বইমেলায় তথ্যপ্রযুক্তি
বইমেলায় তথ্যপ্রযুক্তি
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০২-১৩ ০০:৫৪:৪২
প্রিন্টঅ-অ+


তথ্যপ্রযুক্তির নানা কিছু শেখার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে মানুষের। সেই আগ্রহের প্রতিফলন দেখা গেল এবারের বইমেলাতেও। গত শনিবার বিকেলে বাংলা একাডেমির অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৭ ঘুরে দেখা গেছে, অন্যান্য বইয়ের পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক বইও কিনছেন ক্রেতারা। বিশেষ করে প্রোগ্রামিং, ফ্রিল্যান্সিং ও প্রযুক্তির বিভিন্ন কলাকৌশলের প্রশিক্ষণমূলক বইয়ের প্রতি ক্রেতাদের আগ্রহ বেশি। বইয়ের দোকানের পাশাপাশি মেলায় তথ্যপ্রযুক্তির ছোঁয়া দিতে বই বিক্রির ওয়েব পোর্টাল, স্মার্টফোনে বই পড়ার অ্যাপ এবং ডিজিটাল তথ্যকেন্দ্রও দেখা গিয়েছে। সেই সঙ্গে আছে বিনা মূল্যের ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক ব্যবহারের সুবিধা।

মেলায় তথ্যপ্রযুক্তির বই

আদর্শ, জ্ঞানকোষ প্রকাশনী, সিসটেক পাবলিকেশনস, তাম্রলিপি, মুক্তদেশ প্রকাশন, শব্দশৈলী, নওরোজ কিতাবিস্তান, অন্যরকম প্রকাশনী এবং দ্বিমিক প্রকাশনীতে তথ্যপ্রযুক্তি বইয়ের প্রাধান্য রয়েছে। এবারের মেলা উপলক্ষে বেশ কিছু নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে, কিছু বই প্রকাশের অপেক্ষায় আছে।

সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত বইগুলোর মধ্যে জাকির হোসাইনের সি প্রোগ্রামিং, মো. আমিনুর রহমানের ফ্রিল্যান্সার হওয়ার গল্প, শিশির আহমেদ রুবেলের আউটসোর্সিং: ইন্টারনেটে ঘরে বসে টাকা আয়ের সহজ উপায়, মাহবুবুর রহমানের প্রোগ্রামিংয়ে হাতেখড়ি, মোহাম্মাদ মিজানুর রহমানের পাইথন প্রোগ্রামিং ফাউন্ডেশন। মো. ইকরামের ফ্রিল্যান্সিং গুরু: অনলাইনে আয়ের চাবিকাঠি, জিয়াউল হক কাউসারের ইউটিউব দেখে শিখি উপার্জন, মাকসুদুর রহমানের সহজ ভাষায় পাইথন-৩, তামিম শাহরিয়ার সুবিনের কম্পিউটার প্রোগ্রামিং (দ্বিতীয় খণ্ড), ৫২টি প্রোগ্রামিং সমস্যা ও সমাধান, ঝংকার মাহবুবের হাবলুদের জন্য প্রোগ্রামিং, বুকবিডি সিরিজ থেকে প্রকাশিত জাভা প্রোগ্রামিং ফ্রম বিগিনিং টু অ্যাডভান্স (সিডিসহ), নুরুজ্জামান মিলনের লারাভেল পিএইচপি ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক, রিনি ঈশানের রোবোটিকস এবং মাইক্রোকন্ট্রোলার বইগুলো দেখা যায়।

সেইবই অ্যাপে ই–বই দেখছে এক শিশুসেইবই অ্যাপ
বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে স্মার্টফোনে বই পড়ার অ্যাপ সেইবইয়ের স্টলে বই পড়ার নতুন এই মাধ্যমের প্রচারণা চালানো হচ্ছে। অ্যাপটির মাধ্যমে কিছু বই বিনা মূল্যে পড়ার সুযোগ রাখা রয়েছে। অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্টফোনের জন্য গুগল প্লেস্টোর (goo.gl/nMl7ep) থেকে এবং আইফোনের জন্য আইটিউন্স (goo.gl/gysBQQ) থেকে অ্যাপটি নামিয়ে নেওয়া যাবে।

বইমেলায় গুগল স্ট্রিটভিউ সুবিধা

মেলায় এসে নির্দিষ্ট কোনো স্টল খুঁজে না পেলে কাউকে জিজ্ঞেস না করলেও চলবে। গুগল স্ট্রিট ভিউয়ে দেখা নেওয়া যাবে স্টলের অবস্থান। গুগলের স্ট্রিট ভিউ আপনাকে পথ দেখিয়ে দেবে। ওয়েব ঠিকানা: www.amarekushegranthamela.com

মেলায় তারহীন ওয়াই-ফাই

পুরো বইমেলা প্রাঙ্গণে বিনা মূল্যের তারহীন ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট সংযোগের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তবে সে সংযোগ পাওয়া বেশ কঠিনই বলা চলে। মেলায় ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে নিরাপদ মিডিয়া নামের একটি প্রতিষ্ঠান। রাজধানীর হাবীবুল্লাহ বাহার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষার্থী সায়মা আক্তারকে মেলা প্রাঙ্গণে মুঠোফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে দেখা গেল। তিনি বললেন, ‘মেলায় ওয়াই-ফাই জোন আছে, ব্যানারে সেটির পাসওয়ার্ডও দেওয়া হয়েছে, তবে আমি অনেকবার চেষ্টা করেও সংযোগ পাইনি। তাই নিজের মোবাইলের ডেটা প্যাক ব্যবহার করছি।’

ধানমন্ডি থেকে গত শনিবার মেলায় এসেছেন মফিজুর রহমান। তিনি হতাশ হয়ে বলেন, ‘কোথায় ইন্টারনেট? কোনো গতি নেই।’ একই রকম অভিজ্ঞতা সরকারি চাকরিজীবী মাহামুদুল হকেরও। বললেন, ‘অনেকক্ষণ চেষ্টা করলাম, এখনো করছি কিন্তু কোনো ইন্টারনেট সংযোগ পাচ্ছি না।’

বাংলা একাডেমির বিক্রয়, বিপণন ও পুনর্মুদ্রণ বিভাগের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) জালাল আহমেদ বলেন, ‘আসলে আমাদের কাছে এমন কোনো অভিযোগ আসেনি যে ইন্টারনেট সংযোগ পাওয়া যাচ্ছে না। তা ছাড়া একসঙ্গে অনেক ব্যবহারকারী ইন্টারনেট ব্যবহার করলে এটেু সমস্যা হতে পারে।’

অন্যদিকে বাংলা একাডেমির সমীক্ষক মো. মনিরুর জামান বলেন, ‘ওয়াই-ফাই সংযোগ ১০টি জোনে ভাগ করা হয়েছে। ১০ এমবিপিএস গতির এই সেবাটি দিচ্ছে নিরাপদ মিডিয়া। অনেক সময় দেখা যায় রাউটার বন্ধ হয়ে গেছে। তখন সংযোগ পাওয়া যায় না। আমি সব সময় দেখাশোনা করছি এখন কোনো সমস্যা পাবেন না। অনেকে ফেসবুক লাইভও করতে পারছেন।’

ডিজিটাল তথ্যকেন্দ্রে সেবা নিচ্ছে দর্শনার্থীরাএটুআইয়ের ডিজিটাল তথ্যকেন্দ্র

বইমেলায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) কর্মসূচির স্টলে পাওয়া যাচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশ নিয়ে বিভিন্ন তথ্য। এখানে তথ্য বাতায়ন কেন্দ্র সম্পর্কে জানা যাবে। এটুআইয়ের যোগাযোগ সহকারী আদনান ফায়সাল বলেন, ‘আমাদের এখান থেকে জানা যাবে কোথায় কোন স্টলটি আছে এবং সেটি কোন দিকে রয়েছে। তা ছাড়া ২০১৩ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত কি কি নতুন বই এসেছে সেটাও জানতে পারবে। তা ছাড়া আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশের তথ্য তুলে ধরেছি দর্শকদের কাছে।’

বাংলা একাডেমির ওয়েবসাইট
অমর একুশে বইমেলা ২০১৭-এর নতুন বইয়ের তথ্যর তালিকা পাওয়া যাবে বাংলা একাডেমির ওয়েবসাইটে (banglaacademy.org.bd)। নতুন বইয়ের তালিকা সাইটটিতে পিডিএফ ফাইল আকারে রাখা হয়েছে।

অনলাইনে মেলার বই কেনা

ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন থেকেই বইমেলায় প্রকাশিত বইগুলো দিনেরটা দিনেই রকমারি ডটকমে (www.rokomari.com) প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত বইমেলায় প্রকাশিত হওয়া প্রায় দুই হাজারের বেশি বইয়ের সবগুলোই পাওয়া যাচ্ছে রকমারিতে।

রকমারির ফেসবুক পেজে প্রতিদিন নতুন নতুন বইয়ের তথ্য নিয়ে প্রকাশ করা হচ্ছে লেখা। পেজ থেকেই সব পাঠক হালনাগাদ পাচ্ছেন বইমেলার নিত্যনতুন বইয়ের। এ ছাড়া প্রতিদিনের ই-মেইল নিউজলেটার আর মোবাইল এসএমএসের মাধ্যমেও পাঠকেরা জানতে পারছেন প্রিয় লেখকদের খোঁজখবর।

প্রতিদিন রকমারি থেকে সর্বাধিক বই অর্ডারকারী ব্যক্তি নির্বাচিত হচ্ছেন রকমারির সেরা ক্রেতা হিসেবে। ৫০০ টাকার গিফট ভাউচার পুরস্কারের পাশাপাশি তাঁকে নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করা হচ্ছে রকমারির ফেসবুক পেজে। এ ছাড়া খুব শিগগিরই শুরু হবে বিভিন্ন বই এবং লেখকদের নিয়ে কুইজ প্রতিযোগিতা, যেখানে অংশ নিয়ে বইয়ের পাশাপাশি নানা উপহার জেতার সুযোগ থাকবে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বইপত্র এর অারো খবর