প্রকৌশল জগতে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের পথ চলা
প্রকৌশল জগতে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের পথ চলা
২০১৬-০৭-২৩ ০৪:০৪:১২
প্রিন্টঅ-অ+


ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার স্বপ্ন কার না আছে?এই স্বপ্নে বিভোর অনেকেই। তবে কেউ তার মেধায় ইঞ্জিনিয়ার হয়ে উঠেন, হয়তোবা কারও পক্ষে হয়ে উঠে না।

দেশে মেধাবি ও তরুণদের মাঝে এই বিষয়ে পড়াশুনার প্রতিযোগিতার কমতি নেই। দেশে প্রতি বছর হাজার হাজার মেধাবি ছাত্র-ছাত্রী এইসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করছে। এদের অধিকাংশরই ইচ্ছে থাকে ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়ার।

তবে এই বিপুল সংখ্যক মেধাবি শিক্ষার্থীর বিপরীতে সরকারি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে হাতে গোনা কয়েকটি। যা শিক্ষার্থীদের সংখ্যার অনুপাতে খুবই কম।

প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আসন সংখ্যাও সীমিত।
বিভিন্ন শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা যায় প্রতি বছর ১১টি র্বোডে এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগে শুধু জিপিএ-৫ পায় ৩০ হাজারের অধিক শিক্ষার্থী।

ফলশ্রুতিতে আসন সংকটের দরুন বিপুল সংখ্যক মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীর সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়ার স্বপ্ন তছনছ হয়ে যায়। আর এ কারণেই প্রযুক্তিগত শিক্ষার প্রসারের অভাবে বহি:বিশ্বের সাথে আমাদের দেশ তাল মিলিয়ে অগ্রসর হতে পারছে না।

এসব দিক বিবেচনা করে দেশে প্রযুক্তিগত শিক্ষার প্রসারের জন্য সরকার প্রতিষ্ঠা করেছে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ।

শুরুর কথা : মূল শহর থেকে আনুমানিক ৭ কিমি দূরে ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে (রহমতপুর বাইপাস মোড়, খাগডহর, ময়মনসিংহ সদর) অত্যাধুনিক ডিজাইনের বেশ কয়েকটি বিল্ডিং নিয়ে ৬ দশমিক ৩ একর জায়গা জুড়ে গড়ে উঠে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ।

ক্যাম্পাসটি অত্যন্ত সুন্দর ও মনোমুগ্ধকর। ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি অনুষদের অধিভূক্ত একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।
কলেজে মোট ৩টি ডির্পাটমেন্ট রয়েছে :-
১) ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং
২) কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং
৩) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং

২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষে বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ৬০জন শিক্ষার্থী ভর্তির মাধ্যমে শুরু হয় ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের একাডেমিক কার্যক্রম।

বর্তমানে এ কলেজে শুধুমাত্র ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ চালু আছে।

সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট ৬০ জন ছাএ-ছাত্রী ভর্তির মাধ্যমে এ বছর অর্থাৎ ২০১৪-১৫ সেশনে চালু হতে যাচ্ছে।
আগামী বছর থেকে কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ চালু হওয়ার কথা রয়েছে।

ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এবং কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং এই ৩ ডিপার্টমেন্টের জন্য ৩টি ডিপার্টমেন্টাল ভবন, ২টি ছাত্রহল, ১টি ছাত্রীহল, শিক্ষকদের আবাসিক ভবন, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসিক ভবন ও ১টি লাইব্রেরী ভবন নিয়ে সর্বমোট ১৩টি ভবন রয়েছে।

২টি ছাত্রহল এবং ১টি ছাত্রীহলে প্রায় ৫০০ জন ছাত্র-ছাত্রীর আবাসনের সুব্যবস্থা রয়েছে। ৫ তলাবিশিষ্ট প্রতিটি ডিপার্টমেন্টাল ভবনে রয়েছে অত্যাধুনিক মানের অনেকগুলো ল্যাবরেটরি।

৫ তলাবিশিষ্ট লাইব্রেরি ভবনে রয়েছে ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সভূক্ত শত শত দেশি-বিদেশি বই সম্বলিত ১টি স্টাডি কক্ষ, ১টি সেমিনার কক্ষ।

এছাড়াও লাইব্রেরি ভবনে রয়েছে সর্বক্ষণ অনলাইনে পড়াশোনা করার সুবিধা । পুরো ক্যাম্পাসে রয়েছে high speed wifi নেটওয়ার্ক কাভারেজ ও ব্রডব্যান্ড লাইন।

বিশেষত্ব: দেশের অধিকাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যখন তথাকথিত নোংরা ছাত্ররাজনীতির করাল গ্রাসে আক্রান্ত তখন ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ সেদিক থেকে পুরোপুরি মুক্ত। অর্থাৎ রাজনীতি মুক্ত ক্যাম্পাস।

ভর্তি প্রক্রিয়া : অন্যান্য ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়ের মত ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি পরীক্ষার সম্মুখিন হতে হয়।

এসএসসি এবং এইচএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে মোট জিপিএ ৮ (৪র্থ বিষয় বাদে) পেলে এবং এইচএসসিতে গনিত, পদার্থ ও রসায়ন প্রতিটি বিষয়ে পৃথকভাবে জিপিএ ৩.৫ ও ইংরেজীতে ৩.০০ পেলে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার আবেদন করা যাবে।

ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ২০১৪-১৫ সেশনে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ইতোমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে ভর্তি পরীক্ষা ইংরেজী মাধ্যমে নেয়ার কথা বলা হয়েছে এবং ভর্তি পরীক্ষা মোট ২০০ নম্বরের ভিত্তিতে অনুষ্ঠিত হবে।

মান বন্টন নিম্নরুপ :
১) SSC GPA (without 4th subject) X 8 + HSC GPA ( without 4th subject) X12 =১০০ নম্বর
২) লিখিত পরীক্ষা (MCQ) – Only English
Version
* পদার্থ -৩০
*গণিত-৩০
*রসায়ন -২০
*ইংরেজি-২০
মোট -১০০ নম্বর
বিগত বছরগুলোতে ময়মনসিংহ ও সিলেট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ভর্তি পরীক্ষা সমন্বিতভাবে হলেও এবারই প্রথমবারের মত স্বায়ত্ত্বশাসিতভাবে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
আরও উল্লেখ্য যে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজটি ময়মনসিংহ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় রূপে প্রস্তাবিত।
ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জানতে লগ করুন www.mec.ac.bd

(হৃদয় কবির)

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

শিক্ষা এর অারো খবর