অনলাইনে দেখা যাবে জাতীয় জাদুঘর
অনলাইনে দেখা যাবে জাতীয় জাদুঘর
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০৪-২৭ ১৫:৩৯:৪৩
প্রিন্টঅ-অ+


৩৬টি গ্যালারির ৩,০০০ এর বেশি নিদর্শন নিয়ে ভাচুর্য়াল দুনিয়ায় এলো জাতীয় জাদুঘর। ফলে বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে এখন ইন্টারনেটে দেখা যাবে জাতীয় জাদুঘরের নিদর্শন।

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর শাহবাগস্থ বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে জাদুঘরের এই ভার্চুয়াল যাত্রা শুরু হয়।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জাতীয় প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের অধীনস্ত বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর-এর যৌথ আয়োজনে জাদুঘরের ভার্চুয়াল গ্যালারি উদ্বোধন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে ইন্টারনেটভিত্তিক এই ভার্চুয়াল গ্যালারির উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের কিউরেটর মো. নজরুল ইসলাম খান এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) এবং এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর সভাপতি শিল্পী হাশেম খান অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন।

প্রধান অতিথি ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী তার বক্তব্যে মন্তব্য করেন যে, ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে এই ভার্চুয়াল গ্যালারি একটি অনন্য ভূমিকা রাখবে। এছাড়াও তিনি জাদুঘরের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উন্নত প্রশিক্ষণের ওপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করেন।

বিশেষ অতিথি আসাদুজ্জামান নূর তার বক্তব্যে আশাব্যক্ত করেন যে, বর্তমান সরকার এই ভার্চুয়াল গ্যালারি সম্প্রসারণে ও বাংলাদেশের অন্যান্য জাদুঘরের জন্যে ভার্চুয়াল গ্যালারি তৈরিতে অর্থ বরাদ্দ করবেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের অফিস চলাকালীন স্থায়ী গ্যালারির প্রদর্শনীতে শুধুমাত্র নির্দিষ্ট সময়ে এই জাদুঘরে রাখা নিদর্শনসমূহ জাদুঘরে আগত দর্শকদের নিকট উন্মুক্ত বিধায় দেশের অন্যান্য অঞ্চলের জনসাধারণ ও আন্তর্জাতিক মাধ্যমে বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্যের তথ্য পৌঁছায় না। গ্যালারিতে প্রদর্শিত সকল নিদর্শন ও স্টোরে সংরক্ষিত নিদর্শন থেকে উল্লেখযোগ্য নিদর্শনের মানসম্পন্ন আলোকচিত্র দিয়ে ‘ভার্চুয়াল গ্যালারি’ নির্মাণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরকে দেশের জনগণ ও বিশ্ববাসীর দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়া এখন সম্ভব হবে।

জাতীয় জাদুঘরের সব গ্যালারি অ্যানিমেশন আকারে তৈরি করা হয়েছে। এতে তরুণরা সহজেই এটি নেভিগেট করতে পারবে। পৃথিবীর যেকোনো প্রান্ত থেকে যেকোনো ব্যক্তি অনলাইনে বাংলাদেশ জাদুঘরের ওয়েবসাইট (http://bangladeshmuseum.gov.bd/vt/) ভিজিট করে জাতীয় জাদুঘরের ৩৬টি গ্যালারির ৩,০০০ এর অধিক নিদর্শনের মানসম্মত আলোকচিত্র দেখতে পারবে। ভার্চুয়াল গ্যালারিতে প্রত্যেকটি নিদর্শনের সঙ্গে বিস্তারিত বর্ণনা থাকার ফলে ব্যবহারকারীরা সহজেই এ সকল বস্তুর প্রত্নতাত্ত্বিক ও ঐতিহাসিক তাৎপর্যের ব্যাপারে জানতে পারবে।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরীসহ অনুষ্ঠানে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়, জাতীয় প্রত্নতত্ত্বঅধিদপ্তর, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর এবং এটুআই প্রোগ্রামের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ ও বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

শিল্প সাহিত্য এর অারো খবর