প্রাণ বাঁচাবে সারভাইভাল ক্যাপসুল
প্রাণ বাঁচাবে সারভাইভাল ক্যাপসুল
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০৫-১২ ০০:৪৮:৪৭
প্রিন্টঅ-অ+


এটি দেখতে একটি দৈত্যকার বলের মতো মনে হলেও, প্রাকৃতিক দুর্যোগে এই গোলাকার ক্যাপসুলটিই আপনার জীবন রক্ষা করতে পারে।

‘সারভাইভাল ক্যাপসুল’ নামক এই গোলাকার ক্যাপসুলটি হচ্ছে, একটি ব্যক্তিগত নিরাপত্তা ব্যবস্থা যা একটি বিশাল বলের আকারে ডিজাইন করা হয়েছে। সুনামি, টর্নেডো, হর্নেন্স, ভূমিকম্প এবং ঝড়ো ঝড় থেকে নিরাপদ আশ্রয় দেওয়ার জন্য এটি তৈরি করা হয়েছে।

এই ক্যাপসুলের প্রথম ক্রেতা হচ্ছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিউ অর্লিন্সের বাসিন্দা এবং মাইক্রোসফটের একজন নারী কর্মী মিসেস জেয়িন জনসন। তিনি তার অনুভূতি জানিয়ে দ্য সিয়াটেল টাইমসকে বলেন, ‘এর ভেতরে প্রবেশ করার বিষয়টি ভয়ংকর। কিন্তু অন্যান্য বিকল্প ব্যবস্থাগুলো থেকে অনেক ভালো। আমি এই ক্যাপসুল কিনেছি আমার মনকে শান্তি দেবার জন্য। তাই এখন রাতে ঘুমাতে পারি এবং চিন্তা করি না।’

সব ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগে যেহেতু এই ক্যাপসুলের মধ্যে নিরাপদ থাকা যায়, তাই এর দামও বেশি। দুজন ব্যক্তির ধারণক্ষমতার সারভাইভাল ক্যাপসুলের দাম ১৩,৫০০ ডলার এবং চারজন ব্যক্তির ধারণক্ষমতার ক্যাপসুলটির জন্য খরচ করতে হবে ১৭,৫০০ ডলার।

ক্যাপসুলটিতে দুইটি ছোট জানালা রয়েছে, ফলে ভেতরে অবস্থানকালে চারপাশে কী ঘটছে তা দেখা যাবে। জরুরি মুহূর্তে নিজেকে, সঙ্গে অন্য কেউ থাকলে তাকে কিংবা পরিবারের সদস্যের প্রাণ রক্ষায় এটি সবচেয়ে ‘নিরাপদ ঘর’, বলে দাবী নির্মাতার।

জুলিয়েস শার্প, দ্য সারভাইভাল ক্যাপসুলের প্রতিষ্ঠাতা, তিনি বলেন, ‘এটি (লোকেদের) তাদের নিজস্ব সম্পত্তিতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের একটি বিকল্প, যা দিন বা রাতে সহজেই প্রবেশযোগ্য এবং সত্যিই একটি পরিবারকে নিরাপদ নিরাপত্তার দেবে, যা অন্য কোনোভাবে পাওয়া যাবে না।’

ডিজাইনারদের মতে, ক্যাপসুলটি ‘বিভিন্ন দুর্যোগে সমাধান’ হিসেবে ডিজাইন করা হয়েছে। সুনামির সময় পানির স্তর খুব উঁচুতে উঠে যাওয়ার পরও এটি কখনো তলিয়ে যাবে না, ভেসে থাকবে। অ্যালুমিনিয়াম শেল এবং ফ্রেমের এই ক্যাপসুল ভেতরে উষ্ণ রাখবে। উদ্ধারকর্মী ও ত্রাণকর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছানোর আগ পর্যন্ত দুর্যোগের সময় দারুন একটা নিরাপদ আশ্রয় দেবে।

ক্যাপসুলটির ডিজাইনে কাজ করেছে মহাকাশ প্রকৌশলীদের একটি দল, যাদের লক্ষ্যই ছিল সর্বোচ্চ সম্ভব শক্তিশালী এবং টেকসই হিসেবে এটিকে নির্মাণ করা। মহাকাশ গবেষকরা যে ধরনের প্রক্রিয়ায় ক্যাপসুলের শক্তিমত্তা পরীক্ষা করে থাকে, সে ধরনের পদ্ধতিতে পরীক্ষাগারে এই ক্যাপসুলের শক্তিমত্তা পরীক্ষা করা হয়েছে।

জুলিয়েস শার্প দাবী করেন, ‘প্রতিকূল পরিবেশে নিরাপদ থাকার জন্য এই বস্তুটি সাধারণ মানুষকে সবচেয়ে বেশি আস্থা দেবে।’

বিভিন্ন আকারে এই ক্যাপসুল বাজারে এসেছে, ২ জন মানুষ থেকে শুরু করে ১৬ জন মানুষ ধারণক্ষমতারও রয়েছে, ফলে ব্যবসা এবং স্কুলগুলোর জন্যও ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়া বেশ কিছু কাস্টমাইজেবল অপশন রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে চারপাশে সাউন্ড মিউজিক সিস্টেম এবং টয়লেট।

তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বাস্থ্য এর অারো খবর