গর্ভের শিশুর লাথি খাবে পিতাও!
গর্ভের শিশুর লাথি খাবে পিতাও!
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০৩-১৮ ১৫:১৯:২৭
প্রিন্টঅ-অ+


গর্ভধারণে নারীর কষ্ট যেমন বেশি তেমনি আনন্দও বেশি। অথচ গর্ভধারণের কষ্ট এবং আনন্দ- কোনোটাই উপলব্দি করতে পারে না পুরুষ।

তবে প্রযুক্তির কল্যানে অনেক অসম্ভব বিষয় এখন সম্ভব হয়ে উঠছে। যেমন স্ত্রীর গর্ভে থাকা সন্তানের নড়াচড়া ও লাথির আনন্দকর স্পর্শ প্রযুক্তির কল্যানে এবার পাবে পিতাও!

‘ফিবো’ নামক একটি স্মার্ট ব্রেসলেট হাতে পড়লেই স্ত্রীর গর্ভে থাকা সন্তানের নড়াচড়া ও লাথির স্পর্শ পিতা হিসেবে এবার আপনি নিজেও অনুভব করতে পারবেন। এজন্য আপনার স্ত্রীকে প্যাচ পরিধান করতে হবে এবং পেটে অনাগত সন্তানের নড়াচড়া ও লাথি, স্ত্রীর মতো আপনিও অনুভব করতে সক্ষম হবেন প্যাচ থেকে তারহীন প্রযুক্তিতে আপনার হাতে আসা ফিবো ব্রেসলেটের মাধ্যমে।

মায়ের অনুভূতি বাবাকে দেওয়ার অভিনব এই ফিবো ব্রেসলেট তৈরি করেছে ডেনমার্কের ফাস্ট বন্ড ওয়্যারেবল নামক একটি স্ট্যার্টআপ প্রতিষ্ঠান। তাদের দাবি, ব্রেসলেটটি যথাযথভাবে মায়ের গর্ভে থাকা শিশুর নড়াচড়া অনুকরণ করতে পারে, ফলে স্ত্রীর গর্ভাবস্থার সঙ্গে পিতাকে অনেক বেশি জড়িত বোধ করতে সাহায্য করবে।

ফাস্ট বন্ড ওয়্যারেবল এর কমকর্তা সান্ড্রা পেটুর্সডোটিয়ার নিউজউইকে বলেন, ‘যদিও মা তার পেটে সরাসরি ক্রমবর্ধমান সন্তানের অনুভূতি পায়, তবে এবার পিতাও তার কিছুটা পাবে। এক্ষেত্রে শিশুর নড়াচড়া ও পদাঘাত বুঝতে সক্ষম, আরেকটি প্রতিষ্ঠানের নির্মিত এমন আধুনিক প্যাচ পড়তে হবে মাকে।’

ফলে মায়ের গর্ভে থাকা শিশু যখন লাথি দেবে বা নড়াচড়া করবে তখন সেই সংকেতটা জিএসএম প্রযু্ক্তির মাধ্যমে ব্রেসলেটে পৌঁছাবে পিতার হাতে এবং পিতা ওই নড়াচড়া অনুভব করতে পারবে। শিশুর নড়াচড়ার এই সংকেতের শেয়ারিংটা তৎক্ষণাৎ হবে, ফলে রিয়েল টাইমে নড়াচড়া অনুভব করবে পিতা।

এককথায় বলা যায়, অনাগত সন্তানের নড়ানড়া যে রকম প্রাকৃতিকভাবে মা অনুভব করতে পারে, ফিবো ব্রেসলেটে প্রায় সেরকম টের পাবে পিতা। যা কৃত্রিম ভাইব্রেশনের তুলনায় অনেক বেশি প্রাকৃত। এছাড়া শিশুর মুভমেন্টের এই তথ্যগুলো ব্রেসলেটে সংরক্ষিত হবে, ফলে শিশুর জন্মের আগ পর্যন্ত একটা দীর্ঘস্থায়ী স্মরণার্থ চিহ্ন তৈরি হবে।

সান্ড্রা পেটুর্সডোটিয়ার বলেন, ‘ফিবো ব্রেসলেটটি তৈরি করা হয়েছে স্ত্রীর গর্ভাবস্থায় পিতাকে অনেক বেশি সম্পৃক্ত করার জন্য। এটি একটি আপ-টু-ডেট প্রযুক্তি এবং উচ্চ মানের ডিভাইস।’

বিশ্বে অনেক দিন থেকেই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান চেষ্টা করে আসছে পিতাকে তার অনাগত সন্তানের সঙ্গে সম্পৃক্ত করার জন্য। যেমন ২০১৩ সালে বিখ্যাত ন্যাপি ব্র্যান্ড হাগিজ তৈরি করেছিল শিশুর নড়াচড়া উপলব্ধি দিতে পারে এমন ‘প্রেগনেন্ট বেল্ট’। ২০১১ সালে জাপানি একটি প্রতিষ্ঠান তৈরি করেছিল ‘প্রেগনেন্ট সিমুলেটর’। তবে কোনোটিই সফলতার মুখ দেখেনি। ফিবোর জন্য বলা যায় এক্ষেত্রে ফাঁকা মার্কেট তৈরি হয়ে আছে।

তবে ফিবো ব্রেসলেটটি কবে বাজারে আসছে তার কোনো দিনক্ষণ এখনো নির্ধারিত হয়নি। গত সপ্তাহে ফিনল্যান্ডে একটি প্রতিযোগিতায় নতুন এই উদ্ভাবনটি প্রদর্শিত হয়েছে মাত্র। নির্মাতাদের প্রত্যাশা ২০১৮ সালে ডিভাইসটি বাজারে আনতে পারবে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর