নারী-প্রতিবন্ধীদের আসনে অন্যদের বসানো ঠেকাতে হচ্ছে কঠোর আইন
নারী-প্রতিবন্ধীদের আসনে অন্যদের বসানো ঠেকাতে হচ্ছে কঠোর আইন
স্টাফ রিপোর্টার
২০১৬-০৭-১৮ ০৪:১৪:৪৪
প্রিন্টঅ-অ+


সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গণপরিবহনের নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষিত আসনে যাতে অন্য কোনো যাত্রী বসতে না পারে, তার জন্য আইন প্রণয়ন হচ্ছে। আজ রোববার সংসদে প্রশ্নোত্তরপর্বে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন।
জাসদের সাংসদ লুৎফা তাহেরের এ সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ঢাকা মহানগরীতে নারীদের স্বচ্ছন্দে যাতায়াতের জন্য প্রতিটি মিনিবাসে ছয়টি এবং বড় বাসে নয়টি আসন নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের জন্য সংরক্ষিত আছে। এসব আসনে যাতে অন্য কেউ বসতে না পারেন, সে জন্য প্রক্রিয়াধীন সড়ক পরিবহন আইন ২০১৬-তে একটি বিধান রাখা হয়েছে। ভবিষ্যতে শুধু নারীদের বহনের জন্য বাসের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।

নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে বর্তমানে নিবন্ধিত যানবাহনের সংখ্যা ২৫ লাখ ৭৪ হাজার ৫৪৮টি। এর মধ্যে কার ২ লাখ ৯৫ হাজার ৯৪০, মাইক্রোবাস ৮৭ হাজার ৭৬৫, মোটরসাইকেল ১৪ লাখ ৭৫ হাজার ৯২৬, বাস ৩৭ হাজার ১৪৪, ট্রাক ১ লাখ ১৬ হাজার ১৩১ এবং লরি ৪ হাজার ২৬৩টি। মন্ত্রী জানান, মোটরযানের কর ও ফি খাতে বছরে ৮০০ থেকে ১ হাজার ৪০০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হয়। কর ও ফি বাবদ ২০১৩ সালে ৮১৪ কোটি ৯৭ লাখ, ২০১৪ সালে ১ হাজার ২৬ কোটি ৭৮ লাখ, ২০১৫ সালে ১ হাজার ৪৭৮ কোটি ৩৩ লাখ এবং চলতি বছরের ২৫ মে পর্যন্ত ৫৪১ কোটি ৮৪ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে।

আমিনা আহমেদের প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ওবায়দুল কাদের বলেন, ঢাকা মহানগরীতে বর্তমানের মিনিবাসের পরিবর্তে বড় বাস চালুর জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় মহানগরীতে মিনিবাস ও অটোরিকশার রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হচ্ছে না।

ওয়ার্কার্স পার্টির হাজেরা বেগমের প্রশ্নের জবাবে রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক সংসদকে জানান, রেলওয়ের অবৈধ দখলে থাকা জমির পরিমাণ ৪ হাজার ৩৯১ দশমিক ৩৯ একর। এর মধ্যে বেসরকারি ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের অবৈধ দখলে রয়েছে ৩ হাজার ৪৬৯ দশমিক শূন্য ৫ একর এবং সরকারি, আধা সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার অবৈধ দখলে রয়েছে ৯২২ দশমিক ৩৪ একর।
আবদুল মতিনের প্রশ্নের জবাবে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক বলেন, দেশের মোট বস্ত্র চাহিদার ৪০ শতাংশ তাঁতশিল্প থেকে পূরণ হয়ে থাকে।

বেগম আখতার জাহানের প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়াধীন মহিলা কর্মকর্তার সংখ্যা মোট ১ হাজার ২১০ জন। এর মধ্যে সচিব/ভারপ্রাপ্ত সচিব ৭ জন, অতিরিক্ত সচিব ৫৮, যুগ্ম সচিব ১০৪, উপসচিব ১৮৯, সিনিয়র সহকারী সচিব ৩৩৭, সহকারী সচিব ৩৮৯, নন ক্যাডার সহকারী সচিব ৬, দশম গ্রেডের কর্মকর্তা ২২ এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীন সংযুক্ত দপ্তর/সংস্থায় কর্মকর্তার সংখ্যা ৯৮ জন।

৩ লাখ ২৮ হাজার ৩১১ পদ শূন্য

দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসনমন্ত্রী বলেন, ডিসেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, অধিদপ্তর ও দপ্তরগুলোতে ১৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৯৩টি পদের বিপরীতে ৩ লাখ ২৮ হাজার ৩১১টি পদ শূন্য রয়েছে। এর মধ্যে প্রথম শ্রেণির ৪৪ হাজার ৫৪৪টি, দ্বিতীয় শ্রেণির ৫৩ হাজার ১৮০টি, তৃতীয় শ্রেণির ১ লাখ ৬০ হাজার ৫৩৯টি এবং চতুর্থ শ্রেণির ৭০ হাজার ৪৮টি শূন্য পদ রয়েছে।

আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইনের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত উচ্চ আদালতে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৪ লাখ ১২ হাজার ৯৫টি। এর মধ্যে হাইকোর্ট বিভাগে ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৩০৩ এবং আপিল বিভাগে ১২ হাজার ৭৯২টি। এ ছাড়া জেলা পর্যায়ে সহকারী জজ আদালত থেকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতসহ সব ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ১৮ লাখ ৯ হাজার ৪৬১টি এবং জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারাধীন মামলার সংখ্যা ৮ লাখ ৮৮ হাজার ৪১১টি।

প্রশ্নোত্তরের আগে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের অধিবেশন শুরু হয়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর