চুয়েটের নবনিযুক্ত উপাচার্যকে সংবর্ধনা জানাল চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতি
চুয়েটের নবনিযুক্ত উপাচার্যকে সংবর্ধনা জানাল চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতি
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৮-০১ ১৮:১৭:৪১
প্রিন্টঅ-অ+


চুয়েটের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ডঃ মোহাম্মদ রফিকুল আলমকে সংবর্ধনা জানাতে গতকাল ৩১ জুলাই, ২০১৬ রবিবার আইইবি ভবনের ইআরসি কনফারেন্স রুমে সন্ধ্যা ৭ টায় চুয়েটের প্রাক্তন ছাত্র সমিতির পক্ষ থেকে একটি আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। এতে চুয়েটের ১ম ব্যাচ থেকে ৪১ তম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ ছিল। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতির সম্মানী সভাপতি এবং আইইবি’র সম্মানী প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো: কবির আহমেদ ভূঞা এবং পরিচালনা করেন সমিতিত সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান সান্টু। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চুয়েটের ১৪তম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী এবং আইইবি’র ঢাকা সেন্টারের সম্মানী সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী আমিনুর রশিদ চৌধুরী, চুয়েটের ৮ম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী প্রকৌশলী হুমায়ূন কবির চৌধুরী, চুয়েটের ৩য় ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী প্রকৌশলী মোঃ হাফিজুর রহমানসহ প্রমুখ।
প্রথমেই শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন চুয়েটের ২৪তম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী, চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতির সম্মানী প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক এবং দি ইঞ্জিনিয়ার্স বিডি ডটকমের মাননীয় সম্পাদক শেখ তাজুল ইসলাম তুহিন। তিনি বলেন, “চুয়েটের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা সর্বদা চুয়েটের পাশে আছে এবং থাকবে। সম্প্রতি চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতি চুয়েটের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের(টিএসসি) নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য ১ কোটি টাকার একটি তহবিল গঠন করেছে”।
তিনি আরও বলেন, শুধু অবকাঠামোগত উন্নয়নই যথেষ্ট নয়। একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমীক মান উন্নয়নে গবেষণার কোন বিকল্প নেই। চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতির কাছে আমার অনুরোধ যেন আমরা চুয়েটের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষার মান উন্নয়নেও অবদান রাখতে পারি।
এরপর বক্তব্য রাখেন চুয়েটের ২০তম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী চন্দন কুমার দাশ। তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং মাননীয় রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ জানান চুয়েটের প্রাক্তন শিক্ষার্থীকেই চুয়েটের উপাচার্য হিসেবে নিযুক্ত করায়। অবশ্য তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন সম্প্রতি চুয়েটে মাদকের অপব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়াও। তিনি মাননীয় ভিসিকে এ বিষয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে অনুরোধ জানান।

এরপর বক্তব্য রাখেন চুয়েটের ১২তম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী এবং চুয়েটের প্রথম নারী শিক্ষার্থী প্রকৌশলী নীরা মজুমদার। তিনি তার বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের স্মৃতিচারণা করতে গিয়ে বলেন, প্রথম নারী শিক্ষার্থী হিসেবে চুয়েটে পড়াশোনা আমার জন্য অনেক বড় একটি চ্যালেঞ্জ ছিল। কিন্তু সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আমাকে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছিলেন আমার শিক্ষকেরা। ভাবতে ভালো লাগে যে চুয়েটে এখন ৭৫০ জন মেয়ে শিক্ষার্থী প্রকৌশলী হবার জন্য পড়াশোনা করছে। এটা আমাদের জন্য অনেক বড় একটি অর্জন।
বক্তব্য রাখেন চুয়েটের ১০ম ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থী প্রকৌশলী জসিমুদ্দিন। তিনি বলেন, “২০১৮ সালে আমাদের চুয়েটের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠিত হবে। মাননীয় উপাচার্যের কাছে আমার বিনীত অনুরোধ এই অনুষ্ঠানটি যাতে অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে আয়োজন করা হয়”।
এরপর বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চুয়েটের নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ডঃ মোহাম্মদ রফিকুল আলম। তিনি প্রথমেই চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতিকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তাকে এই সম্মান জানানোর জন্য। পূর্বের বক্তারা চুয়েটে গবেষণার পরিধি বৃদ্ধি, মাদক ও জঙ্গিবাদ দমন এবং ২০১৮ সালে চুয়েটের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান এই তিনটি বিষয়ে প্রাধান্য দেয়ায় মাননীয় উপাচার্য এই বিষয়গুলোতেই আলোকপাত করেন।
গবেষণার যথেষ্ট সুযোগ চুয়েটে নেই-এই বক্তব্যের সাথে দ্বিমত পোষণ করে মাননীয় উপাচার্য বলেন, চুয়েটে গবেষণার যথেষ্ট সুযোগ আছে। চুয়েটে বছরে তিন থেকে ৪টি আন্তর্জাতিক মানের সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। তবে এটা ঠিক আন্তর্জাতিক মানে পৌছতে গেলে আমাদের অনেক সময় ও অর্থের প্রয়োজন। চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতিকে ধন্যবাদ যে আপনারা গবেষণার পরিধি বৃদ্ধির জন্য অনুদান প্রদানে আগ্রহী।
চুয়েটে মাদকের অপব্যবহার সম্পর্কে উপাচার্য বলেন, ক্যাম্পাসে মাদকের অবাধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে ইতোমধ্যে আমরা স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সাথে কথা বলেছি। তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন যে ক্যাম্পাসে মাদকের অনুপ্রবেশ ঠেকাতে তিনি আমাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন।
আর জঙ্গিবাদ দমন বিষয়ে তিনি বলেন, চুয়েটে কখনো জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারবে না। আমরা ইতোমধ্যে সভা সেমিনারের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীদের সচেতন করে তুলছি।
২০১৮ সালে সুবর্ণজয়ন্তী তখনই জাঁকজমকপূর্ণ হবে যখন আপনাদের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ থাকবে। তাই আপনাদের উপস্থিতিই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আর এই অনুষ্ঠান সফল করতে আমরা খুব শীঘ্রই আপনাদের সকলকে নিয়ে কমিটি গঠন করব।
এরপর বক্তব্য রাখেন চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতির সম্মানী সভাপতি এবং আইইবি’র সম্মানী প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো: কবির আহমেদ ভূঞা। তিনি বলেন, “চুয়েটের অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং একাডেমীক উন্নয়নে চুয়েট প্রাক্তন ছাত্র সমিতি সর্বদা পাশে আছে”।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

প্রকৌশল সংবাদ এর অারো খবর