বব ডিলানের নোবেল পাওয়া নিয়ে লেখকদের মধ্যে বিভক্তি
বব ডিলানের নোবেল পাওয়া নিয়ে লেখকদের মধ্যে বিভক্তি
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-১০-১৫ ০৪:২৫:০৬
প্রিন্টঅ-অ+


কিংবদন্তির মার্কিন গীতিকার ও সংগীতশিল্পী বব ডিলানের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পাওয়া নিয়ে লেখকদের মধ্যে বিভক্তি দেখা দিয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

সাহিত্যে এবারের নোবেল পুরস্কার জিতেছেন ডিলান। বৃহস্পতিবার স্টকহোমে এই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। ‘আমেরিকার মহান সংগীত-ঐতিহ্যে নতুন কাব্যিক অভিব্যক্তি সৃষ্টির জন্য’ ডিলানকে এই পুরস্কার দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে নোবেল কমিটি।

সাহিত্যে ডিলানের নোবেল পুরস্কার পাওয়ার বিষয়টিকে ব্যতিক্রমী ও বিস্ময়কর ঘটনা হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। কারণ, কোনো গান রচয়িতাকে এ যাবৎ নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়নি। এত দিন কবি আর ঔপন্যাসিকদের একচ্ছত্র দখলে ছিল সাহিত্যে নোবেল।

ডিলানের নোবেল পুরস্কার পাওয়া নিয়ে লেখকদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কেউ নোবেল কমিটির সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন। আবার কেউবা করেছেন প্রশংসা।

নোবেল কমিটির প্রতি ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ফরাসি ঔপন্যাসিক পিয়েরে অ্যাসোউলিন। তিনি বলেছেন, আগে কয়েকবার ডিলানের নাম এসেছিল। তবে তা কৌতুক মনে হয়েছিল।

ফরাসি এই ঔপন্যাসিক বলেন, ‘নোবেল কমিটির এই সিদ্ধান্ত লেখকদের প্রতি অবমাননাকর। আমি ডিলানকে পছন্দ করি। কিন্তু তাঁর সাহিত্যকর্ম কোথায়? সুইডিশ একাডেমি নিজেদের হাস্যকর করে তুলেছে বলে মনে করি।’

স্কটিশ ঔপন্যাসিক আরভিন ওয়েলসও সমালোচকদের দলে। তিনি তাঁর টুইটারে এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন।

ডিলানের নোবেল জয়ে ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক সালমান রুশদি উচ্ছ্বসিত। তিনি টুইটারে লিখেছেন, অসাধারণ বাছাই। সংগীত ও কাব্য ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত।

ষাটের দশকের বিখ্যাত সংগীতশিল্পী ম্যারিয়ান ফেইথফুল আপ্লুত হয়েছেন ডিলানের অর্জনে। তিনি বলেন, বন্ধু ডিলানের জন্য তিনি খুবই গর্বিত।

ফেইথফুল বলেন, ‘আমি মনে করি, তিনি (ডিলান) বিশ্বের অন্যতম মহান শিল্পী। তিনি তাঁর লেখনী ও কাব্যে আমাদের পুরো জীবন বদলে দিয়েছেন।’

সাহিত্যে ডিলানের নোবেল জয় নিয়ে যোগাযোগের সামাজিক মাধ্যমেও পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তিতর্ক চলছে।

ডিলানকে সাহিত্যে নোবেল দেওয়ার সিদ্ধান্তে অনেকের যে ভ্রু কুঁচকে যাবে, তা আয়োজকেরা আগাম অনুমান করেছেন। এ কারণে পুরস্কার ঘোষণার সময় সুইডিশ একাডেমির স্থায়ী সচিব সারা ড্যানিয়ুস বলেন, তিনি আশা করছেন, এই সিদ্ধান্তের জন্য একাডেমিকে সমালোচনা করা হবে না।

ড্যানিয়ুস আরও বলেন, ডিলানকে বেছে নেওয়া বিস্ময়কর মনে হতে পারে বটে। তবে পেছন ফিরে তাকালে গ্রিক কবি হোমার ও সাপফোকে দেখা যাবে। তাঁরা কাব্যিক লেখা লিখেছেন, যেগুলো লেখা হয়েছে কেবল শোনার জন্য, পরিবেশনের জন্য, মাঝে মাঝে যন্ত্রানুষঙ্গে। বব ডিলানের ক্ষেত্রে একই কথা খাটে। তাঁকে পড়াও যায় এবং পড়াই উচিত। ইংলিশ ঐতিহ্যমাফিক তিনি এক মহান কবি।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

শিল্প সাহিত্য এর অারো খবর