নূর হোসেন ও তারেকরা কনডেম সেলে
নূর হোসেন ও তারেকরা কনডেম সেলে
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০১-১৭ ০২:১৫:৩২
প্রিন্টঅ-অ+


নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলায় মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রাপ্ত প্রধান আসামি নূর হোসেন, র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক লে. ক. (বরখাস্ত) তারেক সাঈদসহ পাঁচজনকে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের কনডেম সেলে নেওয়া হয়েছে।

সোমবার সকালে রায়ের পর কারাগারে ফিরিয়ে বিকাল সোয়া ৫টার দিকে তাদের কনডেম সেলে নেওয়া হয়। কারাবিধি অনুযায়ী, ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের কনডেম সেলে রাখা হয়।

দণ্ডিত হওয়ায় তাদের ডিভিশন বা বিশেষ সুবিধা বাতিল করে পরানো হয়েছে কয়েদির সাদা-কালো পোশাক। এখন থেকে সাধারণ বন্দির মতোই খাবার জুটবে তাদের। এ ছাড়া মৃত্যুদণ্ড পাওয়া অন্য আসামিদেরও কনডেম সেলে রাখা হবে।

পাঁচজনের মধ্যে নূর হোসেন ও তারেক সাঈদ ছাড়া বাকিরা হলেন- র‌্যাব-১১ এর ক্যাম্প কমান্ডার (বরখাস্ত) মেজর আরিফ হোসেন, ক্যাম্প কমান্ডার (বরখাস্ত) লে.কমান্ডার মাসুদ রানা ও ল্যান্স নায়েক (বরখাস্ত) বেলাল হোসেন।

কারা অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, কারাবিধি অনুযায়ী দণ্ডিত হওয়ার পর ডিভিশন কার্যকর থাকে না। তাই তাদের এখন সাধারণ ফাঁসির আসামি হিসেবেই বিবেচনা করা হবে। চাঞ্চল্যকর মামলার আসামি হওয়ায় তাদের প্রতি বাড়তি নজরদারিও থাকবে।

এর আগে সোমবার সকাল ৭টার দিকে দুইটি প্রিজন ভ্যানে করে কড়া প্রহরায় তাদের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এবং কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ থেকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়।

সকাল ১০টার দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেন ওই পাঁচজনসহ ২৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড এবং ৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডের রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় ওই পাঁচজনসহ ২৩ জন আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এ মামলার ১২ আসামি পলাতক রয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ কারাগারে বাকি ১৮ আসামিকে নেওয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে ১২ জন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ও ছয়জন বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত। মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তদের কারাগারে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের জন্য নির্ধারিত কনডেম সেলে রাখা হয়েছে।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এর সুপার সুব্রত কুমার বালা বলেন, বিকাল সোয়া ৫টার দিকে আসামি র‌্যাবের আরিফ হোসেন এবং মাসুদ রানাকে এ কারাগারে আনা হয়।

কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বনিক জানান, তার কারাগার থেকেও ওই মামলার তিন আসামি র‌্যাব-১১ এর সাবেক অধিনায়ক (বরখাস্ত) লে. ক. তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, সিদ্দিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ও সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূর হোসেন, ল্যান্স নায়েক বেলাল হোসেন আনা হয়। রাতেই তাদের ফাঁসির কনডেম সেলে পাঠানো হয়েছে। রাতেই তাদের ফাঁসির কনডেম সেলে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

আইন ও অধিকার এর অারো খবর