ঢাকা ক্লাবে কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে প্রকৌশলী আবদুস সবুরকে সংবর্ধনা
ঢাকা ক্লাবে কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে প্রকৌশলী আবদুস সবুরকে সংবর্ধনা
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-১২-০৬ ০৮:২৮:৩২
প্রিন্টঅ-অ+


ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন, বাংলাদেশের সম্মানী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন রাজধানীর রমনায় অবস্থিত ঢাকা ক্লাবে একটি আড়ম্বরপূর্ণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানে প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর ছাড়াও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত প্রেসিডিয়াম সদস্য জনাব ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি এবং লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপিকে সংবর্ধিত করে কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশন।

এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সাবেক খাদ্যমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত প্রেসিডিয়াম সদস্য জনাব ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইইবি প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মোঃ কবির আহমেদ ভূঞা।
বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী মোঃ হাবিবুর রহমান।

এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের সম্মানী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মোঃ নুরুজ্জামান এবং আইইবির সাবেক প্রেসিডেন্ট ও সাবেক রাজউক চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোঃ নুরুল হুদা।

"আজকের অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর। সম্প্রতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটিতে তিনি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। তার এই সাফল্য শুধু তার একার নয়, এই সাফল্য আমাদের সমগ্র প্রকৌশলী সমাজের সাফল্য। তাই, আমি কৃতজ্ঞতা জানাই বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার প্রতি যিনি আমাদের সহকর্মী ও প্রকৌশলীদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনের অগ্রসৈনিক মোঃ আবদুস সবুরকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত করায়"- আজকের অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি প্রকৌশলী মোঃ নুরুজ্জামান তার বক্তব্যে এ কথা বলেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আইইবি প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মোঃ কবির আহমেদ ভূঞা আজকের এই আড়ম্বরপূর্ণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি আয়োজনের জন্য কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশনকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।
তিনি বলেন, "প্রথমেই আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমাদের সহকর্মী মোঃ আবদুস সবুরকে কেন্দ্রীয় কমিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত করায়। শুনেছি, মন্ত্রিত্বের চেয়েও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে সুযোগ পাওয়া কষ্টসাধ্য; এই পদ এতটাই গুরুত্ব বহন করে"!
এসময় আইইবি প্রেসিডেন্ট বলেন, "আমলাদের কাছে আমাদের প্রকৌশলীরা বন্দী। যোগ্যতা এবং দক্ষতায় অনেক এগিয়ে থাকলেও আমলাদের দৌরাত্ম্যের কারনে আমাদের প্রকৌশলী ভাইদের সামনে এগিয়ে যাবার গতি শ্লথ হয়ে যাচ্ছে। অথচ ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর যে রূপকল্প তা বাস্তবায়নে আমরা প্রকৌশলীরাই অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করছি। আমলারা আমাদের প্রকৌশলী ভাই ও বোনদের পদোন্নতি পর্যন্ত আটকে দিচ্ছে এবং অনেক ক্ষেত্রে প্রকৌশলীদের জায়গায় তারা নিজেরাই আসীন হচ্ছে। তাই আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নবনির্বাচিত প্রেসিডিয়ামদ্বয়ের কাছে আমার অনুরোধ আপনারা এই ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নিবেন"।

এরপর অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নবনির্বাচিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুর।
তিনি বলেন, "আজকের এই আড়ম্বরপূর্ণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি আয়োজনের জন্য আমি কৃতজ্ঞতা জানাই কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশনকে, ধন্যবাদ জানাই উপস্থিত সকল প্রকৌশলী ভাই বোনদের। আমি আরও কৃতজ্ঞতা জানাই বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যিনি এই পদের জন্য আমাকে যোগ্য একজন হিসেবে বিবেচনা করেছেন এবং নির্বাচিত করেছেন"
এসময় তিনি আরও বলেন, "বিজয়ের মাসে আমি গর্ব করেই বলতে চাই আমি আমার ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের একজন একনিষ্ঠ কর্মী এবং পরবর্তীতে নেতা হিসেবে ছিলাম। যেই ছাত্রসংগঠন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়ে উঠেছে এবং ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে এই ছাত্রসংগঠনটির নেতা কর্মীরা রক্ত দিয়ে একটি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের জন্য যুদ্ধ করেছিলেন"।
অনুষ্ঠানের আরেক সংবর্ধিত অতিথি লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি বলেন, "আদিমকাল থেকে বর্তমান কাল পর্যন্ত সারা বিশ্বে যে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে তার কৃতিত্বের সবচেয়ে বড় ভাগীদার আপনারা প্রকৌশলীরা। কিন্তু আপনাদের কথায় এটি স্পষ্ট যে আপনারা বৈষম্যের শিকার। আমি কথা দিচ্ছি আমরা যারা সরকারের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে রয়েছি আমরা আপনাদের এই সমস্যাগুলোর কথা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পৌঁছে দেব"।
এ সময় তিনি আরও বলেম, "মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রকৌশলীদের প্রতি প্রায়ই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। যখনই প্রয়োজন হয়েছে তখনই তিনি আপনাদের ডেকেছেন আর আপনারা নেত্রীর ডাকে সাড়া দিয়েছেন, তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন..."।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত প্রেসিডিয়াম সদস্য জনাব ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি প্রথমেই ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নবনির্বাচিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মোঃ আবদুস সবুরকে।
তিনি বলেন, "সবচেয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীরাই প্রকৌশল বিষয়ে পড়াশোনা করে এবং প্রকৌশল পেশা বেছে নেয়। উন্নত বিশ্বে প্রকৌশলীরা সমাদৃত কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হলেও সত্য আমাদের দেশের প্রকৌশলীরা তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী প্রাপ্য সম্মানটুকু পান না"।
এর সমাধান হিসেবে তিনি বলেন, "আমলাদের এই দৌরাত্ম্য তখনই বন্ধ হবে যখন আপনারা পেশাজীবীরা আবারও প্রকৃচি আন্দোলনকে বেগবান করে তুলবেন"।
এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন কুয়েট ইঞ্জিনিয়ার্স এসোসিয়েশনের মাননীয় সভাপতি এম এম আবুল হোসেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

প্রকৌশল সংবাদ এর অারো খবর