২০১৬-র সেরা ৫ স্মার্টফোন
২০১৬-র সেরা ৫ স্মার্টফোন
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-১২-২৮ ১২:৫১:১৮
প্রিন্টঅ-অ+


বছরটা প্রায় শেষ। গোটা বছরজুড়েই অনেক স্মার্টফোন বাজারে এনেছে মুঠোফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। কিন্তু নকশার বিচারে ফোনগুলোর মধ্যে নতুনত্ব বলে কিছু নেই। নতুন যা কিছু তা নতুন সব সুবিধায়। ২০১৬ সালের সেরা ফোনগুলো বেছে নেওয়া তাই কিছুটা সহজই বলা চলে। কারণ, শত শত নতুন ফোনের ভিড়ে নতুন সুবিধায় এই স্মার্টফোনগুলো সহজেই আলাদা করা যায়।

অ্যাপল আইফোন ৭ প্লাস
গত বছরের মতো এবারও দুটি সংস্করণে নতুন আইফোন প্রকাশ করে অ্যাপল। নকশা সেই একই। তবে পারফরম্যান্সের বিচারেই আইফোন ৭ প্লাসের অনন্য অবস্থান। ধুলা ও পানিরোধী এই আইফোনে যোগ করা হয়েছে ডুয়েল ক্যামেরা। অ্যাপল দাবি করলেও ঠিক পেশাদার ক্যামেরার মানের ছবি এতে পাওয়া যায় না বটে, তবে স্মার্টফোনের ক্যামেরার বিচারে ভালো তো বলতেই হয়।
প্রকাশ: সেপ্টেম্বর
স্টোরেজ: ৩২/১২৮/২৫৬ গিগাবাইট
ডিসপ্লে: সাড়ে ৫ ইঞ্চি
মূল ক্যামেরা: ১২ মেগাপিক্সেল
র‍্যাম: ৩ গিগাবাইট
ব্যাটারি: ২৯০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ এজ
বাজারে স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৭ থাকলে হয়তো সেরা ফোন হিসেবে সেটিই বেছে নেওয়া হতো। তবে ব্যাটারি থেকে আগুন ধরার ঘটনায় বেশ বিপাকে পড়ে প্রতিষ্ঠানটি। নোট ৭ না থাকলেও ২০১৬ সালে প্রকাশিত গ্যালাক্সি এস৭ এজ বর্তমান স্মার্টফোনগুলোর অন্যতম। কাচ ও ধাতব নকশার এস ৭ এজ পারফরম্যান্সের বিচারের চমৎকার। সঙ্গে বাঁকানো পর্দার জন্য সহজেই অন্য ফোন থেকে এটিকে আলাদা করা যায়।
প্রকাশ: মার্চ
স্টোরেজ: ৩২/৬৪ গিগাবাইট
ডিসপ্লে: সাড়ে ৫ ইঞ্চি

মূল ক্যামেরা: ১২ মেগাপিক্সেল

র‍্যাম: ৪ গিগাবাইট

ব্যাটারি: ৩৬০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার

.গুগল পিক্সেল
পিক্সেল সিরিজ চালুর মাধ্যমে স্মার্টফোন নির্মাতা হিসেবে পরিচিত পেয়েছে গুগল। আইফোন ৭ প্রকাশের এক মাস পরই গুগল প্রকাশ করে পিক্সেল ও পিক্সেল এক্সএল। ক্যামেরার বিচারে অনেকের মতে সেরা স্মার্টফোন গুগল পিক্সেল। গুগলের সেবাগুলোর সেরা সুবিধা পেতে পিক্সেল ফোনের জুড়ি নেই। বর্তমানে ব্যক্তিগত সহকারী গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট পাওয়া যাচ্ছে শুধু পিক্সেল স্মার্টফোনেই। তাই সেরা অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন বললে অত্যুক্তি করা হয় না।
প্রকাশ: অক্টোবর
স্টোরেজ: ৩২/১২৮ গিগাবাইট
ডিসপ্লে: ৫ ইঞ্চি
মূল ক্যামেরা: ১২ মেগাপিক্সেল
র‍্যাম: ৪ গিগাবাইট
ব্যাটারি: ২৭৭০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার

.শিয়াওমি মি মিক্স
শীর্ষ মুঠোফোন নির্মাতারা নকশায় বড় ধরনের কোনো পরিবর্তন না আনতে পারলেও চীনা প্রতিষ্ঠান শিয়াওমি কিন্তু ঠিকই চমক দেখিয়েছে। মি মিক্স মডেলের ফোনের বিশেষত্ব হলো সামনের দিকের প্রায় পুরো অংশজুড়েই পর্দা। সঙ্গে এর ৬ গিগাবাইট র‍্যামের উল্লেখ না করলেই নয়। ফ্রন্ট ক্যামেরা ফোনের ওপরে যোগ না করে করা হয়েছে নিচে।
প্রকাশ: নভেম্বর
স্টোরেজ: ১২৮ গিগাবাইট
ডিসপ্লে: ৬.৪ ইঞ্চি
মূল ক্যামেরা: ১৬ মেগাপিক্সেল
র‍্যাম: ৬ গিগাবাইট
ব্যাটারি: ৪৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার

.ওয়ানপ্লাস ৩
প্রথাগত বিপণনের ধারণার সঙ্গে ওয়ানপ্লাসের বেশ বড় পার্থক্য। বিজ্ঞাপনে খুব একটা না গেলেও অল্প সময়েই সাড়া ফেলেছে ব্র্যান্ডটি। এই বছরে ওয়ানপ্লাস থ্রি ও দিন কয়েক আগে থ্রিটি মডেলের স্মার্টফোন প্রকাশ করে ওয়ানপ্লাস। এই ফোনের বিশেষত্ব সুবিধায় না, বরং দামে। উচ্চমানের সব সুবিধা দেওয়ার পরও দাম একই মানের সেরা ব্র্যান্ডগুলোর তুলনায় বেশ কম।
প্রকাশ: জুন
স্টোরেজ: ৬৪ গিগাবাইট
ডিসপ্লে: সাড়ে ৫ ইঞ্চি
মূল ক্যামেরা: ১৬ মেগাপিক্সেল
র‍্যাম: ৬ গিগাবাইট
ব্যাটারি: ৩০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর