ই-বুকের ব্যবহার ও জনপ্রিয়তা বাড়ছে
ই-বুকের ব্যবহার ও জনপ্রিয়তা বাড়ছে
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৭-০১-১৪ ২১:৫৭:৩০
প্রিন্টঅ-অ+


বিশ্বজুড়ে বইয়ের দুনিয়ায় বিরাট পরিবর্তন নিয়ে এসেছে ডিজিটাল বই বা ই-বুক। দেশে কম্পিউটার ও স্মার্টফোনের ব্যবহার বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ডিজিটাল বইয়ের (ই-বুক) ব্যবহার ও জনপ্রিয়তাও দিন দিন বাড়ছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কাগজে ছাপা বই পড়ার দিন ফুরিয়ে আসছে। দ্রুত ধেয়ে আসছে ই-বুক। উন্নত বিশ্বে ই-বুক পাঠকের সংখ্যা জ্যামিতিক হার বাড়ছে। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। আগামীতে কাগজে ছাপানো বইয়ের সংখ্যা হয়তো কমবে না, কিন্তু দাপট বাড়বে ডিজিটাল বইয়ের।

ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের গৃহীত উদ্যোগ অগ্রগতি ও কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ই-বুক বিষয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক জানান, পাঠ্য বিষয়বস্তুকে আনান্দদায়ক করে উপস্থাপনের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্যায়ের ইন্টারঅ্যাকটিভ মাল্টিমিডিয়া ডিজিটাল কনটেন্ট প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ২১টি টেক্সট বইকে ডিজিটাল টেক্সবুক বা ই-বুকে ‍রূপান্তর করা হয়েছে। গত বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি ডিজিটাল টেক্সট বুক উদ্বোধনের পর থেকে এ পর্যন্ত ডাউনলোডের সংখ্যা ৫ লাখ ৫০ হাজার।

এছাড়া জানা গেছে, নবম ও দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জন্য ই-শিক্ষার উপকরণ তৈরি করা হয়েছে। পাশাপাশি শিক্ষকদের জন্যও পাঠদানে সহায়ক এমন উপকরণ (ই-ম্যানুয়াল) চালু করা হয়েছে। জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) ওয়েবসাইটে এসব উপকরণ পাওয়া যাবে। সম্প্রতি এসব উপকরণ প্রকাশ করা হয়েছে।

শিক্ষার্থীদের জন্য করা ই-শিক্ষার উপকরণের ফলে শিক্ষার্থীরা অনলাইনে পাঠ নিতে পারবে। তেমনি শিক্ষকেরাও পাঠদানের জন্য পরিপূর্ণ একটি গাইডলাইন পাবেন ডিজিটাল মাধ্যমে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বইপত্র এর অারো খবর