টুইটে কেরির বাংলাদেশের অসাধারণ উন্নয়ন গল্পের প্রশংসা
টুইটে কেরির বাংলাদেশের অসাধারণ উন্নয়ন গল্পের প্রশংসা
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৮-৩০ ০৪:৫২:৪৩
প্রিন্টঅ-অ+


আট ঘণ্টার ঝটিকা সফরে আজ সোমবার বাংলাদেশে এসেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি। সকাল সোয়া ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থানকালে তিনি দুবার টুইট করেছেন। টুইট বার্তায় প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশের অসাধারণ উন্নয়ন গল্পের।
জন কেরিকে বহনকারী যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনীর বিশেষ ফ্লাইটটি সকাল সোয়া ১০টার দিকে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সেখানে তাঁকে স্বাগত জানান বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।
পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাজধানীর ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেন। যুক্তরাষ্ট্রের কোনো পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এটাই প্রথমবারের মতো বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন। সেখানে পৌঁছে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি।
এরপর জাদুঘর পরিদর্শন শেষে দর্শনার্থী বইয়ে তিনি লেখেন, ‘একটি সহিংস ও কাপুরুষোচিত ঘটনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের মানুষের কাছ থেকে সাহসী ও উজ্জ্বল এক নেতৃত্বকে কেড়ে নেওয়া হয়। কিন্তু এখন বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের পথে তাঁরই কন্যা শেখ হাসিনার দৃঢ় নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র বন্ধু হতে পেরে গর্বিত এবং তাঁর সেই স্বপ্নপূরণে দৃঢ় সমর্থক। আমরা শান্তি ও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যেতে একসঙ্গে কাজ করতে চাই।’
সেখান থেকে দুপুরের দিকে জন কেরি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে যান। এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চলা বৈঠকে সন্ত্রাস, দুই দেশের পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় ও যুক্তরাষ্ট্রে থাকা বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফেরতের বিষয়ে আলোচনা হয়। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর এক টুইট বার্তায় জন কেরি বলেছেন, ‘বাংলাদেশের একটি অসাধারণ উন্নয়ন গল্প আছে। আজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে আমি আনন্দিত।’

পরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বৈঠক করেন জন কেরি। এই বৈঠকের পর তিনি টুইট করেন। টুইট বার্তায় লেখেন, নিরাপত্তার বিষয় এবং সন্ত্রাসবিরোধী লড়াই নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে।
বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন। আরও কয়েকটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ভারতের নয়াদিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন তিনি।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর