ই-মেইল কেলেঙ্কারি থেকে নিষ্কৃতি পেলেন হিলারি, চাঙ্গা ডেমোক্র্যাট শিবির
ই-মেইল কেলেঙ্কারি থেকে নিষ্কৃতি পেলেন হিলারি, চাঙ্গা ডেমোক্র্যাট শিবির
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-১১-০৭ ২৩:০৯:১৬
প্রিন্টঅ-অ+


গতকাল পর্যন্তও হিলারি-সংশ্লিষ্ট মেইল পুন:তদন্তে নেওয়া এফবিআইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে চলছিলো জল্পনাকল্পনা। রিপাবলিকানপন্থী কিছু মিডিয়া আর বুদ্ধিজীবী বলতে চাইছিলেন, ফেঁসে যেতে পারেন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। পড়তে পারেন মামলার কবলে। তবে রবিবার (৬ অক্টোবর) হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে নতুন তদন্তের নাটকীয় সমাপ্তি টেনেছে এফবিআই। নির্বাচনের ১১ দিন আগে পুনঃতদন্ত শুরুর ঘোষণার সময় স্পর্শকাতর তথ্য পাওয়ার কথা জানালেও এদিন (রবিবার) এফবিআই প্রধান জেমস কোমি জানিয়েছেন, নতুন তদন্তে হিলারির বিরুদ্ধে অপরাধের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাই জুলাইয়ে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল রাখছেন তারা। শেষ মুহূর্তের নির্বাচনি জরিপগুলোতে যখন ডোনাল্ড ট্রাম্প আর হিলারির হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস মিলছে, তখন এফবিআই এর অভিযোগ থেকে নিষ্কৃতি পাওয়াটা হিলারির জন্য বড় ধরনের স্বস্তি বলে মনে করা হচ্ছে। খবরটি তাৎক্ষণিকভাবে ডেমোক্র্যাট শিবিরে উল্লাস বয়ে এনেছে। বিপরীতে ক্ষুব্ধ ট্রাম্প শিবির। এফবিআই আটদিনে কিভাবে সাড়ে ছয় লাখ ইমেইল পর্যালোচনা করতে সমর্থ হলো, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্বয়ং রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ট্রাম্প। অবশ্য জেমস কোমি বলছেন, হুমা আবেদীনের স্বামী অ্যান্থনির ল্যাপটপে হিলারির পুরো সাড়ে ছয় লাখ ইমেইলের সবগুলোকে তারা তদন্তের আওতায় আনেননি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে কেবল হিলারির আদানপ্রদানকৃত মেইলগুলোকে তদন্তের আওতায় নিয়েছেন তারা।

৮ নভেম্বরের নির্বাচনের মাত্র দুই দিন আগে এফবিআই প্রধান ঘোষণা দেন, ‘হিলারি ক্লিনটন পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে তার কাছে আসা এবং তার পাঠানো সব ই–মেইল আমরা তদন্ত করেছি। গত জুলাইয়ে হিলারি ক্লিনটনের বিষয়ে নেওয়া সিদ্ধান্ত আমরা পরিবর্তন করছি না।’

এফবিআইএর সিদ্ধান্তে এখন ডেমোক্র্যাট শিবির চাঙ্গা। রবিবার এফবিআই-এর নিষ্কৃতির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে হিলারি ক্লিনটনের প্রচারণা শিবির। হিলারির প্রচারণা শিবিরের যোগাযোগ পরিচালক জেনিফার পালমিয়েরি বলেন, ‘তদন্তে তিনি যা পেয়েছেন, তাতে আমরা আনন্দিত। আমরা এ ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে, তিনি তদন্ত করে এটাই পাবেন। আমরা আনন্দিত যে, এ বিষয়ের একটা সমাধান হয়েছে।’
Vision Led ad on bangla Tribune
এফবিআইয়ের জুলাইয়ের সিদ্ধান্ত অপরিবর্তিতহিলারির ‘কেলেঙ্কারির অবসানে’ চাঙ্গা ডেমোক্র্যাট শিবির, ক্ষুব্ধ ট্রাম্প
বিদেশ ডেস্ক১৬:১৭, নভেম্বর ০৭, ২০১৬
572

সমর্থকদের সঙ্গে হিলারি
গতকাল পর্যন্তও হিলারি-সংশ্লিষ্ট মেইল পুন:তদন্তে নেওয়া এফবিআইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে চলছিলো জল্পনাকল্পনা। রিপাবলিকানপন্থী কিছু মিডিয়া আর বুদ্ধিজীবী বলতে চাইছিলেন, ফেঁসে যেতে পারেন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন। পড়তে পারেন মামলার কবলে। তবে রবিবার (৬ অক্টোবর) হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে নতুন তদন্তের নাটকীয় সমাপ্তি টেনেছে এফবিআই। নির্বাচনের ১১ দিন আগে পুনঃতদন্ত শুরুর ঘোষণার সময় স্পর্শকাতর তথ্য পাওয়ার কথা জানালেও এদিন (রবিবার) এফবিআই প্রধান জেমস কোমি জানিয়েছেন, নতুন তদন্তে হিলারির বিরুদ্ধে অপরাধের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাই জুলাইয়ে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল রাখছেন তারা। শেষ মুহূর্তের নির্বাচনি জরিপগুলোতে যখন ডোনাল্ড ট্রাম্প আর হিলারির হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস মিলছে, তখন এফবিআই এর অভিযোগ থেকে নিষ্কৃতি পাওয়াটা হিলারির জন্য বড় ধরনের স্বস্তি বলে মনে করা হচ্ছে। খবরটি তাৎক্ষণিকভাবে ডেমোক্র্যাট শিবিরে উল্লাস বয়ে এনেছে। বিপরীতে ক্ষুব্ধ ট্রাম্প শিবির। এফবিআই আটদিনে কিভাবে সাড়ে ছয় লাখ ইমেইল পর্যালোচনা করতে সমর্থ হলো, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্বয়ং রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ট্রাম্প। অবশ্য জেমস কোমি বলছেন, হুমা আবেদীনের স্বামী অ্যান্থনির ল্যাপটপে হিলারির পুরো সাড়ে ছয় লাখ ইমেইলের সবগুলোকে তারা তদন্তের আওতায় আনেননি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে কেবল হিলারির আদানপ্রদানকৃত মেইলগুলোকে তদন্তের আওতায় নিয়েছেন তারা।

৮ নভেম্বরের নির্বাচনের মাত্র দুই দিন আগে এফবিআই প্রধান ঘোষণা দেন, ‘হিলারি ক্লিনটন পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে তার কাছে আসা এবং তার পাঠানো সব ই–মেইল আমরা তদন্ত করেছি। গত জুলাইয়ে হিলারি ক্লিনটনের বিষয়ে নেওয়া সিদ্ধান্ত আমরা পরিবর্তন করছি না।’

এফবিআইএর সিদ্ধান্তে এখন ডেমোক্র্যাট শিবির চাঙ্গা। রবিবার এফবিআই-এর নিষ্কৃতির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে হিলারি ক্লিনটনের প্রচারণা শিবির। হিলারির প্রচারণা শিবিরের যোগাযোগ পরিচালক জেনিফার পালমিয়েরি বলেন, ‘তদন্তে তিনি যা পেয়েছেন, তাতে আমরা আনন্দিত। আমরা এ ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে, তিনি তদন্ত করে এটাই পাবেন। আমরা আনন্দিত যে, এ বিষয়ের একটা সমাধান হয়েছে।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প

বিপরীতে কেলেঙ্কারি থেকে হিলারির নিস্কৃতির সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ ট্রাম্প শিবির। তাদের দাবি, ব্যাপক রাজনৈতিক চাপের কারণে এফবিআই প্রধান এ কাজ করতে বাধ্য হয়েছেন। রবিবার মিশিগানে এক নির্বাচনি সমাবেশে যোগ দিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আটদিনে সাড়ে ছয় লাখ ইমেইল আপনারা পর্যালোচনা করতে পারেন না। আপনারা এটা করতে পারেন না। হিলারি ক্লিনটন দোষী।’

মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকোর প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রাম্প এফবিআই-এর পুনঃতদন্তের আওতায় হিলারির যত সংখ্যক ইমেইল থাকার কথা উচ্চারণ করেছেন তা ভুল। কেননা, এফবিআই প্রধান জেমস কোমি জানিয়েছিলেন, হুমা আবেদীনের স্বামী অ্যান্থনির ল্যাপটপে হিলারির পুরো সাড়ে ছয় লাখ ইমেইল তারা পর্যালোচনা করেননি। পর্যালোচনা করেছেন কেবল হিলারির আদানপ্রদানকৃত মেইলকে।
উল্লেখ্য, হিলারি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালে ২০০৯-২০১৩ সাল পর্যন্ত ব্যক্তিগত সার্ভার থেকে ইমেইল আদান-প্রদান করেছিলেন। দীর্ঘ সময় ধরে আদান-প্রদান করা ইমেইলগুলোতে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ অনেক বিষয়েরও উল্লেখ ছিল। যুক্তরাষ্ট্রে সরকারের নিয়ন্ত্রিত চ্যানেল ছাড়া ক্লাসিফায়েড তথ্য আদান-প্রদানের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এ ধরনের অনিরাপদ চ্যানেলের মাধ্যমে অতি গোপনীয় ইমেইল ফাঁস হওয়াকে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি বলে মনে করে মার্কিন সরকার। খবরটি প্রকাশ হওয়ার পর ঘটনার তদন্তে নামে এফবিআই। গত ২৯ জানুয়ারিতে সংস্থাটির অনুরোধে হিলারির ২২টিরও বেশি ইমেইলকে ‘অতি গোপনীয়’ বলে ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর। আর জুলাই মাসে প্রথম ধাপের তদন্ত শেষ করে এফবিআই জানিয়েছিল হিলারিকে অভিযুক্ত করা হচ্ছে না। সম্প্রতি ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে এফবিআই-এর নতুন করে তদন্ত শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়। এর ৮ দিনের মাথায় জুলাইয়ের সিদ্ধান্ত অপরিবর্তিত রাখার ঘোষণা এলো এফবিআইএর তরফ থেকে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, নির্বাচনের আগ মুহূর্তে এসে হিলারি ক্লিনটনের প্রচারণা শিবির এফবিআই-এর কাছ থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার সুযোগকে কাজে লাগাবে। অন্যদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্প অনবরত হিলারির বিরুদ্ধে অভিযোগ করে যাবেন। হিলারিকে দুর্নীতিবাজ হিসেবে উল্লেখ করে যাবেন তিনি। অবশ্য এরইমধ্যে ট্রাম্প বলতেও শুরু করেছেন যে, হিলারিকে বাঁচাতে এফবিআই জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর