়। দেশের বাইরে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম জয়। যে জয় র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশকে টেনে তুলল আরো একধাপ। এই জয়ের ফলে বাংলাদেশ আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে ছয়ে উঠে আসবে। যা হবে বাংলাদেশের ক্রিকেটে ইতিহাসে সর্বোচ্চ র‌্যাঙ্কিং।

বাংলাদেশের জয়ে ব্যাট হাতে প্রথম দিকে অবদান রাখেন তামিম ইকবাল ও সাব্বির রহমান। তারা দুজন দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১৩৬ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশের জয়ের ভিত্তিটা গড়ে দিয়ে যান। এরপর দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারায় বাংলাদেশ। তামিম ইকবাল ৬ চার ও ১ ছক্কায় ৬৫ রান করে আউট হন। এরপর ৮৩ বলে ৬৫ রান করে আউট হন সাব্বির রহমানও। ১০ রান করে আউট হন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ১৯ রান করে ফিরে যান সাকিব আল হাসান। ১ উইকেট হারিয়ে ১৪৩ রান করা বাংলাদেশ ১৯৯ রানেই হারিয়ে বসে ৫ উইকেট।

তামিম-সাব্বিরের পর বাংলাদেশের জয়ে ব্যাট হাতে অবদান রাখেন মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তারা দুজন ষষ্ঠ উইকেটে ৭২ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন। মুশফিকুর রহিম ৪৫ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ৪৫ রানে অপরাজিত থাকেন। তার সঙ্গে ৩৬ বলে ৬টি চার ও ১ ছক্কায় অপরাজিত থাকেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

বল হাতে নিউজিল্যান্ডের জিতান প্যাটেল ২টি উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট নেন হামিশ ব্যানেট ও মিচেল স্যান্টনার।

তার আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু ২৩ রানে প্রথম উইকেট হারায় নিউজিল্যান্ড। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে টম লাথাম ও নেইল ব্রুম দলীয় সংগ্রহকে ১৫৬ রান পর্যন্ত টেনে নেন। এরপর ব্রুম ও লাথাম দ্রুত ফিরে যান। ১৫৬ রানে ব্রুম (৬৩) আউট হওয়ার পর ১৬৭ রানে আউট হন লাথাম। দ্রুত উইকেট হারালেও শেষ দিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন রস টেলর। তিনি ৫৬ বলে ৬টি চারে অপরাজিত ৬০ রান করেন। তাতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭০ রানের সংগ্রহ পায় কিউইরা।

বল হাতে বাংলাদেশের মাশরাফি বিন মুর্তজা, নাসির হোসেন ও সাকিব আল হাসান ২টি করে উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট নেন মুস্তাফিজুর রহমান ও রুবেল হোসেন।

ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশের মুশফিকুর রহিম। আর সিরিজ সেরা হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের টম লাথাম।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

ক্রীড়া এর অারো খবর