দেশের আইসিটি প্রতিষ্ঠানে নারীদের অংশগ্রহণ কম
দেশের আইসিটি প্রতিষ্ঠানে নারীদের অংশগ্রহণ কম
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০৪-২৮ ০২:২৪:৩৮
প্রিন্টঅ-অ+


দেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিষ্ঠান সমূহে কর্মীদের মধ্যে নারীদের অংশগ্রহণ দশ শতাংশের নিচে বলে দাবি করা হয়েছে একটি দেশীয় গবেষণা প্রতিষ্ঠানের প্রতিবেদনে।

২৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার, রাজধানীর নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ, প্রযুক্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রেনিয়ার ল্যাব, ব্র্যাক, অক্সফাম, সেভ দ্য চিলড্রেন ও আমরা টেকনলজিস যৌথ উদ্যোগে প্রযুক্তিতে নারী বিষয়ক আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট নারীদের সম্মেলনে ‘বাংলাদেশে প্রযুক্তিতে নারীদের অংশগ্রহণ সন্তোষজনক নয়’ বলে মত প্রকাশ করেন আলোচকরা।

প্রেনিয়ার ল্যাবের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, সরকারের আইসিটি বিভাগ, বেসিস ও অন্যান্য অংশীদারদের যৌথ প্রচেষ্টায় গত কয়েক বছরে নারীদের প্রযুক্তিতে অংশগ্রহণ বাড়ছে।

জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক টেলিকমিউনিকেশন সংস্থার উদ্যোগে নারীদের আইসিটিতে অংশগ্রহণ বাড়ানোর কর্মসূচি হিসেবে ২০১০ সাল থেকে জাতিসংঘের সদস্যভুক্ত ১৯৩টি দেশে প্রতি বছর এপ্রিল মাসের চতুর্থ বৃহস্পতিবার ‘গার্লস ইন আইসিটি ডে’ পালন করা হচ্ছে।

এ বছর প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ, প্রযুক্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রেনিয়ার ল্যাব, ব্র্যাক, অক্সফাম, সেভ দ্য চিলড্রেন এবং আমরা টেকনলজিস যৌথ উদ্যোগে গত ২৩ এপ্রিল থেকে দেশের ৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ে নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে প্রযুক্তি সংলাপের পাশাপাশি গুগল বাসের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়া দেয়। দেখানো হয় বিভিন্ন অ্যাপ এবং ভিআর পণ্য।

বৃহস্পতিবার গার্লস ইন আইসিটি ডের বাংলাদেশ অংশের সমাপনী আয়োজনে প্রযুক্তিতে সম্পৃক্ত নারী শিক্ষার্থীদের সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়ার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর সভাপতি মোস্তাফা জব্বার।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমাদের দেশের নারীদের জন্য সবচেয়ে সহায়ক হলো প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের কাজ। তিনি বলেন, আমাদের জন্য দুর্ভাগ্য হলো আমাদের যে মেয়েরা কম্পিউটার প্রকৌশলে পড়াশুনা করে শিক্ষকতা করে। ফলে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মেয়েরা প্রকৌশলে পড়াশুনা করলেও প্রযুক্তির প্রায়োগিক ক্ষেত্রে তাদেরকে পাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া দেশে প্রতিবছর যে সংখ্যক কম্পিউটার প্রকৌশল স্নাতক বের হচ্ছে, তার মধ্যে মাত্র শতকরা ৭ শতাংশ মেয়ে।

বেসিস সভাপতি তথ্যপ্রযুক্তিতে নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিতে বিভিন্ন উদ্যোগের করা উল্লেখ করে বেসিসের প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে নারী আবেদনকারীদের বিনা প্রতিযোগিতায় অন্তর্ভুক্তির আশ্বাস প্রদান করেন।

বিষয় ভিত্তিক অধিবেশনে আরো বক্তব্য রাখেন প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের দেশীয় পরিচালক অরলা মরফি, সেভ দ্য চিলড্রেনের দেশীয় পরিচালক মার্ক পিয়ার্স, আমরা টেকনোলজিসের প্রধান কর্মসূচি কর্মকর্তা শরিফুল আলম, প্রেনিয়ার ল্যাবের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ নিজামী, ব্রাকের আইসিটি বিভাগের প্রধান কেএম মোরশেদ, অক্সফামের একজন নারী উদ্যোক্তা মোরশেদা সহ প্রমুখ।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর