জমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ ৩ গুণ হচ্ছে
জমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ ৩ গুণ হচ্ছে
২০১৬-১২-০৬ ০৫:৩০:৫৮
প্রিন্টঅ-অ+


স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ বা হুকুম দখল করলে ক্ষতিপূরণের অর্থ দেড়গুণ থেকে তিনগুণ বাড়িয়ে স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল আইন, ২০১৬ এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই আইন অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

সচিব জানান, যেহেতু আইনটি ভূমি সংক্রান্ত। জটিলতা থাকায় মন্ত্রিসভায় আইনটি নিয়ে বিস্তারিত পর্যালোচনার জন্য আইনমন্ত্রীকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্য হিসেবে রয়েছে ভূমি সচিব ও প্রতিরক্ষা সচিব। কমিটি মনে করলে আরও সদস্য অন্তর্ভুক্ত করতে পারবে।

তিনি বলেন, খসড়া আইনে জমি অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে জনপ্রয়োজন ও জনস্বার্থের কথা বলা হয়েছে। দুটি শব্দ সত্যিকার অর্থে কি বোঝায় তা বিশ্লেষণ করে যেন আইনে সন্নিবেশ করা হয়, সেজন্য কমিটিকে বলা হয়েছে। আইনে যা আছে তা দিয়ে শব্দ দুটির অর্থ বিস্তারিতভাবে বোঝা যাচ্ছে না। তাই মন্ত্রিসভা মনে করে, এসব বিষয়ে আরও পরিষ্কার হওয়া উচিত। এ বিষয়ে হাইকোর্টের আরও কিছু পর্যবেক্ষণ রয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ বাড়ানোর প্রস্তাব অনেকদিন ধরেই আলোচনায় ছিল। আইনটি কার্যকর হলে জমি অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে কিছু পরিবর্তন আসবে। জমির ক্ষতিপূরণ দেড়গুণ থেকে বেড়ে তিনগুণ হবে। অধিগ্রহণ করা জমির মূল দাম যদি এক কোটি টাকা হয়, নতুন আইন অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক এর সাথে আরও (২০০ ভাগ) ৩ কোটি টাকা পাবেন।

ওই এলাকার জমির ১২ মাসের দলিলের ব্যয় গড় পর্যালোচনা করে ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করা হবে। বিদ্যমান ১৯৮২ সালের আইনে ক্ষতিগ্রস্তরা অর্ধেক টাকা পেতেন।

তিনি আরও বলেন, জমি অধিগ্রহণের বর্তমান অধ্যাদেশটি ১৯৮২ সালের। সেটাকেই মোটামুটি বাংলায় নিয়ে আসা হয়েছে। এতে জমির ক্ষতিপূরণ কম। এছাড়াও আইনটি সামরিক শাসন আমলে করা। কোর্টের আদেশই আছে সামরিক শাসন আমলের আইনকে বাংলায় অনুবাদ করে নতুনভাবে করতে হবে। এজন্য নতুন আইনটি করা হয়েছে।

এছাড়াও বৈঠকে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক (সংশোধন) অধ্যাদেশ আকারে জারির প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। সংসদ না থাকায় গত ২১ নভেম্বর এ অধ্যাদেশের গেজেটে জারি করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জন আইন-২০১৬ এর খসড়াও চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

আইন ও অধিকার এর অারো খবর