রাজউকের এটা শেষ সুযোগ: দুদক চেয়ারম্যান ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ
রাজউকের এটা শেষ সুযোগ: দুদক চেয়ারম্যান ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-১২-১৪ ২২:৩৫:১৩
প্রিন্টঅ-অ+


কাজের মাধ্যমেই রাজউককে জনগণের আস্থা অর্জন করতে হবে। যেসব অভিযোগ উঠেছে সেগুলোর নিষ্পত্তি করতে হবে। দ্রুত অভিযোগের নিষ্পত্তি না হলে রাজউকের বিরুদ্ধে নেওয়া হবে আইনি ব্যবস্থা। এটাই রাজউকের ‘লাস্ট চান্স’। রাজউক নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আয়োজিত গণশুনানিতে এসব কথা বলেছেন দুদকের কমিশনার ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ।

রাজধানীর কাকরাইলে অবস্থিত ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধা মিলনায়তনে বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) এই গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। রাজউকের বিরুদ্ধে আনা নানা অভিযোগ নিয়ে এটি দুদকের আয়োজনে দ্বিতীয় গণশুনানি। এর আগে চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে রাজউক নিয়ে প্রথমবারের মতো গণশুনানির আয়োজন করে দুদক। প্রথম গণশুনানির মতো দ্বিতীয় গণশুনানিতেও রাজউকের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ নিষ্পত্তিতে দৈন্যদশা ফুটে ওঠে।

অভিযোগ নিষ্পত্তিতে রাজউকের এ বেহাল দশা দেখে বুধবারের গণশুনানিতে প্রচণ্ড ক্ষোভ প্রকাশ করেন ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ। সমাপনী বক্তৃতায় তিনি বলেন, ‘রাজউকের জন্য এটাই লাস্ট চান্স। আজ যেসব অভিযোগ শুনলাম, এগুলোরও ফলোআপ করব। দ্রুত অভিযোগ নিষ্পত্তি না হলে কেস-টু-কেস অনুসন্ধান করে আইনি ব্যবস্থা নেব। অভিযুক্তরা যে পদেই থাকুন, ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ২০১৭ সালে আমরা নতুন রাজউক দেখতে চাই।’

ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ তার বক্তব্যে বলেন, ‘কাজের মাধ্যমেই রাজউককে জনগণের আস্থা অর্জন করতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যাক্তি পর্যায়ের কার্যক্রমকে আরও স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতামূলক করতে হবে। রাজউকের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার জন্য তথ্য অধিকার আইনের প্রয়োগ তথা তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে।’ রাজউকের ওয়েবসাইটে সব তথ্য থাকলে অনেক সমস্যার সমাধন হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

রাজউক কর্মকর্তারা অনেক সময় সেবা গ্রহীতাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করে। এমন অভিযোগ প্রায়ই পাওয়া যায় জানিয়ে নাসিরউদ্দীন বলেন, ‘এটা কাঙ্ক্ষিত নয়। সংবিধান অনুযায়ী জনগণ সকল ক্ষমতার মালিক। তারাই প্রিন্সিপাল, সরকারি কর্মকর্তারা এজেন্ট মাত্র। তাই সেবাগ্রহীতাদের সঙ্গে ভালো আচরণ করবেন এবং আইন মেনে তাদের সমস্যার সমাধান আপনাদেরই করতে হবে।’

কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয় এবং কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না- এমন হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দুদক কমিশনার। তিনি বলেন, ‘আমরা দুর্নীতির বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করছি। আমরা যদি সুনির্দিষ্ট তথ্য পাই এবং তাতে দুর্নীতির উপাদান থাকে তাহলে আমরা প্রতিটি অভিযোগ আলাদা আলাদাভাবে অনুসন্ধান করব। শুধু প্রতিরোধ জন্য নয়, আমরা দুর্নীতি দমনও করব।’

দুদক আয়োজিত এই গণশুনানিতে সভাপতিত্ব করেন দুদকের কমিশনার ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. নাসিরউদ্দীন আহমেদ। গণশুনানির সঞ্চালনা করেন দুদকের মহাপরিচালক ফরিদ আহমেদ ভূঁইয়া ও ঢাকা বিভাগীয় পরিচালক নাসিম আনোয়ার। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে দুদকের এটা ৩৫তম গণশুনানি।

গণশুনানিতে দুদক কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আজকের গণশুনানির মাধ্যমে রাজউকের সার্বিক চিত্র প্রকাশ পেয়েছে। রাজউকের কর্মকর্তারা যে প্রতিশ্রুতি আজ দিলেন, সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী তারা এ অভিযোগুলো নিস্পত্তি করবেন। আমরা সরকারি সেবা প্রদানে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে চাই।’

রাজউক চেয়ারম্যান এম. বজলুল করিম চৌধুরী এ সময় বলেন, ‘জবাবদিহিতার মাধ্যমে আমাদের সেবা নিশ্চিত করতে হবে। আমরা আমাদের পুরো সেবা প্রক্রিয়া অটোমেশন করার কার্যক্রম হাতে নিয়েছি। আমাদের সব কার্যক্রমকে অটোমেশনের আওতায় আনতে পারলে অনেক সমস্যার সমাধান হবে।’ স্বচ্ছতা আনার জন্য প্রতি সোমবার রাজউকও নিয়মিত গণশুনানি করছে বলে জানান তিনি।

গণশুনানিতে ৪০ জন সেবাগ্রহীতা অভিযোগ পেশ করেন। এদের মধ্যে মোস্তফা জামান নামে উত্তরার এক বাসিন্দা রাজউকের অথরাইজড অফিসার মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে পাঁচ কোটি টাকা ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ আনেন। গাজী আবু তাহের নামে ৪৩/১২ পাইকপাড়ার বাসিন্দা অভিযোগ করেন, তার মালিকানাধীন জমিতে এক ভূমিদস্যু ভুয়া কাগজপত্র দেখিয়ে রাজউক থেকে নকশার অনুমোদন নিয়েছেন। এ বিষয়ে তিনি অভিযোগ করেও প্রতিকার পাননি। জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত প্রথম গণশুনানিতেও তিনি একই অভিযোগ করেছিলেন। রাজউক তার অভিযোগের প্রতিকার করেননি।

প্রতিটি অভিযোগ সম্পর্কে রাজউকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা তাদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেন গণশুনানিতে। প্রথম গণশুনানির অভিযোগকারীদের মধ্যে আবদুর রশীদ খান ও ডা. মো রেজাউল ইসলামের অভিযোগগুলো নিষ্পত্তি হয়েছে বলে জানানো হয় দ্বিতীয় গণশুনানিতে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর