বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো দেওয়া হলো উদ্ভাবনী পুরস্কার
বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো দেওয়া হলো উদ্ভাবনী পুরস্কার
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-১০-১১ ১৭:২২:৫৩
প্রিন্টঅ-অ+


নতুন ডিজিটাল উদ্ভাবনকে স্বীকৃতি দিতে ব্র্যাকের উদ্যোগে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো দেওয়া হলো উদ্ভাবনী পুরস্কার মন্থন অ্যাওয়ার্ড। ভারতের ডিজিটাল এমপাওয়ারমেন্ট ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় পুরস্কার বিজয়ী ৮ উদ্যোগ নিয়ে এই ফিচার:

তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষের জীবনশৈলীতে স্পন্দন এনে দেওয়া ব্যতিক্রমী উদ্যোগকে বরাবরই প্রণোদনা দিয়ে আসছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডিজিটাল এমপাওয়ারমেন্ট ফাউন্ডেশন। এ বছর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যৌথভাবে বাংলাদেশের ১৪ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হলো তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সম্মানজনক স্বীকৃতি মন্থন অ্যাওয়ার্ড। গত ৮ অক্টোবর কৃষি, ব্যবসায়, শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন, গণমাধ্যম, সংস্কৃতি-স্বাস্থ্য ও পর্যটন, সরকার এবং স্বাস্থ্য খাতে অভিনব প্রাযুক্তিক ব্যবহারের মাধ্যমে মোট ৭টি ক্যাটাগরিতে এই সম্মাননা দেওয়া হয়।


কৃষকের জানালা :কৃষকদের ফসলের নানা সমস্যার দ্রুত ও কার্যকরভাবে সমাধান দেওয়ার একটি ডিজিটাল প্রয়াস কৃষকের জানালা । এখানে ছবি দেখে কৃষক/ব্যবহারকারী ফসলের যে কোনো সমস্যা চিহ্নিত করতে পারেন এবং চিহ্নিত ছবিতে ক্লিক করলেই সমস্যার সমাধান মনিটরে ভেসে ওঠে। কেবল ওয়েবে নয়, বিনামূল্যে মোবাইলে কল করে সেবা নেওয়া যাচ্ছে। গ্রামাঞ্চলে ২৪৫টি কৃষি তথ্য ও যোগাযোগ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। চালু করা হয়েছে কৃষি ও কমিউনিটি রেডিও। তৈরি করা হয়েছে মোবাইল অ্যাপস। সরাসরি ১৬১২৩ এবং ৬৭৬৭ নম্বর দুটির মাধ্যমে সমাধান পাচ্ছেন কৃষক। ময়মনসিংহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মো. আবদুল মালেক উদ্ভাবিত এই অনন্য উদ্যোগের জন্য মন্থন সম্মাননা পদক জিতেছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

প্রথম ডিজিটাল ইউনিয়ন :ওয়েবসাইটের মাধ্যমে গত অর্থবছর থেকে ইউনিয়ন পরিষদের সব নাগরিক সেবা গ্রামের মানুষের দোরগোড়ায় পেঁৗছে দিচ্ছেন সিলেট বিয়ানীবাজারের উপজেলার মাথিউরা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিন। তার উদ্যোগের ফলে মাথিউরা এখন দেশের প্রথম ডিজিটাল ইউনিয়নের খেতাব পেয়েছে। এবার জুটেছে মন্থন পদক। স্বয়ংক্রিয়ভাবে কর প্রদানের তথ্য যাচাই সুবিধা দিতে ভ্যাট চেকার উদ্ভাবনে একই ক্যাটাগরিতে স্বীকৃতি পেয়েছেন জুবায়ের হোসেন।

উইমেন ইন ডিজিটাল :প্রযুক্তি খাতে মেয়েদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন ত্বরান্বিত করতে অবদান রাখায় ই-উইম্যান বিভাগে মন্থন পদক জিতেছেন আছিয়া খালেদা নীলা। ই-কমার্স ও আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে নারীর কর্মসংস্থান তৈরিতে অনবদ্য ভূমিকা রাখছে তার প্রতিষ্ঠিত ওমেন ইন ডিজিটাল বাংলাদেশ। ওয়েব সংযোগের মাধ্যমে ১৭ জেলা ও ৪টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে তাদের কার্যক্রম। দেশের বাইরে অস্ট্রেলিয়া, নেপাল, সুইডেন, ভারত রয়েছে ওম্যান ইন ডিজিটাল চ্যাপ্টার। এ চ্যাপ্টারের অধীনে ঢাকা, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, রংপুর, দিনাজপুর, লক্ষ্মীপুর, যশোর, বাগেরহাট ইত্যাদি এলাকায় মেয়েদের তৈরি কুটির শিল্প ই-কমার্সের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বময়।

ই-টিউন : তথ্যপ্রযুক্তির ছোঁয়ায় এরই মধ্যে সংবাদপত্র, সাংবাদিকতা ও বিনোদন পেয়েছে বহুমাত্রিকতা। এই অঙ্গনে ব্যতিক্রমী আর উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে সম্মানিত হয়েছে রুটস জার্নালিজম, ই-টিউনস, দ্য ঢাকা টাইমস, প্যাভিলিয়ন ও কুইজার্ডস। এর মধ্যে বিচারকদের রায়ে ই-টিউন ও প্যাভিলিয়ন পেয়েছে সর্বোচ্চ সম্মাননা। অনলাইনে গানের মেধাস্বত্ব সংরক্ষণের প্রথম আইনসিদ্ধ অনলাইন প্লাটফর্ম ই-টিউন। এই প্লাটফর্ম শাহজাদা রেদওয়ান সিটিও জানান, ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড, বিকাশ করে এখান থেকে গায়ক-গায়িকাদের মূল গান সহজেই ডাউনলোড করা যায়।

পর্যটনে প্রযুক্তি :সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও পর্যটন খাতে প্রযুক্তির ব্যবহারের অভিনব উদ্যোগকেও স্বাগত জনাতেও দেওয়া হয় মন্থন পুরস্কার। এবার এই ক্যাটাগরিতে যুগ্মভাবে সম্মানিত হয়েছেন খান মোহাম্মাদ ফয়সাল ও যুবায়ের বিন আমিন। আকালিকো রেকর্ডের মাধ্যমে তড়িৎ তরঙ্গ প্রকৌশলের মাধ্যমে গান কম্পোজের সুবিধা উদ্ভাবনের জন্য ফয়সল এবং ট্রাভেল বুকিং সেবা ভ্রমণ প্রকল্পের জন্য আমিন এই পুরস্কার লাভ করেন।

শিক্ষা-কর্মসংস্থানে প্রযুক্তি :শিক্ষা-বিজ্ঞান ও কর্মসংস্থান ক্যাটগরিতে মন্থন সম্মাননা জিতেছে তিনটি উদ্যোগ। এগুলো হলো_ রিপটো এড্যুকেশ সেন্টার, ১০ মিনিট স্কুল ও ইয়্যুথ অপরচুনিটি। এর মধ্যে ১০ মিনিট স্কুল একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম যেখান থেকে জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি শিক্ষার্থী, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ইচ্ছুক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্যে বিস্তারিত শিক্ষা সমাধান অফার করছে।

ই-ব্যবসায় :ব্যবসায় ও আর্থিক কার্যক্রমে প্রযুক্তির টেকসই ব্যবহার করে যুগ্মভাবে এবারের মন্থন পদক জিতেছে সেলিসকোপ ও সিএসএল মোবাইল অ্যাকাউন্ট। অভিনব উদ্ভাবন বিষয়ে হিউম্যাক ল্যাবের সিইও মুবির মাহমুদ চৌধুরী জানান, সেলিসকোপ হচ্ছে ওয়েব ও মোবাইলভিত্তিক একটি সলিউশন। এটি দিয়ে ডিস্ট্রিবিউশন বেসড প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যয় সংকোচনের মাধ্যমে আয় বাড়বে।

আরএক্স ৭১ :তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে দেশের স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে মন্থন জিতেছে এক্স ৭১ নামক একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। এ বিষয়ে আরএক্স ৭১ লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন বলেন, দেশের মানুষকে স্বাস্থ্যসচেতন করতে, রোগ সম্পর্কে সাধারণ ধারণা দিতে এবং জরুরি মুহূর্তে কোনো চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে সে বিষয়ক দরকারি তথ্য সরবরাহ করে যাচ্ছে আরএক্স ৭১। গত পাঁচ মাসে তিন লাখের বেশি মানুষ ৪০ লাখের বেশি এই সেবা উপভোগ করেছেন।
(ইমদাদুল হক )

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

ফিচার এর অারো খবর