দেশের দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিগ ডেটা কোর্স চালুর উদ্যোগ
দেশের দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিগ ডেটা কোর্স চালুর উদ্যোগ
২০১৬-০৭-৩০ ০৫:৪৪:১২
প্রিন্টঅ-অ+


প্রতিনিয়তই বড় হচ্ছে ডেটার সাইজ। ডেটার পরিমাণ বেশি হলেই তা বিগ ডেটা। তবে কত বেশি হবে তার মানদণ্ড নির্ধারণ করা খুবই কঠিন। বিগ ডেটা নিজস্ব কম্পিউটারে কখনোই রাখা সম্ভব নয়। এর জন্য প্রযোজন বড় বড় ডেটা সেন্টারে রক্ষিত সার্ভার বা স্টোরেজ। উদারহণ হিসেবে ফেসবুক, গুগল -এর কথা বলা যায়। সোজা কথায় এদের ডেটাবেজকেই আমারা বিগডেটা বলতে পারি। বিগ ডেটার সুবিধাগুলো হলো –বিগ ডেটা সমপোযোগী, এটি সহজেই ব্যবহারযোগ্য, বিশ্বাসযোগ্য ও নিরাপদ। তবে সব কিছুর আগে পরিচিত হতে হবে নিত্য নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে।

কথাগুলো বললেন লিংকডইনের মেশিন লার্নিং সায়েন্টিস্ট ড. বদরুল মুনির সারওয়ার।

রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে চলমান বিপিও সামিট-২০১৬ –এর শেষে দিনে ‘বিগ ডেটা’ নিয়ে ‘হ্যান্ডস অন অ্যাকটিভিটিস অন বিগ ডেটা: টেকনিক’ শিরোনামের এক ওয়ার্কশপ আয়োজন করা হয়। এতে মূল বক্তা ছিলেন ড. বদরুল মুনির সারওয়ার। ওয়ার্কশপে তিনি ডেটা সায়েন্স নিয়ে বিশদ আলোচনা করেন। ডেটা সায়েন্টিস্ট হওয়ার জন্য দুটো বিষয় সম্পর্কে ভাল ধারণা থাকতে হয়। একটা হচ্ছে গণিত, আরেকটা হচ্ছে পরিসংখ্যান। ডেটা সায়েনিস্ট হওরয়ার জন্য স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে বসে ডেটা সংগ্রহ করতে হবে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন ডেটা সায়েন্টিস্ট যদি স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে না বসেন তাহলে তথ্যের ঘাটতি হতে পারে।

ওয়ার্কশপে জানানো হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকে বিগ ডেটা নিয়ে ৩ মাস থেকে ৬ মাস মেয়াদি কোর্স চালু করার কর্মপরিকল্পনা চলছে। ডেটা সায়েন্টিস্ট হওয়ার জন্য আপনাকে প্রোগ্রামিংয়ে খুব বেশি দক্ষ হতে হবে না। তবে এ বিষয়ে স্বচ্ছ ধারণা থাকতে হবে। ডেটা সায়েন্স ‍নিয়ে কাজ করতে করতে বাকি বিষয়গুলোতে দখল চলে আসবে বলে তিনি জানান। ওয়ার্কশপে ডেটার বিভিন্ন ধরন নিয়েও আলোচনা করা হয়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

শিক্ষা এর অারো খবর