যাত্রা শুরু হলো সোনার বাংলার
যাত্রা শুরু হলো সোনার বাংলার
২০১৬-০৬-২৬ ১৮:৫৭:০৪
প্রিন্টঅ-অ+


কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করল বহুল কাঙ্খিত বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেন সোনার বাংলা এক্সপ্রেস।

রোববার সকাল ৭টায় ট্রেনটি স্টেশন ত্যাগ করে। এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ট্রেনটির উদ্বোধন করেন। একমাত্র বনানী স্টেশন ছাড়া ট্রেনটি আর কোথাও দাঁড়াবে না বলে জানা গেছে।

স্টেশনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সোনার বাংলায় প্রতিটি আসন পর্যাপ্ত জায়গা নিয়ে করা হয়েছে। শোভন থেকে শুরু করে স্লিপিং- প্রতিটি আসনে যাত্রীরা যেন আরামে বসতে পারেন, সেজন্য এক আসন থেকে আরেক আসন পর্যন্ত যথেষ্ট ফাঁকা জায়গা রাখা হয়েছে। লেদারের কভারযুক্ত কোমল আসন এসি ও শোভনে।

সুবর্ণ এক্সপ্রেসের রুটে নতুন যাত্রা করা এ ট্রেন প্রতিদিন সকাল ৭টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে দুপুর পৌনে ১টার দিকে চট্টগ্রাম পৌঁছাবে। ট্রেনের সঙ্গে একটি খাবার গাড়ি রয়েছে। আছে নামাজের কক্ষ। সোনার বাংলায় রয়েছে দুটি এসি বগি। প্রতিটি এসি চেয়ারের বগিতে ৫৫টি, এসি স্লিপিংয়ে ৩৩টি ও প্রতিটি শোভন চেয়ারের বগিতে ৬০টি আসন রয়েছে।

শনিবার এ ট্রেন চলাচল করবে না। আর যাত্রীদের ভাড়া গুণতে হবে এসি স্লিপিং চেয়ার ১২০০ টাকা, এসি চেয়ার ১ হাজার টাকা আর শোভন চেয়ারে ৬০০ টাকা।

স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী বলেন, বাংলাদেশের রেল জগতে সোনার বাংলাই এখন সর্বাধুনিক বিলাসবহুল ট্রেন। জানালার গ্লাস দিয়ে না তাকালে যাত্রীরা ট্রেনটির থামা থেকে শুরু করে ৭২ কিলোমিটার গতিতে চলার অনুভূতিই পাবেন না।

কথা হয় ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেনের সঙ্গে। তিনি সোনার বাংলার টিকিটের জন্য অপেক্ষা করছিলেন স্টেশনে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তিনি তিনটি টিকিট পান।

তিনি জানান, অত্যন্ত আধুনিক ও দ্রুতগতির এ ট্রেনে যেতে তিনি টিকিটগুলো কিনেছেন। তিনি ৫ জুলাই চট্রগ্রাম যাবেন।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী চম্পাকলি বলেন, ‘টিভিতে দেখেছি এটা স্পেশাল ট্রেন। দেখতেও বেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন। না উঠলে মিস করব।

ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর প্রকাশিত প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, রেখাচিত্র, ভিডিও, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট অাইনে পু্র্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবেনা ।

মন্তব্য

মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু নিয়ে ইঞ্জিনিয়রবিডি ডটকম-এর কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো দায় নেবে না।

বিবিধ এর অারো খবর