হামলার পরও শরণার্থী নীতিতে অটল থাকার প্রত্যয় জার্মানির
হামলার পরও শরণার্থী নীতিতে অটল থাকার প্রত্যয় জার্মানির
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৭-২৯ ০৪:১২:২২
প্রিন্টঅ-অ+


ইউরোপের দেশ জার্মানিতে সম্প্রতি শরণার্থীদের চালানো একাধিক হামলার প্রেক্ষিতে দেশটির শরণার্থী নীতি পরিবর্তনের আওয়াজ উঠে। তবে এমন কোনও পরিকল্পনার কথা নাকচ করে দিয়েছেন জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল। বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র এক প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

মিউনিখ, ভ্যুর্ৎসবুর্গ, রয়েটলিঙেন ও আনসবাখে হামলার ঘটনার পর শরণার্থী নীতি নিয়ে চাপের মুখে পড়েন জার্মান চ্যান্সেলর। নীতি পুনর্বিবেচনার বিষয়ে তিনি বলেছেন, নিপীড়ন এবং ‍যুদ্ধ থেকে পলায়নপর মানুষদের সুরক্ষা পাওয়ার অধিকার আছে।

জার্মানিতে সম্প্রতি কয়েকটি হামলা চালিয়েছে আশ্রয়প্রার্থীরা। এ সম্পর্কে মের্কেল বলেন, তারা এ তৎপরতা চালিয়ে তাদের স্বাগতিক দেশকেই লজ্জিত করেছে।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, সন্ত্রাসীরা জার্মানির শরণার্থী নেওয়ার প্রস্তুতিকে স্তিমিত করে দিতে চায়। কিন্তু সরকার এর বিরুদ্ধে। সরকার সন্ত্রাসীদের ঘৃণা ছড়ানোর চেষ্টার বিরুদ্ধে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

সন্ত্রাসী হামলা রোধে মের্কেল বরং তথ্য সংগ্রহে নতুন ব্যবস্থা নেওয়াসহ ইন্টারনেটে অস্ত্র বিক্রি ঠেকানো এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের মতো আরও বেশ কিছু নতুন পদক্ষেপ গ্রহণের প্রতিশ্রুতি দেন।

সম্প্রতি জার্মানির বাভারিয়ায় দুটো হামলার ঘটনাই ঘটিয়েছে আশ্রয়প্রার্থীরা। রোববার আন্সবাখে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালায় এক সিরীয়।

১৮ জুলাই ভ্যুর্ৎসবুর্গে একটি ট্রেনে কুড়াল ও ছুরি নিয়ে হামলা চালানো ব্যক্তিও ছিল এক আফগান আশ্রয়প্রার্থী।
দুই হামলাকারীই জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) আনুগত্য স্বীকার করেছে।

গত ২২ জুলাই মিউনিখে হামলাকারী ইরানি বংশোদ্ভূত এক জার্মান চালিয়েছে। যদিও সে হামলার সঙ্গে জিহাদি যোগসূত্র খুঁজে পাওয়া যায়নি।

জার্মন চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল বলেছেন, যারা আশ্রয় পাওয়ার যোগ্য তাদেরকে আশ্রয় দেওয়ার নীতিতে জার্মানি অটল থাকবে।


ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিদেশ এর অারো খবর