‘অজ্ঞাত পরিচয়ে’ কল্যাণপুরের ৯ জঙ্গির মরদেহ দাফন
‘অজ্ঞাত পরিচয়ে’ কল্যাণপুরের ৯ জঙ্গির মরদেহ দাফন
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৯-২৯ ০২:৫৮:৫১
প্রিন্টঅ-অ+


‘অজ্ঞাত পরিচয়’ হিসেবে দাফন করা হলো কল্যাণপুরে নিহত নয়জন সন্দেহভাজন জঙ্গির মরদেহও। নিহত হওয়ার দুই মাস পরে আজ বুধবার জুরাইন কবরস্থানে আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামের মাধ্যমে তাঁদের দাফন করা হয়।
তবে নিহত নয়জনের মধ্যে আটজনেরই পরিচয় ঘটনার দুদিনের মধ্যে গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। পরিবারগুলোও জানিয়েছিল, তাদের ছেলেরা নিখোঁজ ছিলেন।
এর আগে ২২ সেপ্টেম্বর ‘অজ্ঞাত পরিচয়’ হিসেবে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁর সন্দেহভাজন পাঁচ হামলাকারী জঙ্গি ও এক রেস্তোরাঁকর্মীর মরদেহ জুরাইন কবরস্থানেই দাফন করা হয়। তাঁদেরও সবার পরিচয় ঘটনার পরপরই জানা গিয়েছিল।

গত ২৬ জুলাই ভোরে কল্যাণপুরের ৫ নম্বর রোডে জাহাজ বাড়ি হিসেবে পরিচিত ‘তাজ মঞ্জিল’ জঙ্গি আস্তানায় ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সোয়াট দলের অভিযানে সন্দেহভাজন নয় জঙ্গি নিহত হন। নিহত জঙ্গিদের আটজনের পরিচয় ঘটনার এক দিন পরেই জানা যায়। এ আটজন হলেন ঢাকার শেহজাদ রউফ অর্ক, আকিফুজ্জামান খান ও তাজ-উল হক রাশিক, সাতক্ষীরার মতিয়ার রহমান, দিনাজপুরের আবদুল্লাহ, পটুয়াখালীর আবু হাকিম নাইম, নোয়াখালীর জোবায়ের হোসেন এবং রংপুরের রায়হান কবির। পরে এঁদের মধ্যে সাতজনের পরিবারকে ডেকে ডিএনএ নমুনা মেলানো হয়। তবে শেষ পর্যন্ত বেওয়ারিশ হিসেবে মরদেহগুলো দাফনের জন্য আজ আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলামকে দেওয়া হয়। এর আগ পর্যন্ত মরদেহগুলো ঢাকা মেডিকেল মর্গের হিমঘরে ছিল।

আজ বেলা সোয়া ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গ থেকে নয় জঙ্গির মরদেহ দাফনের জন্য গ্রহণ করেন কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা। সেখানে আঞ্জুমান মুফিদুলের কর্মকর্তারাও ছিলেন। মর্গ থেকে কাফনের কাপড় পরিয়ে পুলিশি প্রহরায় তিনটি পিকআপ ভ্যানে করে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মরদেহগুলো জুরাইন কবরস্থানে নেওয়া হয়। মরদেহগুলো নেওয়ার আগে থেকেই দুই সারিতে নয়টি কবর খোঁড়ার কাজ শুরু হয়। লাশগুলো ভ্যান থেকে নামানোর পরে সেখানেই নয়টি মরদেহের জানাজা একসঙ্গে হয়। জানাজায় অল্পসংখ্যক কবরস্থান কর্মী ও আঞ্জুমানের কয়েকজন কর্মী অংশ নেন। জানাজা পড়ান জুরাইন কবরস্থানের ইনচার্জ শোয়াইব হোসেন। জোহরের নামাজের পর মরদেহগুলোকে দাফন করা হয়। এ সময় নিহত জঙ্গিদের কারও স্বজন সেখানে ছিলেন না।

কবরস্থানের ইনচার্জ শোয়াইব হোসেন জানান, কবরস্থানের নিবন্ধন খাতায় এ মরদেহগুলোর নাম-পরিচয়ের জায়গায় ‘অজ্ঞাত পরিচয় পুরুষ’ লেখা হয়েছে। এঁদের সবার বয়স ২২ থেকে ২৬ বছরের মধ্যে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর