সার্ক সম্মেলন সফল করতে সহায়ক পরিবেশ তৈরির আহ্বান জানিয়েছে নেপাল
সার্ক সম্মেলন সফল করতে সহায়ক পরিবেশ তৈরির আহ্বান জানিয়েছে নেপাল
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৯-২৯ ১৯:৩৪:৪৮
প্রিন্টঅ-অ+


সব কয়টি সদস্য রাষ্ট্রের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার মাধ্যমে ১৯ তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলন সফল করতে শিগগিরই একটি সহায়ক পরিবেশ তৈরির আহ্বান জানিয়েছে নেপাল সরকার। চারটি দেশের বর্জনের কারণে ১৯ তম সার্ক সম্মেলন অনিশ্চয়তায় পড়ার পর বুধবার রাতে সার্কের বর্তমান সভাপতি দেশ নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ আহ্বান জানানো হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া খবরটি নিশ্চিত করেছে।
নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সার্কের বর্তমান সভাপতি দেশ হিসেবে নেপাল সরকার দৃঢ়ভাবে আহ্বান জানাচ্ছে যে সার্ক সনদের আলোকে ১৯ তম সম্মেলনে সব সদস্য রাষ্ট্রের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে শিগগিরই যেন একটি সহায়ক পরিবেশ তৈরি করা হয়।’
বাংলাদেশ, ভারত, আফগানিস্তান ও ভুটান যে ইসলামাবাদে অনুষ্ঠেয় ৯ ও ১০ নভেম্বরের সার্ক সম্মেলনে অংশ নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সার্ক সচিবালয়কে অবহিত করেছে তাও বিজ্ঞপ্তিতে নিশ্চিত করা হয়। বলা হয়, এ চারটি দেশ সম্মেলনে অংশ নেওয়ার ব্যাপারে অপারগতা জানিয়ে যে কূটনৈতিক নোট পাঠিয়েছে তা সার্ক সচিবালয় হয়ে নেপাল সরকারের হাতে পৌঁছেছে।
এর আগে বুধবার সন্ধ্যায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা সারতাজ আজিজ-কে উদ্ধৃত করে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো সার্ক সম্মেলন স্থগিতের খবরটি নিশ্চিত করেছিল।

বুধবার সরতাজ বলেছেন, ‘কোনও একটি সদস্য দেশ যদি অংশগ্রহণ না করে তবে সার্কের নিয়ম অনুযায়ী সম্মেলন স্থগিত করা হয়।’
তবে সম্মেলন স্থগিতের ব্যাপারে বলতে গিয়ে পাকিস্তান জানিয়েছে, কাশ্মির ইস্যুতে তাদের মৌলিক নীতিগত অবস্থানের কোনও বদল হবে না। সারতাজ আজিজ আরও বলেছেন, ‘স্থগিতকৃত সম্মেলন যদি কখনও অনুষ্ঠিত হয়, তো সেটা পাকিস্তানেই অনুষ্ঠিত হবে।’
উল্লেখ্য, আসছে নভেম্বরের ৯ তারিখে ওই সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে মঙ্গলবার রাতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে যাচ্ছে না। পাশাপাশি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এক খবরে জানায়, ভারত, আফগানিস্তান ও ভুটান সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সার্ক সম্মেলনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের কারণ হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের হস্তেক্ষেপকে দায়ী করেন। আর সরাসরি পাকিস্তানের নামোল্লেখ না করলেও ইসলামাবাদের দিকে ইঙ্গিত করে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা বিকাশ স্বরুপ মঙ্গলবার তার টুইটে সম্মেলনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত সম্পর্কে নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘সার্কের বর্তমান সভাপতি দেশ নেপালের কাছে ভারত জানিয়েছে, আন্তঃসীমান্ত অঞ্চলে সন্ত্রাসী হামলা বৃদ্ধি এবং অভ্যন্তরীণ বিষয়ে লাগাতার একটি সদস্য দেশের হস্তক্ষেপের ফলে যে পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে, তা ১৯তম সার্ক সম্মেলন করতে ইসলামাবাদের জন্য সহায়ক নয়।’

সম্মেলন স্থগিতের ঘোষণা আসার আগে ভেন্যু পরিবর্তন করার মধ্য দিয়ে সার্ক শীর্ষ সম্মেলন নিয়ে তৈরি হওয়া সংকট নিরসনের চেষ্টা চলছে বলে খবর দেয় এক ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। সম্মেলনে অংশ না নেওয়ার সিদ্বান্তের পেছনে আফগানিস্তানের পক্ষ থেকে অভ্যন্তরীণ অস্থিতিশীলতার কথা বলা হলেও, বর্জনকারী ভারত-বাংলাদেশ আর ভুটান এজন্য পাকিস্তানকেই দায়ী করছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সেই কারণেই পাকিস্তানের বাইরে সার্কভুক্ত অন্য কোনও দেশে সম্মেলন করার কথা ভাবা হচ্ছে। তবে সার্কের নিয়ম অনুযায়ী সম্মেলনের আয়োজক দেশের অনুমোদন ছাড়া ভেন্যু পরিবর্তন সম্ভব নয়। নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব জাবিন্দ্র আরিয়ালও পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডনকে বলেন, সম্মেলন হবে কি হবে না তা আয়োজক দেশই সিদ্ধান্ত নেবে। সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর