১৮ মাস ধরে শুন্য রাজউকের ‘পরিকল্পনা প্রধান’ পদ!
১৮ মাস ধরে শুন্য রাজউকের ‘পরিকল্পনা প্রধান’ পদ!
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৯-১৯ ১৮:১২:২০
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) পরিচালনা পর্ষদে গত দেড় বছর ধরে ‘পরিকল্পনা প্রধান’পদটি শূন্য রয়েছে। নগরীর পরিকল্পিত উন্নয়নে পরিকল্পনা শাখাটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করলেও এ শাখার প্রধানের পদ পূরণে অবহেলার অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, প্রকৌশলী শেখ আবদুল মান্নান গত বছর ২ এপ্রিল বদলি হয়ে অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে যাওয়ার পর রাজউকের সদস্য (পরিকল্পনা) পদটি শূন্য হয়ে পড়ে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে পদ পূরণের জন্য রাজউকের উন্নয়ন শাখার সদস্য প্রকৌশলী আবদুর রহমানকে এ পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়। তখন থেকে তিনি এক সঙ্গে দু’টি শাখার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আরও জানা গেছে, রাজউকের সদস্য (পরিকল্পনা) পদটি পূরণের জন্য কয়েক মাস আগে এক কর্মকর্তাকে বদলি করা হলেও তিনি কাজে যোগদান না করে অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে যান। এরপর থেকে সরকারের পক্ষ থেকেও কোনও তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়নি।

এ বিষয়ে পরিকল্পনাবিদ মো. এমদাদুল ইসলাম বলেন, ‘দেড় বছর ধরে রাজউকের পরিকল্পনা শাখার সদস্য পদটি শূন্য রাখা মোটেও ঠিক নয়। কারণ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পরিকল্পনা সংশোধনে একজন ভাল মানের পরিকল্পনাবিদ রাজউকের জন্য খুবই প্রয়োজন।’

রাজউকের পরিচালক (প্রশাসন) দুলাল কৃষ্ণ সাহা বলেন, ‘সদস্য (পরিকল্পনা) পদে কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ার জন্য আমরা মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছি।’

রাজধানী ঢাকাকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে ১৯৫৩ সালের দি টাউন ইম্প্রুভমেন্ট অ্যাক্ট অনুযায়ী ১৯৫৭ সালের ৮ আগস্ট প্রতিষ্ঠা করা হয় ‘ঢাকা ইম্পুভমেন্ট ট্রাস্ট’ বা ডিআইটি। ১৯৮৭ সালের ৩০ এপ্রিল ডিআইটির নতুন নামকরণ হয় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ তথা রাজউক।

জানা গেছে, দি টাউন ইম্প্রুভমেন্ট অ্যাক্ট-১৯৫৩ এর দ্বিতীয় অধ্যায়ের ৪ ধরায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে একজন চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে সর্বোচ্চ পাঁচজন সদস্য নিয়ে কর্তৃপক্ষ গঠনের কথা বলা হয়েছে। এ জন্য একজন চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে রয়েছে ‘পরিচালনা পর্ষদ’। পর্ষদের ‘সদস্য’ পাঁচ জন। প্রত্যেক সদস্য একটি শাখার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। শাখাগুলোর মধ্যে রয়েছে- পরিকল্পনা, উন্নয়ন, উন্নয়ন নিয়ন্ত্রণ, প্রশাসন ও অর্থ এবং এস্টেট। পর্ষদ সদস্যরা সরকারের যুগ্মসচিব ও অতিরিক্ত সচিব পদমর্যাদার কর্মকর্তা।

দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের মতে, যেহেতু নগরীর পরিকল্পিত উন্নয়নে রাজউক কাজ করছে, সেহেতু এই পরিকল্পনা শাখাকেই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে ধরা হয়। কিন্তু গত দেড় বছর ধরে এই শাখার প্রধান বা সদস্য না থাকায় পরিকল্পনা প্রণয়নে সমস্যা হচ্ছে।

জানা গেছে, বর্তমানে বহুল আলোচিত ডিটেইল্ড এরিয়া প্ল্যানের (ড্যাপ) সংশোধনের কাজ চলছে। এ ছাড়া সিটি রিজিওনাল ডেভেলপমেন্ট প্লান (সিআরডিপি) নামের আর একটি পরিকল্পনার খসড়া তৈরি করা হয়েছে। এ দু’টি পরিকল্পনা নিয়েই বির্তক রয়েছে। গত বছর ঢাকার দুই মেয়রসহ নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা সিআরডিপি সম্পর্কে বিভিন্ন ত্রুটির কথা উল্লেখ করেছেন। সুষ্ঠু নগরায়নের জন্য এসব ত্রুটি সংশোধন করতে হবে। এ কাজে নেতৃত্ব দেওয়ার কথা পরিকল্পনা শাখার সদস্যের। কিন্তু পদটি শূন্য থাকায় এসব কাজে গতি নেই। কারণ প্রতিটি সদস্যেরই নিজ নিজ শাখার কাজ রয়েছে।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর