ব্রেকিং নিউজ বিজয় দিবসে দি ইঞ্জিনিয়ার্স-এর সকল পাঠক-পাঠিকা, গ্রাহক-অনুগ্রাহক, বিজ্ঞাপনদাতা, দেশবাসী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।
অক্টোবরে ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৬’
অক্টোবরে ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৬’
ডেস্ক রিপোর্ট
২০১৬-০৯-২০ ০৮:১০:১৮
প্রিন্টঅ-অ+


অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ভিশন ২০২১ এর লক্ষ্য অর্জন, তথ্য প্রযুক্তিতে বাংলাদেশের সক্ষমতা প্রদর্শন এবং তথ্য প্রযুক্তির অর্থনৈতিক সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর জন্য অক্টোবরে ঢাকায় ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৬’প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।

সোমবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড ২০১৬ এর উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে জানানো হয়, এবারও দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা প্রদর্শনীতে অংশ নেবে। এই ইভেন্টের মাধ্যমে আইসিটি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ আরো একধাপ এগিয়ে যাবে।

উপদেষ্টা কমিটির সভাপতি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান এবং আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বেসিসের সভাপতি মোস্তফা জব্বারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

‘নন স্টপ বাংলাদেশ’প্রতিপাদ্য নিয়ে আগামী ১৯-২১ অক্টোবর রাজধানীর বারিধারায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) এ প্রদর্শনী চলবে। এ লক্ষ্যে কাজ পুরোদমে এগিয়ে চলছে। বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল ও বেসিস এর দুটি টিম সেখানে কাজ করছে।

প্রদর্শনীতে ১২টি সেমিনার হবে। এতে ৫০ জন বিদেশি বক্তা থাকবেন বলে আশা করছেন আয়োজকরা। আশা করা যাচ্ছে, এবারের প্রদর্শনীতে ৩ লাখ দর্শনার্থীর আগমন হবে। প্রদর্শনীটি যৌথভাবে আয়োজন করছে আইসিটি বিভাগ বাংলাদেশ, সহযোগী আয়োজক বিসিসি, বেসিস এবং এটুআই।

বৈঠকে বেসিসের সহ-সভাপতি রাসেল টি. আহমেদ একটি পাওয়ার পয়েন্টে কিছু তথ্য উপস্থান করেন। এ সময় জানানো হয়, ২০১৮ সালে ১০০ কোটি এবং ২০২১ সালে ৫০০ কোটি ডলারের সফটওয়্যার রপ্তানির লক্ষ্য নিয়ে তৃতীয়বারের মতো এ প্রদর্শনীর আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

এই অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নের জন্য সাংগঠিনক কমিটিসহ আটটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে- উদ্বোধনী, সমাপনী ও ইভেন্ট ব্যবস্থাপনা উপকমিটি, প্রদর্শনী উপকমিটি, অভ্যর্থনা, প্রটোকল ও লজিস্টিক উপকমিটি, সেমিনার ও কর্মশালা উপকমিটি, যোগাযোগ ও প্রকাশনা উপকমিটি, সম্মাননা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিষয়ক উপকমিটি, ফিন্যান্স ও স্পন্সর উপকমিটি, স্বাস্থ্য উপকমিটি, নিরাপত্তা/প্রটোকল উপকমিটি।

বৈঠকে জানানো হয়, এবারের প্রদর্শনীতে আইসিটি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ কোথায় ছিল, কোথায় আছে এবং কোথায় যেতে চায় সে বিষয়গুলো সম্পর্কে দিকনির্দেশনা পাওয়া যাবে।

এর আগের দুটি প্রদর্শনী থেকে অর্জন সম্পর্কে বৈঠকে বলা হয়, ডিজিটাল বাংলাদেশের ব্র্যান্ড ইভেন্ট হিসেবে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড সফলভাবে উপস্থাপন হয়েছে। বাংলাদেশের সফটওয়্যার এবং আইটি শিল্পকে বিশ্বের কাছে স্বমহিমায় উপস্থাপন এবং বাংলাদেশের সফটওয়্যার পণ্য ও সেবার আন্তর্জাতিক বাজারের বিস্তৃতি লাভ করেছে। বিগত তিনটি ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডেও প্রোগ্রামের মাধ্যমে আইটি শিল্পের বিটুবি ম্যাচমেকিং এর ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে। বিশেষ করে, সহযোগিতা চুক্তি, বিদেশে কাজের সুযোগ, দেশের আইটি ক্ষেত্রে বৈদেশিক বিনিয়োগ উল্লেখযোগ্য।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর

top
ব্রেকিং নিউজ বিজয় দিবসে দি ইঞ্জিনিয়ার্স-এর সকল পাঠক-পাঠিকা, গ্রাহক-অনুগ্রাহক, বিজ্ঞাপনদাতা, দেশবাসী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের জানাই আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।
facebook
Advertisement