দুই দিনেই ৫ জিবি হাওয়া গ্রামীণফোন গ্রাহকের!
দুই দিনেই ৫ জিবি হাওয়া গ্রামীণফোন গ্রাহকের!
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৮-২৩ ০৩:২১:৫০
প্রিন্টঅ-অ+


দুই দিনে কোনও কথাবার্তা ছাড়াই ৫ জিবি ইন্টারনেট ডাটা খরচ হওয়ায় হতভম্ভ হয়েছেন গ্রামীণফোনের গ্রাহক হারুন উর রশীদ। প্রায় একযুগ গ্রামীণফোন ব্যবহার করা এই স্টার গ্রাহক দুই দিন ধরে বিষয়টি নিয়ে নানাভাবে সুরাহা পাওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন। এ বিষয়টি তিনি ফেসবুকে পোস্ট করার পর আরও শতাধিক গ্রাহক একই ধরনের অভিযোগ করেছেন। বিটিআরসি বলেছে, তারা এ অভিযোগগুলো তদন্ত করে কঠোর ব্যবস্থা নেবে। তবে প্রথমে এ ব্যাপারে গ্রামীণফোনের কোনও বক্তব্য পাওয়া না গেলেও রাতে এক লিখিত বিবৃতিতে তারা দাবি করেছে, ওই পরিমাণ ডাটা গ্রাহক তিনদিনেই ব্যবহার করেছেন।

ভুক্তভোগী গ্রাহক সাংবাদিক হারুন উর রশীদ বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলে বেরিয়ে আসে এই প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকদের নানা অভিযোগ। তাদের কেউ বলছেন, কিভাবে তারা প্রতারিত হয়েছেন ইন্টারনেট খরচের বার্তা আর ডাটাহিস্ট্রির ভিন্নতার কারণে, কেউ জানাচ্ছেন প্রমোশনাল বার্তায় অতিষ্ঠ হওয়ার অভিজ্ঞতা।

সোমবার দুপুর একটার দিকে দেওয়া হারুন উর রশীদ-এর ফেসবুক পোস্টে ছয় ঘণ্টার মধ্যেই শত-শত লাইক এবং ১৪১টি কমেন্ট ও ১৪২জন শেয়ার করেছেন। পোস্টে গ্রামীণফোনকে অভিযোগ করে এবং টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি), ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পেজ, গ্রামীণফোনকে ট্যাগ করে লেখা হয়, ‘দুই দিনেই জিপি খেয়ে ফেলল আমার ৫ জিবি ডাটা। অথচ আমি ২৪ ঘণ্টা অনলাইনে থেকেও এর আগে মাসে ২ জিবি ডাটা শেষ করতে পারিনি। প্রতিকার চেয়ে কোনও ফল না পেয়ে দুই ডাকসাইটে টেলিকম সাংবাদিকের দ্বারস্থ হই। তারাও ব্যর্থ! কি বিস্ময়কর! গ্রামীণফোন কি যাচ্ছে তাই করে যাবে? আওয়াজ দিন। এবার ক্যাম্পেইন শুরু করতে চাই।’

তার পোস্টে মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান লেখেন, ‘একই কাজ আমার সঙ্গেও ঘটেছে। ৪জিবি+৪জিবি ১৮দিনের মধ্যে শেষ।’ শাকিল খান প্রতারণার কথা তুলে ধরতে গিয়ে লিখেছেন, একই জিনিস আমার সঙ্গেও হয়েছিল। আমি ২ জিবি নিয়েছিলাম। ইউটিউবে ভিডিও দেখার কিছুক্ষণ পরেই ‘you have used 20%-50%-80%-100%’ ৪টা মেসেজ দিয়ে সবগুলো এমবি নিয়ে নেয়। অথচ ডাটা হিস্টোরি তে গিয়ে দেখি ১৫০ এমবি-এর মতো খরচ হয়েছে।’ মাসুদ জাবেদ সিকদার লিখেছেন, ‘আমি টেলিটকের ডাটা ব্যবহার করেছি, ১ জিবিতেই মাস পার। কিন্তু জিপির ক্ষেত্রে ১ সপ্তাহও চলে না। এমনিতেই আমার জিপি ব্যবহার করতে ভালো লাগে না।’

সাইফুল স্বপন লিখেছেন, ‘শুধু কি তাই? এত দ্রুত এমবি কাটে, প্রচার করে হাই স্পিড থ্রিজি, কিন্তু নেট স্পিড এত স্লো যে, ফুটেজ পাঠানো যায় না। শহুরে এলাকা ছাড়া বড় বড় হাটবাজারে থ্রিজি নেই। আবার তারা বলছে, ফোরজির জন্য প্রস্তুত তারা। থ্রিজি ১এমবিপিএস-এর নিচে হওয়ার কথা নয়, কিন্তু তারা এখন ৫১২ কেবির প্যাকেজ বিক্রি করছে। যেখানে ১ জিবি ৩০ দিনের মেয়াদে ৫০ টাকা দর হওয়া উচিত, তারা এখন ৩৪৫ টাকা ১ জিবি বিক্রি করছে। এক দশকে না হলে ইন্টারনেটের দাম সরকারিভাবে কয়েক দফায় ৫০ গুণ কমিয়েছে। অথচ গ্রাহক পর্যায়ে এখনও কমায়নি।’

খালেদ মজুমদার লিখেছেন, ‘এর চেয়ে ভয়ানক জালিয়তি করে বোনাস ডাটার ক্ষেত্রে। বিভিন্ন হ্যান্ডসেটের সঙ্গে ১২ জিবি ফ্রি! দেখা যাচ্ছে একদিনে ১ জিবি শেষ তাও শুধু ফেবু (ফেসবুক) চালালে। আর ডাউনলোডের ক্ষেত্রে ৩০ এমবি ফাইলের সঙ্গে আরও ১০০ এমবি হাওয়া। এখনি সুরাহা করা উচিত।’

শরীফ আহমেদ সঙ্গে থাকার কথা বলে লিখেছেন, ‘নিশ্চয়, আপনার একটি রিপোর্ট-এর কারণে মিরপুর থেকে গুলশানগামী গ্রামীণ পরিবহন ভাড়া কমাতে বাধ্য হয়েছিল। আপনি শুরু করেন, আমরা আপনার সঙ্গে আছি ইনশাল্লাহ।’

অন্য আরেক ধরনের বিরক্তির কথা শেয়ার করেছেন মিজানুর রহমান। তিনি লিখেছেন, ‘ওরা আমাকে প্রমোশনাল মেসেজ পাঠায়। দিনে অনেকগুলা। আমি অভিযোগ করলাম। বললাম, আমার এসবের দরকার নেই। ওরা বলল, আর হবে না। এর ঠিক বিশ মিনিটের মাথায় আবারও মেসেজ এলো। এখনও প্রতিদিন বহু প্রমোশনাল মেসেজ পাই।…’

পোস্ট দেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই গ্রামীণফোন ভুক্তভোগী গ্রাহক হারুন উর রশীদকে ফেসবুক ইনবক্সে লিখেছেন, ‘আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি আপনার এমন একটি অভিজ্ঞতার জন্য। এই সমস্যাটি চেক করার জন্য আমাদের কাছে আপনার জিপি নম্বরটি এবং সমস্যার কথা বিস্তারিত insta.service@grameenphone.com এ ই-মেইল করে পাঠানোর অনুরোধ করছি। আশা করছি আপনার নম্বরটি পেলে বিষয়টি চেক করে অবশ্যই একটা সঠিক ফিডব্যাক দেওয়া সম্ভব হবে। আমরা আপনার ই-মেইলের অপেক্ষায় রইলাম।’


ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর