‘অনার কিলিং’-এর ফোঁকর বন্ধ করেছে পাকিস্তান
‘অনার কিলিং’-এর ফোঁকর বন্ধ করেছে পাকিস্তান
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-১০-০৭ ১৮:৩২:০৯
প্রিন্টঅ-অ+


পাকিস্তানে আইনের এক দুর্বলতা ব্যবহার করে কথিত ‘অনার কিলিং’ করেও পার পেয়ে যেত অপরাধীরা। অবশেষে ওই ফোঁকর বন্ধ করেছে দেশটির সরকার। নতুন এক আইনে হত্যাকারীদের জন্য বাধ্যতামূলক যাবজ্জীবনের বিধান রাখা হয়েছে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

পূর্বের আইনে ‘অনার কিলিং’-এর শিকার ব্যক্তির পরিবারের কোন সদস্য অপরাধীকে ক্ষমা করে দিলে তাকে শাস্তি পেতে হতো না। তবে নতুন করা আইনে বলা হয়েছে, ক্ষমা করার মাধ্যমে বড়জোর মৃত্যুদ- থেকে রেহাই পেতে পারে হত্যাকারী। তবে যাবজ্জীবন কারাদ- পেতেই হবে।

পাকিস্তানের কিছু সমাজে পরিবারের মেয়েদের প্রেম বা পরিবারের অনিচ্ছায় বিয়েকে পরিবারের জন্য সম্মানহানিকর ভাবা হয়। ফলে ওই মেয়েদের ওপর খোদ তার পরিবারই আক্রমণ করে বসে।

হিউম্যান রাইটস কমিশন অব পাকিস্তান (এইচআরসিপি) নামে একটি মানবাধিকার সংস্থার মতে, গত বছর দেশটিতে আত্মীয়দের হাতে প্রায় ১১০০ নারী অনার কিলিং-এর শিকার হয়েছে। অনেক ঘটনা কেউ জানেও না।

আগের আইনি দুর্বলতার সুযোগে অনার কিলিং-এর হোতারা পার পেয়ে যেত। কারণ, সাধারণত ভিকটিমের কোন আত্মীয়ই পরিবারের ‘সম্মান’ রক্ষার অজুহাতে হত্যা বা হত্যাচেষ্টা করে থাকে। পরে আবার ভিকটিমেরই পরিবার তাদের ক্ষমা করে দেয়। কেননা, হত্যাকারীও পরিবারেরই সদস্য। অর্থাৎ, এ ধরণের হত্যাকান্ডে পরিবারের এক ধরণের সম্মতি থাকে।

সাম্প্রতিক কয়েক মাসে কয়েকটি হাই-প্রোফাইল অনার কিলিং-এর ঘটনা পাকিস্তানে ও বিদেশের পত্রপত্রিকার শিরোনাম হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত বৃটিশ নারী সামিয়া শহীদ, যাকে জুলাইয়ে হত্যা করা হয়। অভিযোগ রয়েছে, পরিবারের অমতে দ্বিতীয় বিয়ে করায় তার পিতা ও সাবেক স্বামী এ হত্যাকা- ঘটিয়েছে। একই মাসে পাকিস্তানের সোস্যাল মিডিয়া সেলেব্রেটি কান্দিল বালুচকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এবার অভিযোগ তার আপন ভাইয়ের বিরুদ্ধে।

সংশোধিত নতুন আইনটি নিয়ে বৃহ¯পতিবার কয়েক ঘন্টা বিতর্ক হয় পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে। এরপর সর্বসম্মতিক্রমে আইনটি পাশ হয়। বেশ কয়েক বছর ধরেই দেশটির মানবাধিকার কর্মীরা নারীদের সহিংসতার হাত থেকে বাঁচাতে আরও কঠোর আইনি সুরক্ষার দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

পাকিস্তানি অ্যাক্টিভিস্ট ও চলচ্চিত্র নির্মাতা শারমিন ওবায়েদ এই বিল পাশের পেছনে জড়িতদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। অনার কিলিং নিয়ে তথ্যচিত্র নির্মান করে অস্কারজয়ী এই নির্মাতা বলেন, ‘রাতারাতি এর পরিবর্তন হবে না। কিন্তু সঠিক পথে এটি অবশ্যই একটি পদক্ষেপ।’ তবে অনেকে সতর্ক প্রতিক্রিয়াও দেখিয়েছেন। একটি হত্যাকা-কে অনার কিলিং হিসেবে বিবেচনা করা হবে কিনা, তার এখতিয়ার দেয়া হয়েছে বিচারককে। এ নিয়েও অনেকে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

আইন ও অধিকার এর অারো খবর