কল্যাণপুরে নিহত সাব্বির আওয়ামী লীগ নেতার ‘নিখোঁজ’ সন্তান!
কল্যাণপুরে নিহত সাব্বির আওয়ামী লীগ নেতার ‘নিখোঁজ’ সন্তান!
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৭-২৮ ০০:১৩:৫৪
প্রিন্টঅ-অ+


রাজধানীর কল্যাণপুরে ‘জাহাজ বিল্ডিংয়ে’ নিহত ৯ জঙ্গির একজন চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বরুমছড়া গ্রামের সাব্বিরুল হক কনক (২২)। সে আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইকোনোমিক অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের ছাত্র ছিল বলে জানিয়েছেন তার বন্ধুরা।পুলিশের প্রকাশিত ছবি দেখে তার বন্ধু ও স্বজনদের মাধ্যমেই পরিচয় প্রকাশ পায়। তারা বিস্ময় প্রকাশ করেননি খুব, কেননা এইচএসসি পরীক্ষার পর কোচিং করতে গিয়েই বদলে যেতে থাকে কণিক।
তার পিতা আনোয়ারা উপজেলা বরুমচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আজিজুল হক চৌধুরী রাশেদ। এদিকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোহাম্মদ সফিউদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সাব্বিরের বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম সাব্বিরুল হক চৌধরী, পিতা আজিজুল হক চৌধুরী। তিনি আরও বলেন, সাব্বির ২০১৪ সালে ইকোনোমিক অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগেই ভর্তি হয়েছিল। তখন থেকেই সে বিভাগে অনুপস্থিত। নিয়মানুযায়ী পরপর দুই সেমিস্টার অনুপস্থিত থাকার কারণে তার ছাত্রত্ব চলে যাওয়ায় এখন সে আর আমাদের ছাত্র না।
স্থানীয় সূত্র জানায়, সাব্বিরুল হক কনক গোল্ডেন জিপিএ পেয়ে সরকারি মুসলিম হাই স্কুল থেকে ২০১০ সালে এসএসসি এবং ২০১২ সালে চট্টগ্রাম সরকারি কমার্স কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে। এইচএসসির পর চকবাজারে রেটিনা কোচিং সেন্টারে ক্লাস করতো। সেখানে যাওয়ার পর তার কথাবার্তা ও চালচলনে পরিবর্তন দেখা দেয় বলে সহপাঠীদের দাবি।
কনকের বাবা আজিজুল হক সপরিবারে চট্টগ্রাম শহরে বাস করেন। সন্তান এভাবে জঙ্গি কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে জেনে এলাকার মানুষের কাছে বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। তারা বিশ্বাস করতে পারছিলেন না কনক জঙ্গি। আনোয়ারা থানার ওসি আব্দুল লতিফ মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে নিহত জঙ্গি সাব্বিরুল হক কনকের গ্রামের বাড়ি বরুমছড়া গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন। তিনি স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে নিশ্চিত হয়েছেন চার মাস আগে নিখোঁজ হওয়া সাব্বির প্রকাশ কনক রাজধানীর কল্যাণপুরে নিহতদের একজন, তবে তার পিতা-মাতা গ্রামে অবস্থান না করায় এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে পারেননি বলে জানিয়েছে স্থানীয় থানা সূত্র।
কনকের বন্ধুদের দাবি, আচরণগত পরিবর্তনের সময় দাবি করতো, সে ছাড়া বাকি আত্মীয়-পরিবার অনৈসলামিক। তাদের ইসলামের পথে ফেরানোর কথাও বলতো। তাবলিগ জামাতের কথা বলে কখনও কখনও সপ্তাহ-দশদিনের জন্য উধাও হয়ে যেত সাব্বির। বছরখানেক আগে একবার তিন মাসের জন্য নিরুদ্দেশ থাকার পর বাসায় ফিরে আসে সে। সর্বশেষ চার মাস আগে রাউজানে এক বিয়েতে যাওয়ার কথা বলে বাবার কাছ থেকে পাঁচশ টাকা নিয়ে বের হয়। সেই থেকে কনক নিখোঁজ ছিল।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর