ক্লিন এনার্জি বিষয়ে লেকশোর হোটেলে সেমিনার অনুষ্ঠিত
ক্লিন এনার্জি বিষয়ে লেকশোর হোটেলে সেমিনার অনুষ্ঠিত
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৯-২১ ২৩:৫২:২১
প্রিন্টঅ-অ+


গত কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশ বহির্বিশ্বে তৈরি পোশাকের অন্যতম পছন্দসই রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে পরিচিতি পেয়ে আসছে। বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি এই খাতটি। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বস্ত্রশিল্প খাত থেকে মোট আয়ের পরিমাণ ৩১ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। খুব সহজেই অনুমেয় বস্ত্র শিল্প খাতের উত্তরোত্তর এই অগ্রগতির পেছনে রয়েছে উন্নত প্রযুক্তি এবং ভারি যন্ত্রপাতি। আর এসব ভারী যন্ত্রপাতি চালনায় ব্যয় হয় প্রচুর বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাসের মত শক্তি। কিন্তু যথাযথ জ্ঞানের অভাবে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অপচয় হয় এসব শক্তি যা উৎপাদন খরচ বৃদ্ধির পাশাপাশি উৎপাদনের গতিও অনেকাংশে হ্রাস করে। তাই, পন্যের উৎপাদন যত বেশিই হোক না কেন মালিকেরা বঞ্চিত সর্বোচ্চ মুনাফা অর্জন করতে।
বর্তমান বিশ্বে এই সমস্যার সমাধান হল ‘ক্লিন এনার্জি’ বা পরিশুদ্ধ শক্তি। পারিপার্শ্বিকের দূষণ না করে এবং বিদ্যুৎ ও অন্যান্য শক্তির উৎসের অপচয় না করে পণ্যের উৎপাদনই সাধারণভাবে পরিশুদ্ধ শক্তি হিসেবে পরিচিত। আর এই ক্লিন এনার্জি বাংলাদেশের বিভিন্ন শিল্প উৎপাদন খাতে কতটা কার্যকরী ভূমিকা রাখছে এবং ভবিষ্যতে তার রূপরেখা কেমন হতে পারে সে বিষয়ে আজ ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ বুধবার রাজধানীর গুলশানের লেকশোর হোটেলে ইউএস এইডের পৃষ্ঠপোষকতায় ‘Catalyzing Clean Energy in Bangladesh’s Activities & Stakeholder’s Engagement in Industrial EE’শীর্ষক একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন ইন্সটিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মোঃ কবির আহমেদ ভূঞা।
Catalyzing Clean Energy in Bangladesh (CCEB) এটি USAID এর আর্থিক সহায়তায় পরিচালিত ১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি প্রকল্প যা বাংলাদেশে স্বল্প গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃসরণ এবং শিল্পখাতে ক্লিন এনার্জির ব্যবহার বৃদ্ধির পাশাপাশি শক্তির কার্যকারিতা বৃদ্ধি এবং শক্তি সংরক্ষণে সহায়তা করছে ২০১২ সাল থেকে। আর ক্লিন এনার্জি বিষয়ে বিশেষজ্ঞ জনশক্তি গড়ে তুলতে CCEB হতে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিয়োগ করা হয় ক্লিন এনার্জি অডিটর যারা এই শিল্প সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে পরামর্শ প্রদান করেন কীভাবে ক্লিন এনার্জি উৎপাদন খরচ কমিয়ে উৎপাদন বৃদ্ধি করতে পারে।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আইইবি’র সম্মানী সভাপতি কবির আহমেদ ভূঞা অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এর আগে তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন, “ বিভিন্ন শিল্পে ক্লিন এনার্জি ব্যবহার এখন সময়ের দাবী। আমরা শিল্প উৎপাদন বাড়াতে গিয়ে হেভি মেশিনারিজ ব্যবহার করছি যা পরিচালনার জন্য প্রয়োজন বিপুল পরিমানে বিদ্যুৎ পানির মত অত্যন্ত প্রয়োজনীয় শক্তি। কিন্তু এসব শক্তি অপচয়ের কারনে এক্ষেত্রে লাভের চেয়ে ক্ষতির পরিমাণই বেশি হচ্ছে। ক্লিন এনার্জি কীভাবে ব্যবহার করতে হবে তা যদি আপনারা সবাইকে জানাতে পারেন বোঝাতে পারেন আমার বিশ্বাস মানুষ এটি ব্যবহারে অনেক আগ্রহী হবে”
অন্যপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। কিন্তু এতে আত্মতুষ্টিতে ভোগার কোন সুযোগ নেই। কারন আমার মনে হয় আমাদের উন্নতির গতি আরও ত্বরান্বিত হত যদি সঠিক জায়গায় সঠিক লোক থাকতেন। শুধুমাত্র আমাদের প্রশাসনিক পর্যায়ে যোগ্য লোকের অভাবেই আমরা পিছিয়ে পড়ছি। একটি ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান দেখা যাচ্ছে রাষ্ট্রবিজ্ঞান থেকে পাশ করে বেরিয়েছেন কিংবা বাংলা বিভাগ থেকে পাশ করে বেরিয়েছেন। তারা কীভাবে বুঝবেন কোন প্রকৌশলী কতটা যোগ্য বা কোন কাজটাকে কতটা প্রাধান্য দিতে হবে?”
তিনি উল্লেখ করেন, “আর আমাদের দেশে এখন বিশেষজ্ঞের অভাব নেই। সরকার কোন উন্নয়ন প্রকল্প হাঁতে নিলেই একটা পক্ষ তার বিরোধিতা করে বিশেষজ্ঞ বনে যায়। সেদিন আমাদের আইইবি’তে এক সেমিনারে দেখলাম বাংলা বিভাগ থেকে পাশ করা একজন জ্বালানী বিষয়ে বিশেষজ্ঞ!... তারা বলে রামপাল প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে সুন্দরবন নাকি ছাইয়ে ঢেকে যাবে। আমার জানা মতে রামপালে যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে তাতে ৯৯.৯ শতাংশ ছাই ধরে রাখা হবে। তো এই বক্তব্য নিতান্তই কাল্পনিক”।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে CCEB’র কার্যক্রম এবং Association of Energy Engineers Chapter বিষয়ে আলোচনা করেন সনদপ্রাপ্ত এনার্জি অডিটর ইঞ্জিনিয়ার এস.এম মাহমুদ হাসান।
ওয়েলমেক ইঞ্জিনিয়ারিং এর প্রধান নির্বাহী এবং সনদপ্রাপ্ত এনার্জি অডিটর ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আলিম অত্যন্ত সাবলীলভাবে সকলের সামনে কীভাবে শিল্পখাতে ক্লিন এনার্জির ব্যবহার বৃদ্ধির পাশাপাশি শক্তির কার্যকারিতা বৃদ্ধি এবং শক্তি সংরক্ষণ করা যায় তার রূপরেখা তুলে ধরেন।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে ক্লিন এনার্জি ব্যবহার বিষয়ে অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন তারাসিমা অ্যাপারেলসের নির্বাহী পরিচালক লে. কর্নেল(অবসরপ্রাপ্ত) হাসান মাহমুদ, মেগাটেক ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেডের ব্যবস্থাপক একেএম মোয়াজ্জেম হোসেন, নিক্সমো টেক লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক বশির ভূঞাসহ আরও অনেকে।
অনুষ্ঠানের শেষে সদ্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত Clean Energy Auditor (CAE) দের সনদ প্রদান করা হয়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

প্রকৌশল সংবাদ এর অারো খবর