মিতু হত্যার ২ সন্দেহভাজন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত
মিতু হত্যার ২ সন্দেহভাজন ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত
২০১৬-০৭-০৫ ১৮:৩২:২৭
প্রিন্টঅ-অ+


চট্ট্রগামে এসপিপত্নী মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যাকাণ্ডে সন্দেহভাজন দুইজন ‘কথিত’ বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ঠাণ্ডাছড়িতে এ ঘটনা ঘটে বলে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি হুমায়ন কবিরের ভাষ্য।

নুরুল ইসলাম ওরফে রাশেদ (২৭) ও নুরুন্নবী (২৮) নামের ওই দুইজনসহ সন্দেহভাজন মোট পাঁচজনের দেশ ছাড়ায় এ আগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল পুলিশ।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে ওসি বলেন, “ঠাণ্ডাছড়ি এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে গোলাগুলির ঘটনাটি ঘটেছে।”

চট্টগ্রামের পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার বলেন, “আমাদের টিম এখনও ফিরে আসেনি। আসার পর বিস্তারিত জানতে পারব।”

গত ৫ জুন নগরীর জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় খুন হন চট্টগ্রামে বিভিন্ন জঙ্গি বিরোধী অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতু।

ওই হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে আটজনকে গ্রেপ্তারের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়লেও গত ২৬ জুন আনোয়ার ও মোতালেব মিয়া ওরফে ওয়াসিম নামে দুজনের গ্রেপ্তারের খবর জানায় পুলিশ।

এরপর ২৮ জুন নগরীর বাকলিয়া থানার রাজাখালী এলাকা থেকে এহতেশামুল হক ভোলা ও মনির হোসেন নামের দুইজনকে দুটি অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ বলছে, আদালতে জবানবন্দিতে ওয়াসিম ও আনোয়ার বলেছেন, মুছার ‘পরিকল্পনা অনুযায়ী’ এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়। ওই জবানবন্দিতেই রাশেদ, কালু, শাহজাহান ও নবীর নাম আসে।

পরে ওই পাঁচজনের দেশ ছাড়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির পর পুলিশ ১ জুলাই শাহজাহান ও মামলায় অন্যতম সন্দেহভাজন মুছার ছোট ভাই সাইদুল ওরফে সাকুকে গ্রেপ্তারের কথা জানায়।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

স্বদেশ এর অারো খবর