সামরিক খাতে বরাদ্দের তালিকায় রাশিয়াকে পেছনে ফেলল ভারত!
সামরিক খাতে বরাদ্দের তালিকায় রাশিয়াকে পেছনে ফেলল ভারত!
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-১২-১৫ ২০:১২:৩৬
প্রিন্টঅ-অ+


বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী ও সামরিক সক্ষমতায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা রাশিয়াকে পেছনে ফেলে সামরিক খাতে সর্বোচ্চ বরাদ্দের তালিকায় চতুর্থ স্থানে ওঠে এসেছে ভারত। এর আগে ভারত এ তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে ছিল। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সামরিক খাতে বরাদ্দের এ তালিকা তৈরি করেছে আন্তর্জাতিক সমীক্ষা সংস্থা আইএইচএস জেন’স। প্রতিবেদন অনুসারে, গত দুই বছরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সামরিক ব্যয় বেড়েছে আগের তুলনায় বেশি। যুদ্ধের প্রস্তুতি, অস্ত্রাগার বাড়িয়ে তোলা আর বিধ্বংসী প্রযুক্তি উদ্ভাবনে বিভিন্ন রাষ্ট্রের এই বিপুল উৎসাহ দেখে উদ্বেগ বাড়ছে বিশেষজ্ঞ মহলে।

প্রতিরক্ষা খাতে খরচের প্রশ্নে সবচেয়ে এগিয়ে গত কয়েক বছরের মতো যুক্তরাষ্ট্র। ২০১৬ সালে ৬২ হাজার ২০০ কোটি ডলারের কিছু বেশি অর্থ প্রতিরক্ষা খাতে খরচ করেছে দেশটি। গোটা বিশ্বের যা প্রতিরক্ষা বরাদ্দ, তার ৪০ শতাংশই যুক্তরাষ্ট্রের। নিজেদের প্রতিরক্ষা বরাদ্দ ১.১ শতাংশ কমাতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছিল। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হিসেবে কার্যভার গ্রহণ করার পর আমেরিকা আদৌ প্রতিরক্ষা ব্যয় কমাবে কি না, তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলের সংশয় রয়েছে।

১৯ হাজার ১৭৫ কোটি ডলার সামরিক খাতে বরাদ্দ করে দ্বিতীয় স্থানে চীন। তৃতীয় স্থানে থাকা যুক্তরাজ্যের গত এক বছরে সামরিক খাতে বরাদ্দ ছিল ৫ হাজার ৩৮০ কোটি ডলারের বেশি। আর প্রায় ৫ হাজার ৭০ কোটি ডলার বরাদ্দ করে চতুর্থ স্থানে ভারত।

সমীক্ষা সংস্থা জানায়, সামরিক খাতে বিভিন্ন দেশ যে ভাবে খরচ বিপুল বাড়িয়ে দিয়েছে, তা থেকেই ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার ছবিটা স্পষ্ট হচ্ছে। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সমীকরণ এবং আঞ্চলিক বিবাদকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা সবচেয়ে বেশি এশিয়ায়। তাই এই মহাদেশেই গত এক বছরে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে প্রতিরক্ষা বরাদ্দ। তবে অন্যান্য অঞ্চলও খুব পিছিয়ে নেই।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে সামরিক খাতে খরচ সবচেয়ে বেশি বেড়েছে এশিয়ায়। চীন ও ভারত তালিকায় সবার আগে। ২০১০ সাল পর্যন্ত চীনের প্রতিরক্ষা বাজেট ছিল ১২ হাজার ৩০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি। গত ছয় বছরে তা বাড়তে বাড়তে ইতোমধ্যেই ২০ হাজার কোটি ডলারের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে। ২০২০ সাল নাগাদ ২৩ হাজার কোটি ডলার ছাড়িয়ে যাবে চীনের সামরিক ব্যয়।

ভারতের সামরিক ব্যয় ২০১০ সাল নাগাদ ছিল ২২০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি। গত ছয় বছরে তা বাড়তে বাড়তে ৫ হাজার ১০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা বাজেট। আইএইচএস জেন’স বলছে, পাউন্ডের দাম যে ভাবে কমছে, তাতে ২০১৮ সালের মধ্যে ভারতের সামরিক ব্যয় যুক্তরাজ্যের চেয়েও বেশি হয়ে যাবে। সামরিক খাতে ব্যয়ের নিরিখে ভারত তখন তৃতীয় স্থানে উঠে আসবে।

প্রতিরক্ষা বরাদ্দের নিরিখে ভারতের ঠিক পিছনেই আর এক এশীয় দেশ— সৌদি আরব। তাদের বরাদ্দ ৪৯০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি।

আন্তর্জাতিক তালিকায় অষ্টম স্থানে রয়েছে জাপান। প্রতিরক্ষা খাতে জাপান ২০১৬ সালে খরচ করেছে প্রায় ৪২০০ কোটি ডলার। দশম স্থানেও এক এশীয় দেশ— দক্ষিণ কোরিয়া। চলতি বছরে তারা খরচ করেছে ৩৩০০ কোটি ডলারের কাছাকাছি।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের যৌথ প্রতিরক্ষা বরাদ্দ প্রায় ২২ হাজার কোটি ডলারের মতো। যদিও ইউরোপের সবক’টি দেশ এই হিসেবের অন্তর্ভুক্ত। ব্রিটেন, রাশিয়া, ফ্রান্স এবং জার্মানির প্রতিরক্ষা বরাদ্দ যোগ করলেই ১৮ হাজার কোটি ডলারের বেশি হয়। অর্থাৎ অন্য ইউরোপীয় দেশগুলির বরাদ্দ নগণ্যই। সবচেয়ে পিছিয়ে পূর্ব ও দক্ষিণ ইউরোপের দেশগুলি। সূত্র: আনন্দবাজার।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর