রাজশাহীতে বায়োগ্যাসের সুফল লাভ করছে গ্রামাঞ্চলের মানুষ
রাজশাহীতে বায়োগ্যাসের সুফল লাভ করছে গ্রামাঞ্চলের মানুষ
২০১৬-০৭-২০ ০৪:৪৬:৫৫
প্রিন্টঅ-অ+


গত কয়েক বছর যাবত রাজশাহী নগরীর আশপাশের বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলের মানুষের কাছে কমদামে রান্নার বিকল্প জ্বালানি হিসেবে বায়োগ্যাসের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে।

বায়োগ্যাস শুধু রান্নার কাজেই ব্যবহৃত হয় না, এ থেকে নির্গত বর্জ্য পদার্থ জমিতে উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য বর্জ্য সার হিসেবে এবং পুকুরে মাছের খাবার হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

গ্রামীণ প্রান্তিক পর্যয়ের মানুষ যারা কখনই ভাবতে পারেনি তারা গ্যাস ব্যবহার করতে পারবে, নাগরিক সুবিধার মতো তারা এখন রান্নার কাজেও গ্যাস ব্যবহার করতে পারছে। সম্প্রতি ৪শ’ গ্রামীণ পরিবার রান্নায় কাঠ ব্যবহারের পরিবর্তে বায়োগ্যাস ব্যবহার করার পাশাপাশি জমির উর্বরাশক্তি ও মাছের উৎপাদন বৃদ্ধিতে সহায়তা করছে।

স্থানীয় সূত্র জানায় গোদাগাড়ি উপজেলার কিছু এলাকাকে স্থায়ীভাবে বায়োগ্যাস গ্রাম হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। বিকল্প জ্বালানী হিসেবে কাঠের পরিবর্তে বায়োগ্যাস ব্যবহার করে অনেক মানুষ তাদের সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছে।

বায়োগ্যাসে কোনো ধোয়া হয় না এবং হাড়িতে কোনো দাগ হয় না, যার ফলে হাড়ি ধোয়ার কোনো ঝামেলা নেই এবং গোখাদ্য হিসেবে খড়কুটার জন্য অতিরিক্ত কোনো খরচ হয় না। বায়োগ্যাস বাদ না দেয়ার কথা উল্লেখ করে স্থানীয়রা বলেন, বায়োগ্যাসের কারণে এই অঞ্চলের জীবনমানের ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে।

গ্রামীণ নারীরা বিশেষ করে যারা গৃহস্থালী রান্না ও ধোয়ার কাজ করেন, বায়োগ্যাস ব্যবহারে তারা বেশি সুফল লাভ করছে। মোটামুটিভাবে বায়োগ্যাস পদ্ধতি বসতবাড়ির জ্বালানী সাশ্রয় নিশ্চিত করেছে।

বায়োগ্যাসের বর্জ্য ব্যবহারের ফলে জমির উর্বরাশক্তি বৃদ্ধি পায় এবং অতিরিক্ত সার ও যতœ ছাড়াই বায়োগ্যাসের বর্জ্য নালা ও বর্জ্য যে গর্তে জমা হয়, তার আশেপাশে বিভিন্ন সবজি, ফল বিশেষ করে কলার ফলন ভালো হয়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর