কুমিল্লার প্রথম জয় মাশরাফির ব্যাটে
কুমিল্লার প্রথম জয় মাশরাফির ব্যাটে
সংগীতা ঘোষ
২০১৫-১১-২৪ ১৮:৫৫:৩১
প্রিন্টঅ-অ+


বিপিএলে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে সাত উইকেটের দাপুটে জয়ে আসরে প্রথম জয়ের তুলে নিল মাশরাফি বিন মুর্তজার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। চিটাগংয়ের দেয়া ১৭৭ রানের লক্ষ্য ৭ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখেই টপকে যায় কুমিল্লা। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন দলপতি মাশরাফি।
১৭৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেই মসৃণ হয়নি কুমিল্লার। ১০ রানেই দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও লিটন দাসকে হারিয়ে চাপে পড়ে যায় মাশরাফিবাহিনী। তাদের দুজনকেই ফিরিয়ে দেন মোহাম্মদ আমির।
তবে মারলন স্যামুয়েলসের সঙ্গে যুক্ত হয়ে চাপ সামাল দেয়া চেষ্টা করেন শুভাগত হোম। দলীয় ৫৪ রানের মাথায় ১৬ বলে ৩০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে শফিউল ইসলামের বলে দিলশানকে ক্যাচ দেন শুভাগত। এরপরই ব্যাট হাতে নেমে পড়েন অধিনায়ক মাশরাফি।
নিজের ব্যাটকে তরবারির মতো চালাতে থাকেন চিটাগংয়ের বোলারদের উপর। ৩২ বলে ৫৬ রান করে জয় নিশ্চিত করে তবেই মাঠ ছাড়েন নড়াইল এক্সপ্রেস। ৩টি ছয় আর ৪টি চারের মারে সাজানো ছিল তার মহাগুরুত্বপূর্ণ ইনিংসটি। তার যোগ্য সঙ্গ দিয়ে যান মারলন স্যামুয়েলস। ৪টি চার ও ২টি ছয়ে ৫২ বলে ৬৯ রান করেন স্যামুয়েলস। দুজনের অবিচ্ছিন্ন ১২৩ রানের জুটিতে প্রতিযোগিতায় প্রথম জয় পেল কুমিল্লা।
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ চিটাগং ভাইকিংস। জিয়াউর রহমান ও আনামুল হক বিজয়ের ব্যাট থেকে আসে সমান ৩৯ রান। এছাড়া দিলশানের ব্যাট থেকে আসে ৩৬ রান। আর প্রথম দুই ম্যাচে অর্ধশতক হাঁকানো তামিম করেন ৩৩ রান। কুমিল্লার সফলতম বোলার আশার জাইদির শিকার ২ উইকেট। একটি করে উইকেট নেন মাশরাফি ও নারাইন।
বল হাতে ১ উইকেট ও ব্যাট হাতে ৫৬ রানের অবিস্মরণীয় ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন মাশরাফি বিন মুর্তজা।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

ক্রীড়া এর অারো খবর