ফের বিতর্কে ফেসবুক, জুকারবার্গকেও বানালো মৃত!
ফের বিতর্কে ফেসবুক, জুকারবার্গকেও বানালো মৃত!
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-১১-১২ ১৮:৫০:২৮
প্রিন্টঅ-অ+


কেউ মারা গেলে তার আইডিটি মুছে না দিয়ে নামের পাশের লেখা আসে ‘রিমেম্বারিং’। আর এজন্য মৃত ব্যক্তির পরিচিতদের অনুসরণ করতে হয় বেশ কয়েকটি ধাপ। এই ‘রিমেম্বারিং’ সার্ভিসের জন্য ফের বিতর্কে পড়েছে ফেসবুক।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের পর ট্রাম্পের বিজয়ের জন্য ফেসবুককে দায়ী করেন অনেকেই। সেই বিতর্কের জবাবে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা জুকাবার্গ নিজেই বলেন, ‘ট্রাম্পের বিজয়ে ফেসবুকের হাত নেই।’

তবে এবারের ‘ভুলে’ ভুক্তভোগী তিনি নিজেও। গতকাল শুক্রবার বেশ কিছু সময়ের জন্য দেখা যায়, বিভিন্ন মানুষের প্রোফাইলের উপর একটি লেবেল সাঁটিয়ে বলা হয়েছে, এই মানুষটিকে স্মরণ করছে ফেসবুক। মৃত হিসেবে চিহ্নিত করা মানুষদের মধ্যে এমনকি ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গও রয়েছেন।

পরে ব্যবহারকারীদের তাদের বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয় পরিজনকে নিশ্চিত করার জন্য নতুন করে স্ট্যাটাস লিখে জানাতে হয়েছে যে ‘তারা মরেন নাই’।

এটিকে একটি মারাত্মক ভুল হিসেবে স্বীকার করে নিয়ে ফেসবুকের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ভুল শোধরানো হয়েছে। ‘এমন একটি ঘটনা ঘটার জন্য আমরা দুঃখিত’।
অবশ্য এই ঘটনাটির একটি মজার দিকও খুঁজে বের করছেন অনেকে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রতি ইঙ্গিত করে দ্য ভার্জ নামের প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট লিখছে, ‘ফেসবুক আমেরিকার ইতিহাসের দীর্ঘতম সপ্তাহটির ইতি টানল সবাইকে এই বলে যে, তারা মারা গেছে’।
বেশ কিছু ঘটনায় মৃত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যরা তাদের মৃত আত্মীয়ের ফেসবুক প্রোফাইলে প্রবেশ করার সুযোগ চাইলে গত বছর ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এই মেমোরিয়াল সেবাটি চালু করে।

অবশ্য এই সেবাটি ব্যবহার করে একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী আগাম ঠিক করে যেতে পারবেন, তিনি কি মৃত্যুর পর তার ফেসবুক পাতাটিকে স্মারক হিসেবে বন্ধুদের জন্য রেখে দিতে চান নাকি চান যে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তার পাতাটিকে মুছে দিক।

সূত্র : বিবিসি

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর