এবার ‘ঘরোয়া রোবটে’ ঝুঁকছেন মাস্ক
এবার ‘ঘরোয়া রোবটে’ ঝুঁকছেন মাস্ক
২০১৬-০৬-২৮ ১৮:৪১:৪২
প্রিন্টঅ-অ+


টেসলা মোটর্স, স্পেসএক্স-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইলন মাস্ক বৈদ্যুতিক গাড়ি আর রকেট তৈরির পর ‘ঘোরোয়া রোবট’ বানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

ইলন মাস্ক আর প্রযুক্তিপণ্যের স্টার্টআপগুলোর জন্য অনুদান সংস্থা ওয়াইকম্বিনেটর-এর প্রেসিডেন্ট স্যাম অল্টম্যান অলাভজনক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওপেনএআই প্রতিষ্ঠা করেন। এই প্রতিষ্ঠানটি এবার ঘরের কাজের জন্য রোবট বানাতে চায়।

রোবট তৈরির বিষয়ে ওপেনএআই একটি ব্লগে ব্যাখ্যা করে, যন্ত্রগুলো স্বাভাবিক কাজগুলো কীভাবে করে থাকে, তা জানার জন্য যন্ত্রের ক্ষমতাকে পরীক্ষা ও যাচাই করা একটি ভাল উপায়। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, এই পরে থাকা রোবোটগুলোকে তারা ঘরের ছোট বড় কাজের জন্য রূপান্তরিত করতে চাচ্ছে।

ব্লগে জানানো হয়, “সাধারণভাবে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাগুলোর পরীক্ষার জন্য রোবটিক্স পরীক্ষায় সবচেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হয়।”

ওপেনএআই-এর লক্ষ্য হল, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং যন্ত্রকে শেখানো প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা করা এবং এই ব্যাপারে নিশ্চিত করা যে কোনো রোবট যেন ভবিষ্যতে মানবজাতির কোনো ক্ষতি করতে না পারে।

রোবটকে আলাদা করে রেখে ওপেনএআই তাদের অন্য আরেকটি লক্ষ্য সম্পর্কে জানায়, সেটি হচ্ছে চ্যাটবট বা ‘বুদ্ধিমত্তা এজেন্ট’, যা মানুষের সঙ্গে ‘স্বাভাবিকভাবে’ কথা বলতে সক্ষম, আমরা যা ইতোমধ্যে ফেইসবুক মেসেঞ্জার অ্যাপটিতে দেখেছি।

চ্যাটবট বানাবার জন্য ওপেনএআই -এর একটি উদ্দেশ্য হচ্ছে, সাধারণ কাজগুলো যেন সহজেই করে ফেলা যায়। যেমন, অনলাইনে সিনেমা খোঁজা, একটি ভাষা আর একটি ভাষায় রূপান্তরিত করা, একটি নির্ধারিত বিষয় নিয়ে বার্তালাপ করা এমনকি কোনো প্রশ্নে আরও বেশি পরিষ্কার হবার জন্য চ্যাটবটটিকে জিজ্ঞাসা করা।

ওপেনএআই আরও জানায়, তারা গুগলের ডিপ মাইন্ড (গুগল এর কেনা ব্রিটিশ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিইয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান)-এর প্রকল্প দেখে আরও বেশি অনুপ্রাণিত হয়েছে। যারা গো নামের গেইমটি নির্মাণের পর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নকে হারিয়েছেন। ওপেনএআই গেইম নির্মাণের রাজ্যে চ্যাটবট নির্মাণের মাধ্যমে নিজেদের অধিপত্য বিস্তার করতে চায়।

ওপেনএআই তাদের ব্লগে এক বিবৃতিতে বলে, “গেইম একটি ভার্চুয়াল দুনিয়া, যেখানে ভিন্নতা দেওয়া যায় এবং গেইম খেলা তাড়াতাড়ি শেখার জন্য “জেনেরেটিভ মডেল এবং রিইনফোর্সমেন্ট লার্নিং”-এর উন্নতি প্রয়োজন।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, এই প্রযুক্তি অন্যান্য প্রযুক্তির মতো সাধারণ হবে না, কেননা তাদের প্রথম গুরুত্ব থাকবে তাদের সাফল্য পরিমাপ করা। একটি পরীক্ষার মাধ্যমে এই পরিমাপ করা হবে, যেন তারা আরও বাস্তবিকভাবে চ্যাটবট এজেন্টগুলো-কে বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত করতে পারে।

প্রতিষ্ঠানটি জানায় তারা ‘লিভিং মেট্রিক’ নিয়ে কাজ করছে, যা চ্যাটবোট-এর কাজ পরিমাপে সহায়তা করবে।

মাস্ক এবং আল্টম্যান দুজনই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার শক্তি নিয়ে চিন্তিত। আলাদাভাবে মাস্ক-এর ধারণা, রোবট দ্বারা পৃথিবী পরিচালনা করা বিজ্ঞানের লক্ষ্য আর এটাই হল কারণ। এদিকে আল্টম্যান বলেন, “কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাই হবে পৃথিবী শেষ হবার অন্যতম কারণ, কিন্তু এর সঙ্গে এটাই হবে সবচেয়ে ভাল সঙ্গী।”

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিজ্ঞান প্রযুক্তি এর অারো খবর