ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নেওয়া উচিত: হিলারি
ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নেওয়া উচিত: হিলারি
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-১১-১০ ০৫:১৫:১৪
প্রিন্টঅ-অ+


মার্কিন নিবার্চনে নিজের পরাজয় মেনে নিয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। পরাজিতের ভাষণে (কনসেশন স্পিচ) হিলারি বলেছেন, নির্বাচনের রায় মেনে নিয়ে ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেনে নেওয়া উচিত। স্থানীয় বুধবার সকাল সাড়ে দশটায় নিউ ইয়র্কের একটি হোটেলে এ ভাষণ দেন হিলারি। ট্রাম্পের কাছে হেরে যাওয়ার পর এটাই হিলারির প্রথম প্রকাশ্য ভাষণ।

উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে হিলারি ভাষণ শুরু করেন। এ সময় সবাই হাততালি দিয়ে তাকে অভ্যর্থনা জানান। হিলারি বলেন, ‘সবাইকে ধন্যবাদ। আমিও আপনাদের সবাইকে ভালোবাসি। গত রাতে আমি ট্রাম্পকে শুভেচ্ছা জানিয়েছি। দেশের হয়ে তার সঙ্গে কাজ করতে চেয়েছি। আমি আশাকরি, তিনি আমাদের দেশের সবার প্রেসিডেন্ট হবেন...।’

নির্বাচনে হেরে যাওয়াতে দুঃখপ্রকাশ করেন হিলারি। বলেন, নির্বাচনে আমরা জয়ী না হওয়ার আমি দুঃখিত। আমি জানি এটার মূল্য আমাদের কাছে কেমন। আপনারা আমেরিকার শ্রেষ্ঠ মানুষেরা, আপনাদের প্রার্থী হওয়াটা আমার জীবনে পাওয়া শ্রেষ্ঠ সম্মান। আমি জানি, আপনারা কেমন হতাশ। কারণ হতাশ আমিও...। এটা দুঃখজনক এবং তা দীর্ঘদিন থাকবে। কিন্তু আমি আপনাদের মনে করিয়ে দিতে চাই, আমাদের প্রচারণা কোনও এক ব্যক্তির ছিল না কখনও... এটা ছিলো আমরা যে দেশকে ভালোবাসি তাকে গড়ে তোলার জন্য... আমরা যতো ভাবতাম তারচেয়ে বেশি ও গভীরে বিভক্ত আমাদের দেশ।’

ভাষণে ক্লিনটন জানান, বৈষম্যবিরোধী এবং আইনের চোখে সবার সমতা নিশ্চিত করার জন্য নির্বাচনি প্রচারণায় যে অবস্থান নিয়েছেন সেগুলোকে শ্রদ্ধা ও ঊর্ধ্বে তুলে ধরার জন্য। তিনি বলেন, ‘আমরা দেড়টি বছর লাখ লাখ মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য পরিশ্রম করেছি। আমরা মনে আমেরিকান স্বপ্ন সবার জন্যই সত্য। নারী, পুরুষ, এলজিবিটি, প্রতিদ্বন্দ্বী সবার জন্য। নাগরিক হিসেবে আমাদের দায়িত্ব আমেরিকাকে শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে নিজেদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা।’

নিজের রানিংমেট টম কেইন ও হল্টনকে ধন্যবাদ জানান হিলারি। কেইন সিনেটে ফিরে যাওয়াতে নিজের সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন তিনি। ওবামা দম্পতির উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনাদের প্রতি আমাদের দেশ কৃতজ্ঞ। দেশকে দৃঢ়ভাবে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য আপনাদের কাছে আমরা ঋণী।

স্বামী বিল ক্লিনটন ও মেয়ে চেলসির উদ্দেশে হিলারি বলেন, আমি যা প্রকাশ করি তারচেয়ে বেশি ভালোবাসি তোমাদের। আমার হয়ে তোমরা সংকট পার করেছো, যখন প্রয়োজন পাশে থেকেছো।

নিজের প্রচারণা টিমের মেধাবী ও নিবেদিতপ্রাণ কর্মী ও দলের অর্থ দাতাদেরও ধন্যবাদ জানান তিনি। যে সংগ্রাম তিনি শুরু করেছিলেন প্রচারণার সময় তাতে বিশ্বাস না হারানোর জন্য আহ্বান জানান তিনি।

নিজের প্রচারণা টিমের মেধাবী ও নিবেদিতপ্রাণ কর্মীদেরও ধন্যবাদ জানান তিনি। নারীদের প্রতি হিলারি বলেন, ‘এই প্রচারণা ও আমার ওপর যেসব নারী বিশ্বাস রেখেছিলেন তাদের আমি বলতে চাই যে, আপনাদের চ্যাম্পিয়ন হতে পারার চেয়ে বড় কোনও গর্বের কথা আমি জানি না। আমি জানি, আমরা সবচেয়ে কঠিন ও সর্বোচ্চ চূড়ায় যেতে পারিনি। কিন্তু আমি জানি, কোনও দিন কোনও একজন সেখানে পৌঁছাবে। আশাকরি, এখন আমরা যেমন ভাবছি তার চেয়েও দ্রুত হবে তা।’

ছোট্ট মেয়েদের প্রতি হিলারি বলেন, ‘যেসব ছোট্ট মেয়েরা এই ভাষণ দেখছো তোমরা কখনও নিজেদের গুরুত্ব নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করো না। তোমাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে যেতে সব সুযোগ পাওয়ার অধিকার তোমাদের রয়েছে।’

ক্লিনটন জানান, এই ভাষণ দেওয়ার জন্য তিনি সম্মানীত ও কৃতজ্ঞবোধ করছেন। যুক্তরাষ্ট্র ও দেশটির মানুষের মঙ্গলকামনা করে ভাষণ শেষ করেন হিলারি। এরপর তিনি মঞ্চের সবার কোলাকুলি শেষে নেমে যান।

উল্লেখ্য, সব নির্বাচনি জরিপ আর বিশেষজ্ঞদের ধারণাকে মিথ্যে প্রমাণ করে হিলারির পরিবর্তে ডোনাল্ড ট্রাম্পকেই প্রেসিডেন্ট হিসেবে বেছে নিয়েছেন মার্কিনিরা। মঙ্গলবারের ভোটের মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট হতে প্রয়োজনীয় ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট ২৭০-এর বেশি পেয়েছেন ট্রাম্প। হিলারি পেয়েছেন ২১৮টি ভোট। অথচ সব জরিপে ভোটের দিনও এগিয়ে ছিলেন হিলারি। সূত্র: গার্ডিয়ান।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর